ঢাকা ১০:৪১ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ




দশমিনা- গলাছিপা খেটে খাওয়া মানুষের আস্থায় মোহাব্বত হোসেন প্রিন্স

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:৫৮:০৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮ ১৯ বার পড়া হয়েছে

সকালের সংবাদ ডেস্কঃ-  আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রতিটি আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা তৎপর নিজের আসন গোছাতে তবে জনগণের ইতিবাচক সাড়াই বলে দেয় কারা এগিয়ে আছে মনোনয়ন দৌড়ে।পটুয়াখালী-৩ (দশমিনা-গলাচিপা) আসনের শতভাগ সম্ভাব্য নৌকার মাঝি দানবীর খ্যাত কেন্দ্রীয় যুবলীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক কামরান শাহিদ প্রিন্স মহাব্বত।

১৯৮১ সালে ছাত্র রাজনীতির সাথে তার প্রথম পথচলা। ১৯৮২ তে গলাচিপা মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক পাস করে। পরবর্তীতে ঢাকা সিটি কলেজ ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এর দায়িত্ব পালন করেন তিনি। ১৯৯২ সালে মোহাম্মাদপুরের স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক দায়িত্ব পান। পরবর্তীতে মোহাম্মদপুর থানা যুবলীগ ও ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের শ্রম ও জনশক্তি বিষয়ক সম্পাদক,আহবায়ক এবং ২০০২ সালে তিনি সহ সভাপতি নির্বাচিত হন। জাতীয় পার্টির আমলে আওয়ামী লীগ কর্মী হিসেবে রাজনৈতিক হয়রানি ও মামলার শিকার হন। এবং পরে বিএনপি জামাত জোটের ৬৫ টি মামলার শিকার হন। তবুও এক পা পিছু হটেননি। রাজনীতির ময়দান থেকে লড়েছন বীরের মত।

মানুষের সেবায় দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে যাচ্ছেন এই গন মানুষের নেতা প্রিন্স মহাব্বত। সরেজমিনে দেখা যায়, পটুয়াখালীর-৩ আসনের এমন কোন স্থান নেই যেখানে এই নেতার সাহায্য সহযোগিতা পৌঁছায়নি। এলাকার মসজিদ,মাদ্রাসা,শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, হাসপাতাল ইত্যাদির উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা পালন করেছেন তিনি।এছাড়াও গরীব দুখী মানুষের সুখে দুঃখে সবসময় আগলে রেখেছেন। গলাচিপা ও দশমিনার সবকটি ইউনিয়ন এ প্রতিবছরই তিনি গরীব অসহায়ের মাঝে লুঙ্গি-শাড়ি বিতরণ করেন। ১৯৮৮ সাল থেকে তার এলাকা হতে ঢাকায় আগত গরীব অসহায় রোগীদের চিকিৎসা সেবা ও হাসপাতালে ভর্তির ব্যাবস্থা করে দেন তিনি। স্কুল-কলেজ ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান আসবাবপত্র প্রদান সহ দশমিনার চানপুরায় “হাজী মহাব্বত কোরআন শিক্ষা মাদ্রাসা নির্মাণ এমনকি, ছাত্র-ছাত্রীদের যাতায়াত এর সুবিধার জন্য ভ্যান প্রদান করেছেন তিনি।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তনয়া সায়মা ওয়াজেদের আদর্শ বাস্তবায়নে দশমিনায় প্রতিবন্ধি স্কুলের শিক্ষার্থীদের জন্য পোশাক ও স্কুলের সংস্করনের জন্য অনুদান প্রদান, ছাড়াও ক্রীড়া ক্ষেত্রে লাঠী খেলা, নৌকা বাইচ, ক্রিকেট,ফুটবল সহ বিভিন্ন ক্রীড়া অনুষ্ঠানে পৃষ্ঠোপোষকতা এবং সর্বশেষ নিজস্ব অর্থায়নে দশমিনার রনগোপালদী ইউনিয়নে নদী ভাঙ্গন রোধ ও ২৭০ ফিট রাস্তা মেরামত ব্যাবস্থা করেছেনন।

এলাকাবাসীর দাবী, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ বিনির্মাণে ও তার সকল উন্নয়নমুখী কর্মকাণ্ড প্রেক্ষিতে আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কামরান শাহিদ প্রিন্স-কে জননেত্রী শেখ হাসিনা পটুয়াখালীর ৩ আসনে (দশমিনা-গলাচিপা) প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত করলে এই আসন থেকে তিনি বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করবেন এবং দেশ ও জাতির উন্নয়নের ধারা কে অব্যাহত রাখতে সহায়তা করবেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




দশমিনা- গলাছিপা খেটে খাওয়া মানুষের আস্থায় মোহাব্বত হোসেন প্রিন্স

আপডেট সময় : ১২:৫৮:০৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২০ নভেম্বর ২০১৮

