ঢাকা ১০:৫২ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo এমপি আনার খুন: রহস্যময় রূপে শীর্ষ দুই ব্যবসায়ী Logo রূপালী ব্যাংকের ডিজিএম কর্তৃক সহকর্মী নারীকে যৌন হয়রানি: ধামাচাপা দিতে মরিয়া তদন্ত কমিটি Logo প্রতিবন্ধী ভাতার টাকা হাতিয়ে বহাল তবিয়তে মাদারীপুরের দুই সহকারী সমাজসেবা অফিসারl Logo যমুনা লাইফের গ্রাহক প্রতারণায় ‘জড়িতরা’ কে কোথায় Logo ঢাকাস্থ ভোলা সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি আহসান কামরুল, সম্পাদক জিয়াউর রহমান Logo টাটা মটরস বাংলাদেশে উদ্বোধন করলো টাটা যোদ্ধা Logo আশা শিক্ষা কর্মসূচী কর্তৃক অভিভাবক মতবিনিময় সভা Logo গণপূর্ত প্রধান প্রকৌশলীর গাড়ি চাপায় পিষ্ট সহকারী প্রকৌশলী -উত্তাল গণপূর্ত Logo শাবিপ্রবির বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ Logo সওজের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী নাহিনুরের সীমাহীন সম্পদ ও অনিয়ম -পর্ব-০১




পুঁজিবাজারে আস্থা ফেরানোর জাদুকর শিবলী রুবাইয়াত

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:১০:৪৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৬ অগাস্ট ২০২৩ ৩০৩ বার পড়া হয়েছে

এইচ আর শফিক: পুঁজিবাজারে ধারাবাহিক কেলেঙ্কারিতে যখন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিল দেশের অর্থনৈতিক খাত। তখন দেশের বিনিয়োগকারীরা মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিল পুঁজিবাজার খ্যাত বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) থেকে।

বিনিয়োগের সর্বোচ্চ হারিয়ে দিশেহারা বাজারে গত দুই বছরে ফের সুদিন ফিরতে শুরু করেছে। পুঁজিবাজারের এই ঘুরে দাঁড়ানোর পেছনে রয়েছে সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ এন্ড কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামের সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনা, কার্যকারী উদ্যোগ, মেধা-মনন ও অক্লান্ত পরিশ্রম।

দেশের ব্যাংকিং ও বীমাখাতসহ ফাইন্যান্স সেক্টরের অতুলনীয় নন্দিত-ব্যক্তিত্ব ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাংকিং এন্ড ইন্সুরেন্স বিভাগের প্রফেসর এবং বিজনেস অনুষদের ডিন প্রফেসর শিবলী রুবাইয়াত উল ইসলাম। পুঁজিবাজার নিয়ে কঠোর পরিশ্রম, নিরলস প্রচেষ্টা, সততা আর কর্মনিষ্ঠার সঙ্গে নিজেকে হিমালয়সম অত্যুচ্চ অবস্থানে অধিষ্ঠিত করেছেন।

চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামের নেতৃত্বে বর্তমান সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ এন্ড কমিশনের গৃহীত বেশকিছু কার্যকারী পদক্ষেপ চলতি বছরে এসে শেয়ারবাজারকে চাঙ্গা করে তুলেছে বলে মনে করেন এ খাতের অধিকাংশ বিশ্লেষকরা।

বিগত দিনের একের পর এক কেলেঙ্কারি ও বৈশ্বিক করনা মহামারীতে বিপর্যস্ত দেশের গুরুত্বপূর্ন এই অর্থনৈতিক খাত অসংখ্য ঘাত প্রতিঘাত পেরিয়ে দিনদিন আলোর মুখ দেখতে শুরু করেছে। দেশের অর্থনৈতিক খাতের গুরুত্বপূর্ণ এই বাজারের ঘুরে দাঁড়ানোর গল্পের নায়ক বলা যেতে পারে বাংলাদেশ সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ এন্ড কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামকে।

যার নেতৃত্বে দেশের পুঁজিবাজার কে ঢেলে সাজানোর প্রক্রিয়া শুরু হয় ২০২০ সালে। গুরুত্বপূর্ণ এই অর্থনৈতিক খাতের দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে তিনি পুঁজিবাজারের উন্নয়নে নানামুখী সংস্কার কার্যক্রম জোরদার করেন। এরমধ্যে বিদ্যমান বিধিমালা সংশোধন অন্যতম। তার উদ্যোগ ৩৫ টি বিদ্যমান বিধিমালা কে যুগ উপযোগী সংস্কারের মাধ্যমে শেয়ার বাজারের উন্নয়নে ভূমিকা পালন করেছে বলে মনে করা হয়। এছাড়াও নতুন আটটি গুরুত্বপূর্ণ নীতিমালা গ্রহণ করেন যা শেয়ার বাজারকে চাঙ্গা করেছে বলে মন্তব্য করেছেন পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্টরা।

পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান হিসেবে যোগদানের পর থেকেই শেয়ার বাজারের উন্নয়ন ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের আস্থা অর্জনের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় নতুন নীতিমালা প্রয়োগ করে অস্থিতিশীল পরিবেশ হতে পুঁজিবাজারকে উত্তরণের নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি এবং তার কমিশন।

চেয়ারম্যান হিসেবে যোগদানের পর থেকে পুঁজিবাজার সম্পর্কে মানুষের মাঝে বিগত দিনের যে নেতিবাচক ধারণা তৈরি হয়েছে তা নিরসনের লক্ষ্যে নতুন নীতিমালা গ্রহণ ও প্রয়োগ সফল হয়েছে বলেই শেয়ার বাজার সুদিন দেখতে শুরু করেছে।

বিদ্যমান নীতিমালার সংশোধন এবং সংস্কার মূলক কার্যক্রমের পদক্ষেপ বাস্তবায়নের দৃশ্যমান বর্তমান। পুঁজিবাজারে সুস্থ্য ব্যবস্থাপনা।

যেসব নিয়মমালা প্রণয়ন করেছে নতুন কমিশন:

**সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ রুলস, ১৯৮৭ রহিত করে নতুনভাবে সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ রুলস, ২০২০ প্রণয়ন করা হয়েছে।

**বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড্রয়েড এক্সচেঞ্জ কমিশন (ট্রেডিং রাইট এনটাইটেলমেমেটিফিকেট) সার্মাল্যাল, ২০২০ জারি করা।

**বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (ক্যাপিটাল মার্কেট স্টেবিলাইজেশন ফান্ড) বিধিমালা, ২০২১ জারি করা হয়েছে।

** সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (প্রাইভেট প্লেসমেন্ট অফ ডেট সিকিউরিটিজ) বিধিমালা, ২০১২ রহিত করে নতুনভাবে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (ডেট সিকিউরিটিজ) বিধিমালা, ২০২১ জারি করা হয়েছে।

**ক্রেডিট রেটিং কোম্পানির সুনিশ্চিতকরণ লক্ষ্যে ক্রেডিট রেটিং কোম্পানি বিধিমালা, 1996 রহিত করে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (ক্রেডিট রেটিং কোম্পানি), 2022 দ্বারা প্রতিস্থাপিত হয়েছে।

**বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (যোগ্য ক্ষুদ্র পুঁজি কোম্পানির দ্বারা বিনিয়োগকারী অফার) বিধিমালা, 2018 রহিত করে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (ক্ষুদ্র মূলধন কোম্পানি দ্বারা যোগ্য বিনিয়োগকারী অফার) বিধিমালা, 2022 প্রণয়ন করা হয়েছে।

**শরীয়া এডভ্যাশিয়ারী কাউন্সিল গঠনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড্রয়েড এক্সচেঞ্জ এডভ্যাজিয়ার কাউন্সিল ফর সিরিটিজ মডেল রুলস, ২০২২ প্রয়ন করা হয়েছে। সংস্থা (শরিয়া

** বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (সুবিধাভোগী ব্যবসা প্রকাশক) নিয়মমালা, ২০২২ প্রণয়ন করা হয়েছে।

এছাড়াও বিদ্যমান নীতিমালার মধ্যে ৩৫টি নীতিমালাকে সংশোধন করেছেন বাংলাদেশ সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ এন্ড কমিশনের বর্তমান কমিশন। পুঁজিবাজার অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে বর্তমান কমিশনের গবেষণামূলক নতুন নীতিমালা প্রয়োগের পাশাপাশি বিদ্যমান নীতিমালা কে সংস্কার করার উদ্যোগ যুগোপযোগী এবং পরীক্ষিত বলে মনে করেন অর্থনৈতিক খাতের অধিকাংশ বিশ্লেষকগণ।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




পুঁজিবাজারে আস্থা ফেরানোর জাদুকর শিবলী রুবাইয়াত

আপডেট সময় : ০৬:১০:৪৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৬ অগাস্ট ২০২৩

এইচ আর শফিক: পুঁজিবাজারে ধারাবাহিক কেলেঙ্কারিতে যখন বিপর্যস্ত হয়ে পড়েছিল দেশের অর্থনৈতিক খাত। তখন দেশের বিনিয়োগকারীরা মুখ ফিরিয়ে নিয়েছিল পুঁজিবাজার খ্যাত বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (বিএসইসি) থেকে।

