ঢাকা ০৪:১০ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :




মানিকগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে স্বউদ্যোগে লকডাউন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:২১:২৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ এপ্রিল ২০২০ ৮৫ বার পড়া হয়েছে

মানিকগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে স্বউদ্যোগে লকডাউন

স্টাফ রিপোর্টার, মানিকগঞ্জ;  মানিকগঞ্জের একটি গ্রামে স্বউদ্যোগে বাঁশ দিয়ে বেড়া দিয়ে লকডাউন করছে এলাকাবাসী মানিকগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে স্বউদ্যোগে লকডাউন করেছে এলাকাবাসী।

মানিকগঞ্জ পৌরসভার উত্তর সেওতা, ঘিওর উপজেলার জাবরা খানপাড়াসহ জেলার বিভিন্ন স্থানে স্বউদ্যোগে লকডাউন করার খবর পাওয়া যাচ্ছে।

তবে এসব স্থানে লকডাউনের ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে তাদের কোনও আলোচনা হয়নি বলেও জানান তারা।

গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় মানিকগঞ্জ পৌরসভার উত্তর সেওতা এলাকায় গিয়ে দেখা গেল রাস্তার ওপর বাঁশ ফেলে গাড়ি চলাচল বন্ধ রেখেছে তারা। পায়ে হাঁটা কিংবা মোটরসাইকেল এবং বাইসাইকেল আরোহীর জন্য রাস্তার একপাশে একটু জায়গা ফাঁকা রাখা হয়েছে। সেখান দিয়ে যাতায়াত করার সময় গাড়িতেও শরীরে দেওয়া হচ্ছে জীবাণুনাশক ওষুধমিশ্রিত পানি। এলাকার শিক্ষিত যুবকদের স্বউদ্যোগে এই কাজটি করতে দেখা গেছে।

মাসুদুর রহমান মাসুদ, মোমিন মোল্লা, সবুজ মিয়া, শফিকুল ইসলাম আসলাম, মো. শহিদ, চুন্নু মিয়া, কাজিম উদ্দিন, অন্তর মোল্লা, সুজন মোল্লা, জীবন মোল্লা, মোশারফ হোসেনসহ অনেকেই শামিল হয়েছেন এই কাজে।

কথা হলো উদ্যোগীদের একজন অন্তর মোল্লার সঙ্গে। সে এবার এসসি পরীক্ষা দিয়েছে। এলাকার বড়ভাইদের সঙ্গে সেও যোগ দিয়েছে এই কাজে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণরোধেই তারা এই উদ্যোগ গ্রহণ করেছে বলে জানায় সে।

ঘিওর উপজেলার জাবরা খান পাড়ার সড়কটি সম্পূর্ণভাবে বাঁশ বেঁধে আটকে দেওয়া হয়েছে।

এদিকে জনস্বার্থে মানিকগঞ্জ জেলা শহরের বিভিন্ন সড়কে বাঁশ ফেলে সড়ক আটকে রাখে পুলিশ।

এলাকাবাসীর এইসব উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক এস এম ফেরদৌস। তবে, যেকোনো উদ্যোগ গ্রহণ করার পর তা বাস্তবায়নের আগে স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা করতে হয়। যা তারা করেননি বলে জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, গেল কয়েকদিনে মানিকগঞ্জের সিংগাইরে তাবলিগ জামাতের এক পুরুষ ব্যক্তি ও এক নারী স্বাস্থ্যকর্মীর আক্রান্ত হওয়ার পর সমগ্র সিংগাইর পৌর এলাকা এবং করোনায় আক্রান্ত হয়ে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে সন্দেহে ঘিওর উপজেলার একটি গ্রামকে লকডাউন করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

এছাড়া সিংগাইরে আক্রান্ত তাবলিগ জামাতের ওই ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা ২৮ জন ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করেছে ঢাকা থেকে আসা আইইডিসিআর এর একটি প্রতিনিধি দল। সর্বশেষ গতকাল সোমবার সকালে তাবলিগ জামাতের ৫৪ জনসহ ৫৭ব্যক্তিকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রেখেছে জেলা প্রশাসন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




মানিকগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে স্বউদ্যোগে লকডাউন

আপডেট সময় : ১০:২১:২৫ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৭ এপ্রিল ২০২০

