ঢাকা ১০:১৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ




ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা, মা ও সৎবাবা আটক

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:১১:০৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ৯৭ বার পড়া হয়েছে

জেলা প্রতিনিধি ঝালকাঠি
লকাঠিতে ষষ্ঠ শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর মা ও সৎবাবাকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে ঝালকাঠি সদর থানা হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ।

আটকরা হলেন- ওই ছাত্রীর মা সাহেরা আক্তার কাজল ও সৎবাবা মো. আলম। রাতেই শহরের কালীবাড়ি সড়ক এলাকার একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে পুলিশ।

ঝালকাঠি সদর থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) মো. আবু তাহের মিয়া জানান, শহরের কাঠপট্টি এলাকার মায়ের বাড়িতে গত কয়েক মাস আগে মা ও সৎবাবার সহযোগিতায় মেয়েটির সঙ্গে কয়েকজন পুরুষ শারীরিক সম্পর্কে মিলিত হয়। তার মা ও সৎবাবা তাকে এ অনৈতিক কাজে বাধ্য করে। আর এতে মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। বুধবার ডাক্তারি পরীক্ষা ও চিকিৎসার জন্য তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হবে। ঘটনার তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলেও তিনি জানান।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




ষষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা, মা ও সৎবাবা আটক

আপডেট সময় : ০৯:১১:০৮ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১১ সেপ্টেম্বর ২০১৯

জেলা প্রতিনিধি ঝালকাঠি
লকাঠিতে ষষ্ঠ শ্রেণির এক স্কুলছাত্রী অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়েছে। এ ঘটনায় ওই ছাত্রীর মা ও সৎবাবাকে আটক করেছে পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার রাত ১০টার দিকে ওই ছাত্রীকে উদ্ধার করে ঝালকাঠি সদর থানা হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ।

আটকরা হলেন- ওই ছাত্রীর মা সাহেরা আক্তার কাজল ও সৎবাবা মো. আলম। রাতেই শহরের কালীবাড়ি সড়ক এলাকার একটি বাসায় অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে পুলিশ।

ঝালকাঠি সদর থানা পুলিশের ওসি (তদন্ত) মো. আবু তাহের মিয়া জানান, শহরের কাঠপট্টি এলাকার মায়ের বাড়িতে গত কয়েক মাস আগে মা ও সৎবাবার সহযোগিতায় মেয়েটির সঙ্গে কয়েকজন পুরুষ শারীরিক সম্পর্কে মিলিত হয়। তার মা ও সৎবাবা তাকে এ অনৈতিক কাজে বাধ্য করে। আর এতে মেয়েটি অন্তঃসত্ত্বা হয়ে পড়ে। বুধবার ডাক্তারি পরীক্ষা ও চিকিৎসার জন্য তাকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হবে। ঘটনার তদন্ত করে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে বলেও তিনি জানান।