সকালের সংবাদ ডেস্কঃ-  আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রতিটি আসনে মনোনয়ন প্রত্যাশীরা তৎপর নিজের আসন গোছাতে তবে জনগণের ইতিবাচক সাড়াই বলে দেয় কারা এগিয়ে আছে মনোনয়ন দৌড়ে।পটুয়াখালী-৩ (দশমিনা-গলাচিপা) আসনের শতভাগ সম্ভাব্য নৌকার মাঝি দানবীর খ্যাত কেন্দ্রীয় যুবলীগের স্বাস্থ্য ও জনসংখ্যা বিষয়ক সম্পাদক কামরান শাহিদ প্রিন্স মহাব্বত।

১৯৮১ সালে ছাত্র রাজনীতির সাথে তার প্রথম পথচলা। ১৯৮২ তে গলাচিপা মাধ্যমিক বিদ্যালয় থেকে মাধ্যমিক পাস করে। পরবর্তীতে ঢাকা সিটি কলেজ ছাত্রলীগের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক এর দায়িত্ব পালন করেন তিনি। ১৯৯২ সালে মোহাম্মাদপুরের স্বেচ্ছাসেবক লীগের যুগ্ম আহ্বায়ক দায়িত্ব পান। পরবর্তীতে মোহাম্মদপুর থানা যুবলীগ ও ঢাকা মহানগর উত্তর যুবলীগের শ্রম ও জনশক্তি বিষয়ক সম্পাদক,আহবায়ক এবং ২০০২ সালে তিনি সহ সভাপতি নির্বাচিত হন। জাতীয় পার্টির আমলে আওয়ামী লীগ কর্মী হিসেবে রাজনৈতিক হয়রানি ও মামলার শিকার হন। এবং পরে বিএনপি জামাত জোটের ৬৫ টি মামলার শিকার হন। তবুও এক পা পিছু হটেননি। রাজনীতির ময়দান থেকে লড়েছন বীরের মত।

মানুষের সেবায় দীর্ঘদিন ধরে কাজ করে যাচ্ছেন এই গন মানুষের নেতা প্রিন্স মহাব্বত। সরেজমিনে দেখা যায়, পটুয়াখালীর-৩ আসনের এমন কোন স্থান নেই যেখানে এই নেতার সাহায্য সহযোগিতা পৌঁছায়নি। এলাকার মসজিদ,মাদ্রাসা,শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, হাসপাতাল ইত্যাদির উন্নয়নে বিশেষ ভূমিকা পালন করেছেন তিনি।এছাড়াও গরীব দুখী মানুষের সুখে দুঃখে সবসময় আগলে রেখেছেন। গলাচিপা ও দশমিনার সবকটি ইউনিয়ন এ প্রতিবছরই তিনি গরীব অসহায়ের মাঝে লুঙ্গি-শাড়ি বিতরণ করেন। ১৯৮৮ সাল থেকে তার এলাকা হতে ঢাকায় আগত গরীব অসহায় রোগীদের চিকিৎসা সেবা ও হাসপাতালে ভর্তির ব্যাবস্থা করে দেন তিনি। স্কুল-কলেজ ও বিভিন্ন প্রতিষ্ঠান আসবাবপত্র প্রদান সহ দশমিনার চানপুরায় “হাজী মহাব্বত কোরআন শিক্ষা মাদ্রাসা নির্মাণ এমনকি, ছাত্র-ছাত্রীদের যাতায়াত এর সুবিধার জন্য ভ্যান প্রদান করেছেন তিনি।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর তনয়া সায়মা ওয়াজেদের আদর্শ বাস্তবায়নে দশমিনায় প্রতিবন্ধি স্কুলের শিক্ষার্থীদের জন্য পোশাক ও স্কুলের সংস্করনের জন্য অনুদান প্রদান, ছাড়াও ক্রীড়া ক্ষেত্রে লাঠী খেলা, নৌকা বাইচ, ক্রিকেট,ফুটবল সহ বিভিন্ন ক্রীড়া অনুষ্ঠানে পৃষ্ঠোপোষকতা এবং সর্বশেষ নিজস্ব অর্থায়নে দশমিনার রনগোপালদী ইউনিয়নে নদী ভাঙ্গন রোধ ও ২৭০ ফিট রাস্তা মেরামত ব্যাবস্থা করেছেনন।

এলাকাবাসীর দাবী, বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নের বাংলাদেশ বিনির্মাণে ও তার সকল উন্নয়নমুখী কর্মকাণ্ড প্রেক্ষিতে আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে কামরান শাহিদ প্রিন্স-কে জননেত্রী শেখ হাসিনা পটুয়াখালীর ৩ আসনে (দশমিনা-গলাচিপা) প্রার্থী হিসেবে নির্বাচিত করলে এই আসন থেকে তিনি বিপুল ভোটের ব্যবধানে জয়লাভ করবেন এবং দেশ ও জাতির উন্নয়নের ধারা কে অব্যাহত রাখতে সহায়তা করবেন।