স্টাফ রিপোর্টার, মানিকগঞ্জ;  মানিকগঞ্জের একটি গ্রামে স্বউদ্যোগে বাঁশ দিয়ে বেড়া দিয়ে লকডাউন করছে এলাকাবাসী মানিকগঞ্জের বিভিন্ন স্থানে স্বউদ্যোগে লকডাউন করেছে এলাকাবাসী।

মানিকগঞ্জ পৌরসভার উত্তর সেওতা, ঘিওর উপজেলার জাবরা খানপাড়াসহ জেলার বিভিন্ন স্থানে স্বউদ্যোগে লকডাউন করার খবর পাওয়া যাচ্ছে।

তবে এসব স্থানে লকডাউনের ব্যাপারে স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে তাদের কোনও আলোচনা হয়নি বলেও জানান তারা।

গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় মানিকগঞ্জ পৌরসভার উত্তর সেওতা এলাকায় গিয়ে দেখা গেল রাস্তার ওপর বাঁশ ফেলে গাড়ি চলাচল বন্ধ রেখেছে তারা। পায়ে হাঁটা কিংবা মোটরসাইকেল এবং বাইসাইকেল আরোহীর জন্য রাস্তার একপাশে একটু জায়গা ফাঁকা রাখা হয়েছে। সেখান দিয়ে যাতায়াত করার সময় গাড়িতেও শরীরে দেওয়া হচ্ছে জীবাণুনাশক ওষুধমিশ্রিত পানি। এলাকার শিক্ষিত যুবকদের স্বউদ্যোগে এই কাজটি করতে দেখা গেছে।

মাসুদুর রহমান মাসুদ, মোমিন মোল্লা, সবুজ মিয়া, শফিকুল ইসলাম আসলাম, মো. শহিদ, চুন্নু মিয়া, কাজিম উদ্দিন, অন্তর মোল্লা, সুজন মোল্লা, জীবন মোল্লা, মোশারফ হোসেনসহ অনেকেই শামিল হয়েছেন এই কাজে।

কথা হলো উদ্যোগীদের একজন অন্তর মোল্লার সঙ্গে। সে এবার এসসি পরীক্ষা দিয়েছে। এলাকার বড়ভাইদের সঙ্গে সেও যোগ দিয়েছে এই কাজে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণরোধেই তারা এই উদ্যোগ গ্রহণ করেছে বলে জানায় সে।

ঘিওর উপজেলার জাবরা খান পাড়ার সড়কটি সম্পূর্ণভাবে বাঁশ বেঁধে আটকে দেওয়া হয়েছে।

এদিকে জনস্বার্থে মানিকগঞ্জ জেলা শহরের বিভিন্ন সড়কে বাঁশ ফেলে সড়ক আটকে রাখে পুলিশ।

এলাকাবাসীর এইসব উদ্যোগকে স্বাগত জানিয়েছেন জেলা প্রশাসক এস এম ফেরদৌস। তবে, যেকোনো উদ্যোগ গ্রহণ করার পর তা বাস্তবায়নের আগে স্থানীয় প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা করতে হয়। যা তারা করেননি বলে জানান তিনি।

প্রসঙ্গত, গেল কয়েকদিনে মানিকগঞ্জের সিংগাইরে তাবলিগ জামাতের এক পুরুষ ব্যক্তি ও এক নারী স্বাস্থ্যকর্মীর আক্রান্ত হওয়ার পর সমগ্র সিংগাইর পৌর এলাকা এবং করোনায় আক্রান্ত হয়ে এক ব্যক্তির মৃত্যু হয়েছে সন্দেহে ঘিওর উপজেলার একটি গ্রামকে লকডাউন করেছে স্থানীয় প্রশাসন।

এছাড়া সিংগাইরে আক্রান্ত তাবলিগ জামাতের ওই ব্যক্তির সংস্পর্শে আসা ২৮ জন ব্যক্তির নমুনা সংগ্রহ করেছে ঢাকা থেকে আসা আইইডিসিআর এর একটি প্রতিনিধি দল। সর্বশেষ গতকাল সোমবার সকালে তাবলিগ জামাতের ৫৪ জনসহ ৫৭ব্যক্তিকে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টিনে রেখেছে জেলা প্রশাসন।