ঢাকা ০৩:২৯ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo মঙ্গল শোভাযাত্রা – তাসফিয়া ফারহানা ঐশী Logo সাস্টিয়ান ব্রাহ্মণবাড়িয়া এর ইফতার মাহফিল সম্পন্ন Logo কুবির চট্টগ্রাম স্টুডেন্টস ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের ইফতার ও পূর্নমিলনী Logo অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমেদের মায়ের মৃত্যুতে শাবির মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মুক্ত চিন্তা চর্চায় ঐক্যবদ্ধ শিক্ষকবৃন্দ পরিষদের শোক প্রকাশ Logo শাবির অধ্যাপক জহীর উদ্দিনের মায়ের মৃত্যুতে উপাচার্যের শোক প্রকাশ Logo বিশ কোটিতে গণপূর্তের প্রধান হওয়ার মিশনে ‘ছাত্রদল ক্যাডার প্রকৌশলী’! Logo দূর্নীতির রাক্ষস ফায়ার সার্ভিসের এডি আনোয়ার! Logo ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতি হওয়া শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অবকাঠামোর সংস্কার শুরু Logo বুয়েটে নিয়মতান্ত্রিক ছাত্র রাজনীতির দাবিতে শাবিপ্রবি ছাত্রলীগের মানববন্ধন Logo কুবি উপাচার্যের বক্তব্যের প্রমাণ দিতে শিক্ষক সমিতির সাত দিনের আল্টিমেটাম




নারীকে শ্লীলতাহানী মারধর: জেলা আ’লীগের সদস্য আমজাদ বিরুদ্ধে মামলা 

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:০৪:০৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ মে ২০২১ ১০৮ বার পড়া হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক: বন্দরে জায়গা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মদনগঞ্জে এক নারীকে শ্লীলতাহানীসহ তার দেবর ও ছেলেকে লোহার সাবল দিয়ে পিটিয়ে মারাত্মক জখমের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। গতকাল রাতে ওয়াহিদা বেগম বাদী হয়ে আমজাদ হোসেন,আনোয়ার হোসেনসহ ৮জনকে আসামী করে এ মামলা দায়ের করা হয়। মামলা নং ১(৫)২১ইং।

হামলার ঘটনায় জড়িত নারায়ণগঞ্জ জেলা আ’লীগের সদস্য হাজী আমজাদ হোসেনের ভাই আনোয়ার হোসেন(৬৫)কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) সকালে মদনগঞ্জ এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে,মদনগঞ্জ লক্ষারচর এলাকার মৃত শাহাবুদ্দিন কালাচান মিয়ার স্ত্রী ওয়াহিদা বেগমের সাথে একই এলাকার জেলা আ’লীগের সদস্য হাজী আমজাদ হোসেনের সাথে বাড়ির সিমানায় টিনের প্রাচীর দেওয়াকে কেন্দ্র করে বিরোধ চলছিল। এর ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) সকালে ওয়াহিদা বেগমের বাড়ির সিমানায় ওই এলাকার আ’লীগ নেতা আমজাদ হোসেন,তার ভাই আনোয়ার হোসেনসহ ১০/১৫জন নিয়ে সন্ত্রাসী কায়দায় ফের দখল করার চেষ্টা চালায়। ওয়াহিদা বেগমের ছেলে সাব্বির বাধা দিতে গেলে দখলকারীরা অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে। পরে আ’লীগ নেতা আমজাদ হোসেন ওয়াহিদা বেগমের ঘরে তালা দিতে আসলে সে প্রতিবাদ করলে ওই মধ্যবয়সী নারীকে চুলের মুঠি ধরে শ্লীলতাহানীর চেষ্টা করে। আমজাদ হোসেনের ভাই আনোয়ার হোসেন লোহার সাবল দিয়ে ওয়াহিদা বেগমকে কুপ দিয়ে আঘাত করার চেষ্টা করলে ওই নারী ওয়াহিদা বেগমের ভাগ্নে রাসেল বাচাতে গেলে গুরুতর জখম হয়। একপর্যায়ে আ’লীগ নেতা বদমেজাজী আমজাদ হোসেন,তার ভাই আনোয়ার,লুৎফর,নিজুম,আশিক,ফাহিম,কাব্বি,ওসমান গনিসহ সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে ওয়াহিদা বেগমের ঘরে তান্ডপ চালায়। এ সময় ঘরের আলমারিতে রক্ষিত ১লক্ষ টাকা ও ১ভরি স্বর্নালংকার লুট করে নিয়ে যায়। আহত ওই নারী ওয়াহিদার আর্ত চিৎকাওে আশপাশের লোক এগিয়ে আসলে হামলা কারীরা প্রাননাশের হুমকি দিয়ে চম্পট দেয়। প্রতিবেশিদের সহায়তায় আহত ওই নারীসহ পরিবারের কয়েকজনকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা প্রদান করা হয়।

বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ দীপক চন্দ্র সাহা জানান, মধ্যবয়সী ওই নারী ও তার পরিবারের সদস্যদের পেটানোর ঘটনায় মামলা হয়েছে। মামলায় জড়িত একজন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




নারীকে শ্লীলতাহানী মারধর: জেলা আ’লীগের সদস্য আমজাদ বিরুদ্ধে মামলা 

আপডেট সময় : ০১:০৪:০৪ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ৪ মে ২০২১

অনলাইন ডেস্ক: বন্দরে জায়গা সংক্রান্ত বিরোধের জের ধরে মদনগঞ্জে এক নারীকে শ্লীলতাহানীসহ তার দেবর ও ছেলেকে লোহার সাবল দিয়ে পিটিয়ে মারাত্মক জখমের ঘটনায় থানায় মামলা দায়ের হয়েছে। গতকাল রাতে ওয়াহিদা বেগম বাদী হয়ে আমজাদ হোসেন,আনোয়ার হোসেনসহ ৮জনকে আসামী করে এ মামলা দায়ের করা হয়। মামলা নং ১(৫)২১ইং।

হামলার ঘটনায় জড়িত নারায়ণগঞ্জ জেলা আ’লীগের সদস্য হাজী আমজাদ হোসেনের ভাই আনোয়ার হোসেন(৬৫)কে গ্রেফতার করেছে পুলিশ। গত শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) সকালে মদনগঞ্জ এলাকায় এ হামলার ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে,মদনগঞ্জ লক্ষারচর এলাকার মৃত শাহাবুদ্দিন কালাচান মিয়ার স্ত্রী ওয়াহিদা বেগমের সাথে একই এলাকার জেলা আ’লীগের সদস্য হাজী আমজাদ হোসেনের সাথে বাড়ির সিমানায় টিনের প্রাচীর দেওয়াকে কেন্দ্র করে বিরোধ চলছিল। এর ধারাবাহিকতায় গত শুক্রবার (৩০ এপ্রিল) সকালে ওয়াহিদা বেগমের বাড়ির সিমানায় ওই এলাকার আ’লীগ নেতা আমজাদ হোসেন,তার ভাই আনোয়ার হোসেনসহ ১০/১৫জন নিয়ে সন্ত্রাসী কায়দায় ফের দখল করার চেষ্টা চালায়। ওয়াহিদা বেগমের ছেলে সাব্বির বাধা দিতে গেলে দখলকারীরা অকথ্য ভাষায় গালমন্দ করে। পরে আ’লীগ নেতা আমজাদ হোসেন ওয়াহিদা বেগমের ঘরে তালা দিতে আসলে সে প্রতিবাদ করলে ওই মধ্যবয়সী নারীকে চুলের মুঠি ধরে শ্লীলতাহানীর চেষ্টা করে। আমজাদ হোসেনের ভাই আনোয়ার হোসেন লোহার সাবল দিয়ে ওয়াহিদা বেগমকে কুপ দিয়ে আঘাত করার চেষ্টা করলে ওই নারী ওয়াহিদা বেগমের ভাগ্নে রাসেল বাচাতে গেলে গুরুতর জখম হয়। একপর্যায়ে আ’লীগ নেতা বদমেজাজী আমজাদ হোসেন,তার ভাই আনোয়ার,লুৎফর,নিজুম,আশিক,ফাহিম,কাব্বি,ওসমান গনিসহ সন্ত্রাসী বাহিনী নিয়ে ওয়াহিদা বেগমের ঘরে তান্ডপ চালায়। এ সময় ঘরের আলমারিতে রক্ষিত ১লক্ষ টাকা ও ১ভরি স্বর্নালংকার লুট করে নিয়ে যায়। আহত ওই নারী ওয়াহিদার আর্ত চিৎকাওে আশপাশের লোক এগিয়ে আসলে হামলা কারীরা প্রাননাশের হুমকি দিয়ে চম্পট দেয়। প্রতিবেশিদের সহায়তায় আহত ওই নারীসহ পরিবারের কয়েকজনকে নারায়ণগঞ্জ জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসা প্রদান করা হয়।

বন্দর থানার অফিসার ইনচার্জ দীপক চন্দ্র সাহা জানান, মধ্যবয়সী ওই নারী ও তার পরিবারের সদস্যদের পেটানোর ঘটনায় মামলা হয়েছে। মামলায় জড়িত একজন আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বাকিদের গ্রেফতারের চেষ্টা অব্যাহত আছে।