ঢাকা ০৮:৪১ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ




মোহাম্মদপুরের জাপান গার্ডেন সিটি লকডাউন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:৫৮:০০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ এপ্রিল ২০২০ ৭৬ বার পড়া হয়েছে

অনলাইন রিপোর্ট | 

রাজধানী মোহাম্মদপুরের জাপান গার্ডেন সিটির একই পরিবারের তিনজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় জাপান গার্ডেনের পুরো এলাকা লকডাউন করা হয়েছে। রোববার (১৯ এপ্রিল) সেখানকার একটি ১৬তলা ভবনে করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এরপর আইইডিসিআর এর নির্দেশে আদাবর থানার পুলিশ এসে পুরো এলাকা লকডাউনের ঘোষণা দেয়।

আদাবর থানা বিষয়টি নিশ্চিত করলেও লকডাউনের বিষয়টি আইইডিসিআর ও সিটি করপোরেশন কাউন্সিলের নিয়ন্ত্রণে থাকায় এ বিষয়ে কেউ কথা বলতে রাজি হননি।

আদাবর থানার এক পুলিশ কর্মকর্তা জানান, জাপান গার্ডেন সিটির নিজস্ব নিরাপত্তা কর্মকর্তারাই লকডাউন নিয়ন্ত্রণ করছেন।
জানা গেছে, আক্রান্তদের মধ্যে একজন ওই ফ্ল্যাটের ৪৫ বছর বয়সী গৃহকর্ত্রী, তার গৃহকর্মী ও ড্রাইভার। দুপুরে তারা তিনজন শনাক্ত হওয়ার পর আইইডিসিআর থেকে অ্যাম্বুলেন্স এসে তাদের নিয়ে যায়। এরপর থেকে জাপান গার্ডেন সিটির মোট ২৬টি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। এখানে আনুমানিক ৮-৯ হাজার মানুষ বসবাস করেন।

মোহাম্মদপুরে ইতোমধ্যে ৩৪ জন করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ায় কয়েকটি এলাকায় লকডাউন করা হয়। জনসাধারণের চলাচল সীমিত ছিল, জাপান গার্ডেন সিটি লকডাউনের পর থেকে এই এলাকার জনগণের আতঙ্ক আরও বেড়ে গেছে। এর আগে মোহাম্মদপুর এলাকার রাজিয়া সুলতানা রোড ও নূরজাহান রোডও লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




মোহাম্মদপুরের জাপান গার্ডেন সিটি লকডাউন

আপডেট সময় : ০৯:৫৮:০০ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২০ এপ্রিল ২০২০

অনলাইন রিপোর্ট | 

রাজধানী মোহাম্মদপুরের জাপান গার্ডেন সিটির একই পরিবারের তিনজন করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হওয়ায় জাপান গার্ডেনের পুরো এলাকা লকডাউন করা হয়েছে। রোববার (১৯ এপ্রিল) সেখানকার একটি ১৬তলা ভবনে করোনা রোগী শনাক্ত হয়। এরপর আইইডিসিআর এর নির্দেশে আদাবর থানার পুলিশ এসে পুরো এলাকা লকডাউনের ঘোষণা দেয়।

আদাবর থানা বিষয়টি নিশ্চিত করলেও লকডাউনের বিষয়টি আইইডিসিআর ও সিটি করপোরেশন কাউন্সিলের নিয়ন্ত্রণে থাকায় এ বিষয়ে কেউ কথা বলতে রাজি হননি।

আদাবর থানার এক পুলিশ কর্মকর্তা জানান, জাপান গার্ডেন সিটির নিজস্ব নিরাপত্তা কর্মকর্তারাই লকডাউন নিয়ন্ত্রণ করছেন।
জানা গেছে, আক্রান্তদের মধ্যে একজন ওই ফ্ল্যাটের ৪৫ বছর বয়সী গৃহকর্ত্রী, তার গৃহকর্মী ও ড্রাইভার। দুপুরে তারা তিনজন শনাক্ত হওয়ার পর আইইডিসিআর থেকে অ্যাম্বুলেন্স এসে তাদের নিয়ে যায়। এরপর থেকে জাপান গার্ডেন সিটির মোট ২৬টি বাড়ি লকডাউন করা হয়েছে। এখানে আনুমানিক ৮-৯ হাজার মানুষ বসবাস করেন।

মোহাম্মদপুরে ইতোমধ্যে ৩৪ জন করোনা রোগী শনাক্ত হওয়ায় কয়েকটি এলাকায় লকডাউন করা হয়। জনসাধারণের চলাচল সীমিত ছিল, জাপান গার্ডেন সিটি লকডাউনের পর থেকে এই এলাকার জনগণের আতঙ্ক আরও বেড়ে গেছে। এর আগে মোহাম্মদপুর এলাকার রাজিয়া সুলতানা রোড ও নূরজাহান রোডও লকডাউন ঘোষণা করা হয়েছে।