ঢাকা ০৫:১০ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৪ এপ্রিল ২০২৪, ৩০ চৈত্র ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo সাস্টিয়ান ব্রাহ্মণবাড়িয়া এর ইফতার মাহফিল সম্পন্ন Logo কুবির চট্টগ্রাম স্টুডেন্টস ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের ইফতার ও পূর্নমিলনী Logo অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমেদের মায়ের মৃত্যুতে শাবির মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মুক্ত চিন্তা চর্চায় ঐক্যবদ্ধ শিক্ষকবৃন্দ পরিষদের শোক প্রকাশ Logo শাবির অধ্যাপক জহীর উদ্দিনের মায়ের মৃত্যুতে উপাচার্যের শোক প্রকাশ Logo বিশ কোটিতে গণপূর্তের প্রধান হওয়ার মিশনে ‘ছাত্রদল ক্যাডার প্রকৌশলী’! Logo দূর্নীতির রাক্ষস ফায়ার সার্ভিসের এডি আনোয়ার! Logo ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতি হওয়া শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অবকাঠামোর সংস্কার শুরু Logo বুয়েটে নিয়মতান্ত্রিক ছাত্র রাজনীতির দাবিতে শাবিপ্রবি ছাত্রলীগের মানববন্ধন Logo কুবি উপাচার্যের বক্তব্যের প্রমাণ দিতে শিক্ষক সমিতির সাত দিনের আল্টিমেটাম Logo কুবি বাংলা বিভাগের অ্যালামনাইদের ইফতার ও দোয়া মাহফিল




নৌকার গণসংযোগে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ১২

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:২০:৫৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১ ৭০ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক;

চট্টগ্রাম নগরের টাইগারপাস এলাকায় আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিমের গণসংযোগ চলাকালে লালখান বাজারকেন্দ্রিক বিবদমান ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে অন্তত ১২ জন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে চারজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার (১৬ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় টাইগারপাস বটতল এলাকায় নৌকা প্রতীকের প্রচারণাকালে লালখান বাজার ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ সমর্থিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী আবুল হাসনাত মো. বেলাল ও লালখান বাজার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা দিদারুল আলম মাসুম সমর্থকদের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে।

সংঘর্ষের খবর পেয়ে মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা মাইনুদ্দিন হাসান চৌধুরী, নগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন আলম ওই এলাকায় গণসংযোগে অংশ নেননি।

খবরটি নিশ্চিত করে খুলশী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আফতাব হোসেন বলেন, ‘বেলাল আর মাসুম গ্রুপের মধ্যে ঝামেলার খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক।’

সংঘর্ষের জন্য নিজ দলের নেতা দিদারুল আলম মাসুমকে দায়ী করে কাউন্সিলর প্রার্থী আবুল হাসনাত মো. বেলাল বলেন, ‘কাউন্সিলর পদে দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ার পর থেকে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করছে মাসুমের লোকজন। আজ আমাদের মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিমের প্রচারণা উপলক্ষে কর্মীরা জমায়েত হলে মাসুমের অনুসারীরা আমাদের ওপর হামলা করে। এতে আমাদের কর্মী মোজাম্মেল হোসেন সোহাগ, মাহমুদ ও শাহীনসহ ১২ জন আহত হন। তাদের মধ্যে কয়েকজনকে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।’

দিদারুল আলম মাসুমের দাবি, নৌকার প্রচারণাকালে কাউন্সিলর প্রার্থী বেলালের কর্মীরা তার লোকজনের ওপর পেছন দিক দিয়ে অতর্কিত হামলা করে।

হামলায় বেলাল গ্রুপের সঙ্গে অনেক ছাত্রদলের নেতাকর্মীও যোগ দিয়েছিলেন বলেও দাবি করেন দিদারুল আলম মাসুম।

এর আগে বিকেলে গণসংযোগ শেষে ফেরার পথে হালিশহর রুপসা বেকারির সামনে আরেক মেয়র প্রার্থী বিএনপির ডা. শাহাদাতের গাড়িবহরে হামলা চালানো হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




নৌকার গণসংযোগে ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের সংঘর্ষ, আহত ১২

আপডেট সময় : ১০:২০:৫৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৬ জানুয়ারী ২০২১

নিজস্ব প্রতিবেদক;

চট্টগ্রাম নগরের টাইগারপাস এলাকায় আওয়ামী লীগের মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিমের গণসংযোগ চলাকালে লালখান বাজারকেন্দ্রিক বিবদমান ছাত্রলীগের দুই গ্রুপের মধ্যে সংঘর্ষে অন্তত ১২ জন আহত হয়েছেন। এদের মধ্যে চারজনকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ (চমেক) হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

শনিবার (১৬ জানুয়ারি) সন্ধ্যায় টাইগারপাস বটতল এলাকায় নৌকা প্রতীকের প্রচারণাকালে লালখান বাজার ওয়ার্ডের আওয়ামী লীগ সমর্থিত ওয়ার্ড কাউন্সিলর প্রার্থী আবুল হাসনাত মো. বেলাল ও লালখান বাজার ওয়ার্ড আওয়ামী লীগ নেতা দিদারুল আলম মাসুম সমর্থকদের মধ্যে এ ঘটনা ঘটে।

সংঘর্ষের খবর পেয়ে মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিম ও কেন্দ্রীয় আওয়ামী লীগ নেতা মাইনুদ্দিন হাসান চৌধুরী, নগর আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক আলাউদ্দিন আলম ওই এলাকায় গণসংযোগে অংশ নেননি।

খবরটি নিশ্চিত করে খুলশী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আফতাব হোসেন বলেন, ‘বেলাল আর মাসুম গ্রুপের মধ্যে ঝামেলার খবর পেয়ে পুলিশ গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এখন পরিস্থিতি স্বাভাবিক।’

সংঘর্ষের জন্য নিজ দলের নেতা দিদারুল আলম মাসুমকে দায়ী করে কাউন্সিলর প্রার্থী আবুল হাসনাত মো. বেলাল বলেন, ‘কাউন্সিলর পদে দলীয় মনোনয়ন না পাওয়ার পর থেকে আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীদের ওপর হামলা করছে মাসুমের লোকজন। আজ আমাদের মেয়র প্রার্থী রেজাউল করিমের প্রচারণা উপলক্ষে কর্মীরা জমায়েত হলে মাসুমের অনুসারীরা আমাদের ওপর হামলা করে। এতে আমাদের কর্মী মোজাম্মেল হোসেন সোহাগ, মাহমুদ ও শাহীনসহ ১২ জন আহত হন। তাদের মধ্যে কয়েকজনকে চমেক হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।’

দিদারুল আলম মাসুমের দাবি, নৌকার প্রচারণাকালে কাউন্সিলর প্রার্থী বেলালের কর্মীরা তার লোকজনের ওপর পেছন দিক দিয়ে অতর্কিত হামলা করে।

হামলায় বেলাল গ্রুপের সঙ্গে অনেক ছাত্রদলের নেতাকর্মীও যোগ দিয়েছিলেন বলেও দাবি করেন দিদারুল আলম মাসুম।

এর আগে বিকেলে গণসংযোগ শেষে ফেরার পথে হালিশহর রুপসা বেকারির সামনে আরেক মেয়র প্রার্থী বিএনপির ডা. শাহাদাতের গাড়িবহরে হামলা চালানো হয়।