ঢাকা ১০:২০ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo মঙ্গল শোভাযাত্রা – তাসফিয়া ফারহানা ঐশী Logo সাস্টিয়ান ব্রাহ্মণবাড়িয়া এর ইফতার মাহফিল সম্পন্ন Logo কুবির চট্টগ্রাম স্টুডেন্টস ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের ইফতার ও পূর্নমিলনী Logo অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমেদের মায়ের মৃত্যুতে শাবির মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মুক্ত চিন্তা চর্চায় ঐক্যবদ্ধ শিক্ষকবৃন্দ পরিষদের শোক প্রকাশ Logo শাবির অধ্যাপক জহীর উদ্দিনের মায়ের মৃত্যুতে উপাচার্যের শোক প্রকাশ Logo বিশ কোটিতে গণপূর্তের প্রধান হওয়ার মিশনে ‘ছাত্রদল ক্যাডার প্রকৌশলী’! Logo দূর্নীতির রাক্ষস ফায়ার সার্ভিসের এডি আনোয়ার! Logo ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতি হওয়া শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অবকাঠামোর সংস্কার শুরু Logo বুয়েটে নিয়মতান্ত্রিক ছাত্র রাজনীতির দাবিতে শাবিপ্রবি ছাত্রলীগের মানববন্ধন Logo কুবি উপাচার্যের বক্তব্যের প্রমাণ দিতে শিক্ষক সমিতির সাত দিনের আল্টিমেটাম




জবিতে আরেক শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:৫৯:১৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৮ মার্চ ২০২৪ ৩৬ বার পড়া হয়েছে

সকালের সংবাদ ডেস্ক; জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) শিক্ষার্থী ফাইরুজ অবন্তিকার মৃত্যুর রেশ কাটতে না কাটতেই আরেক শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ শিক্ষার্থীর।

পরীক্ষায় অনৈতিকভাবে ফেল করিয়ে দেওয়ার অভিযোগ বিভাগীয় প্রধানের দিকে। যৌন হয়রানির অভিযোগ তুললেন ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশনের এক শিক্ষার্থী।

এ নিয়ে গত তিন বছরে দুই তদন্ত কমিটির কাছে ৩ বার সাক্ষাৎকার দিলেও উপাচার্যের আশ্বাস ছাড়া তেমন কিছুই মেলেনি।

জানা যায়, ছদ্ম নাম মিতা। ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। অবন্তিকার ঘটনার পর নিজের সঙ্গে ঘটে যাওয়া যৌন হয়রানি নিয়ে মুখ খোলেন।

তিনি বলেন-
২০১৯ সালে নিজের প্রোডাকশন হাউসে ডেকে নিয়ে যৌন হয়রানি করেন শিক্ষক আবু শাহেদ ইমন। পর বেশ কয়েকবার একই শিক্ষকের মাধ্যমে হয়রানির শিকার হন তিনি।

ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থী আরও বলেন, নিজেকে কীভাবে নিরাপদ করে আবার ক্যাম্পাসে ফিরিয়ে এনেছি, তা বলতে পারবো না। তার আক্রোশ থেকে আমি বের হতে পারিনি। ক্লাসে তার কোর্সের অ্যাসাইনমেন্ট আমি যখন বিভাগে সাবমিট করতে যাই, তখনও তিনি আমাকে স্পর্শ করেছেন।

তিনি বলেন, ২০২১ সালে লিখিত অভিযোগ দিলেও তিন বছরে কোনো লাভ হয়নি। উল্টো দুই তদন্ত কমিটির কাছে ৩ বার দিতে হয়েছে সাক্ষাৎকার। তবে তদন্ত ঠেকাতে হাইকোর্টে গিয়েও সুবিধা করতে পারেনি অভিযুক্ত শিক্ষক।

এসব অভিযোগ নিয়ে জানতে যোগাযোগ করা হয় শিক্ষক ইমনের সঙ্গে। যদিও বিষয়টি বানোয়াট বলে দাবি তার।

