ঢাকা ০৩:৪৭ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :




ফরিদপুরে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ, গ্রেপ্তার ৩

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:১৯:৫০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১১ মে ২০১৯ ১০৯ বার পড়া হয়েছে

ফরিদপুর প্রতিনিধি;

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

জেলার বোয়ালমারী থানার ওসি একে শামীম হাসান জানান, শুক্রবার মামলার পর আদালতের নির্দেশে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন উপজেলার চতুল ইউনিয়নের বনচাকী গ্রামের মো. ইউসুফ শেখ (২০), আকমল বিশ্বাস (৩৫) ও ময়েনদিয়া বাজার এলাকার মেহেদী হাসান (২৪)।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, ফরিদপুরের সালথা উপজেলার বল্লভদী ইউনিয়নের ১৯ বছরের ওই তরুণীর সঙ্গে ইউসুফ প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। বুধবার তাকে বিয়ের কথা বলে ডেকে নেন বোয়ালমারীর ময়েনদিয়া বাজার এলাকায় মেহেদীর বাড়িতে। সেখানে ইউসুফ তাকে ধর্ষণ করে একটি ঘরে আটকে রাখেন। পরদিন আকমল তাকে ধর্ষণ করেন। খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে।

একই সময় পুলিশ ইউসুফ ও মেহেদীকে গ্রেপ্তার করে। আর শুক্রবার বিকালে আকমলকে ফরিদপুর শহরের রাজবাড়ী রাস্তার মোড় এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানান ওসি শামীম।

তিনি বলেন, তরুণীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আদালতের নির্দেশে তিন আসামিকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




ফরিদপুরে বিয়ের প্রলোভন দিয়ে ধর্ষণের অভিযোগ, গ্রেপ্তার ৩

আপডেট সময় : ১১:১৯:৫০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১১ মে ২০১৯

ফরিদপুর প্রতিনিধি;

ফরিদপুরের বোয়ালমারী উপজেলায় বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে তরুণীকে ধর্ষণের অভিযোগে তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

জেলার বোয়ালমারী থানার ওসি একে শামীম হাসান জানান, শুক্রবার মামলার পর আদালতের নির্দেশে তাদের কারাগারে পাঠানো হয়।

গ্রেপ্তারকৃতরা হলেন উপজেলার চতুল ইউনিয়নের বনচাকী গ্রামের মো. ইউসুফ শেখ (২০), আকমল বিশ্বাস (৩৫) ও ময়েনদিয়া বাজার এলাকার মেহেদী হাসান (২৪)।

মামলার এজাহারে বলা হয়েছে, ফরিদপুরের সালথা উপজেলার বল্লভদী ইউনিয়নের ১৯ বছরের ওই তরুণীর সঙ্গে ইউসুফ প্রেমের সম্পর্ক গড়ে তোলেন। বুধবার তাকে বিয়ের কথা বলে ডেকে নেন বোয়ালমারীর ময়েনদিয়া বাজার এলাকায় মেহেদীর বাড়িতে। সেখানে ইউসুফ তাকে ধর্ষণ করে একটি ঘরে আটকে রাখেন। পরদিন আকমল তাকে ধর্ষণ করেন। খবর পেয়ে বৃহস্পতিবার রাতে পুলিশ গিয়ে তাকে উদ্ধার করে।

একই সময় পুলিশ ইউসুফ ও মেহেদীকে গ্রেপ্তার করে। আর শুক্রবার বিকালে আকমলকে ফরিদপুর শহরের রাজবাড়ী রাস্তার মোড় এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করা হয় বলে জানান ওসি শামীম।

তিনি বলেন, তরুণীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য ফরিদপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। আদালতের নির্দেশে তিন আসামিকে কারাগারে পাঠানো হয়েছে।