প্রসঙ্গ, শুক্রবার (১৫ মার্চ) রাতে জবির সহকারী প্রক্টর দ্বীন ইসলাম ও আইন বিভাগের শিক্ষার্থী রায়হান সিদ্দিকী আম্মানকে (আম্মান সিদ্দিকী) দায়ী করে ফেসবুকে পোস্ট দেন ফাইরুজ অবন্তিকা। এরপর ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি। এরপর থেকে উত্তাল হয়ে ওঠে পুরো বিশ্ববিদ্যালয়।

Loading

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




জবিতে আরেক শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ

আপডেট সময় : ১১:৫৯:১৩ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ১৮ মার্চ ২০২৪

সকালের সংবাদ ডেস্ক; জগন্নাথ বিশ্ববিদ্যালয় (জবি) শিক্ষার্থী ফাইরুজ অবন্তিকার মৃত্যুর রেশ কাটতে না কাটতেই আরেক শিক্ষকের বিরুদ্ধে যৌন হয়রানির অভিযোগ শিক্ষার্থীর।

পরীক্ষায় অনৈতিকভাবে ফেল করিয়ে দেওয়ার অভিযোগ বিভাগীয় প্রধানের দিকে। যৌন হয়রানির অভিযোগ তুললেন ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশনের এক শিক্ষার্থী।

এ নিয়ে গত তিন বছরে দুই তদন্ত কমিটির কাছে ৩ বার সাক্ষাৎকার দিলেও উপাচার্যের আশ্বাস ছাড়া তেমন কিছুই মেলেনি।

জানা যায়, ছদ্ম নাম মিতা। ফিল্ম অ্যান্ড টেলিভিশন বিভাগের ২০১৭-১৮ শিক্ষাবর্ষের শিক্ষার্থী। অবন্তিকার ঘটনার পর নিজের সঙ্গে ঘটে যাওয়া যৌন হয়রানি নিয়ে মুখ খোলেন।

তিনি বলেন-
২০১৯ সালে নিজের প্রোডাকশন হাউসে ডেকে নিয়ে যৌন হয়রানি করেন শিক্ষক আবু শাহেদ ইমন। পর বেশ কয়েকবার একই শিক্ষকের মাধ্যমে হয়রানির শিকার হন তিনি।

ভুক্তভোগী ওই শিক্ষার্থী আরও বলেন, নিজেকে কীভাবে নিরাপদ করে আবার ক্যাম্পাসে ফিরিয়ে এনেছি, তা বলতে পারবো না। তার আক্রোশ থেকে আমি বের হতে পারিনি। ক্লাসে তার কোর্সের অ্যাসাইনমেন্ট আমি যখন বিভাগে সাবমিট করতে যাই, তখনও তিনি আমাকে স্পর্শ করেছেন।

তিনি বলেন, ২০২১ সালে লিখিত অভিযোগ দিলেও তিন বছরে কোনো লাভ হয়নি। উল্টো দুই তদন্ত কমিটির কাছে ৩ বার দিতে হয়েছে সাক্ষাৎকার। তবে তদন্ত ঠেকাতে হাইকোর্টে গিয়েও সুবিধা করতে পারেনি অভিযুক্ত শিক্ষক।

এসব অভিযোগ নিয়ে জানতে যোগাযোগ করা হয় শিক্ষক ইমনের সঙ্গে। যদিও বিষয়টি বানোয়াট বলে দাবি তার।

প্রসঙ্গ, শুক্রবার (১৫ মার্চ) রাতে জবির সহকারী প্রক্টর দ্বীন ইসলাম ও আইন বিভাগের শিক্ষার্থী রায়হান সিদ্দিকী আম্মানকে (আম্মান সিদ্দিকী) দায়ী করে ফেসবুকে পোস্ট দেন ফাইরুজ অবন্তিকা। এরপর ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি। এরপর থেকে উত্তাল হয়ে ওঠে পুরো বিশ্ববিদ্যালয়।

Loading