বিনিয়োগের সর্বোচ্চ হারিয়ে দিশেহারা বাজারে গত দুই বছরে ফের সুদিন ফিরতে শুরু করেছে। পুঁজিবাজারের এই ঘুরে দাঁড়ানোর পেছনে রয়েছে সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ এন্ড কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামের সুদূরপ্রসারী পরিকল্পনা, কার্যকারী উদ্যোগ, মেধা-মনন ও অক্লান্ত পরিশ্রম।

দেশের ব্যাংকিং ও বীমাখাতসহ ফাইন্যান্স সেক্টরের অতুলনীয় নন্দিত-ব্যক্তিত্ব ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের ব্যাংকিং এন্ড ইন্সুরেন্স বিভাগের প্রফেসর এবং বিজনেস অনুষদের ডিন প্রফেসর শিবলী রুবাইয়াত উল ইসলাম। পুঁজিবাজার নিয়ে কঠোর পরিশ্রম, নিরলস প্রচেষ্টা, সততা আর কর্মনিষ্ঠার সঙ্গে নিজেকে হিমালয়সম অত্যুচ্চ অবস্থানে অধিষ্ঠিত করেছেন।

চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামের নেতৃত্বে বর্তমান সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ এন্ড কমিশনের গৃহীত বেশকিছু কার্যকারী পদক্ষেপ চলতি বছরে এসে শেয়ারবাজারকে চাঙ্গা করে তুলেছে বলে মনে করেন এ খাতের অধিকাংশ বিশ্লেষকরা।

বিগত দিনের একের পর এক কেলেঙ্কারি ও বৈশ্বিক করনা মহামারীতে বিপর্যস্ত দেশের গুরুত্বপূর্ন এই অর্থনৈতিক খাত অসংখ্য ঘাত প্রতিঘাত পেরিয়ে দিনদিন আলোর মুখ দেখতে শুরু করেছে। দেশের অর্থনৈতিক খাতের গুরুত্বপূর্ণ এই বাজারের ঘুরে দাঁড়ানোর গল্পের নায়ক বলা যেতে পারে বাংলাদেশ সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ এন্ড কমিশনের চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলামকে।

যার নেতৃত্বে দেশের পুঁজিবাজার কে ঢেলে সাজানোর প্রক্রিয়া শুরু হয় ২০২০ সালে। গুরুত্বপূর্ণ এই অর্থনৈতিক খাতের দায়িত্ব নেয়ার পর থেকে তিনি পুঁজিবাজারের উন্নয়নে নানামুখী সংস্কার কার্যক্রম জোরদার করেন। এরমধ্যে বিদ্যমান বিধিমালা সংশোধন অন্যতম। তার উদ্যোগ ৩৫ টি বিদ্যমান বিধিমালা কে যুগ উপযোগী সংস্কারের মাধ্যমে শেয়ার বাজারের উন্নয়নে ভূমিকা পালন করেছে বলে মনে করা হয়। এছাড়াও নতুন আটটি গুরুত্বপূর্ণ নীতিমালা গ্রহণ করেন যা শেয়ার বাজারকে চাঙ্গা করেছে বলে মন্তব্য করেছেন পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্টরা।

পুঁজিবাজার নিয়ন্ত্রক সংস্থা বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান হিসেবে যোগদানের পর থেকেই শেয়ার বাজারের উন্নয়ন ও সাধারণ বিনিয়োগকারীদের আস্থা অর্জনের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় নতুন নীতিমালা প্রয়োগ করে অস্থিতিশীল পরিবেশ হতে পুঁজিবাজারকে উত্তরণের নিরলস ভাবে কাজ করে যাচ্ছেন তিনি এবং তার কমিশন।

চেয়ারম্যান হিসেবে যোগদানের পর থেকে পুঁজিবাজার সম্পর্কে মানুষের মাঝে বিগত দিনের যে নেতিবাচক ধারণা তৈরি হয়েছে তা নিরসনের লক্ষ্যে নতুন নীতিমালা গ্রহণ ও প্রয়োগ সফল হয়েছে বলেই শেয়ার বাজার সুদিন দেখতে শুরু করেছে।

বিদ্যমান নীতিমালার সংশোধন এবং সংস্কার মূলক কার্যক্রমের পদক্ষেপ বাস্তবায়নের দৃশ্যমান বর্তমান। পুঁজিবাজারে সুস্থ্য ব্যবস্থাপনা।

যেসব নিয়মমালা প্রণয়ন করেছে নতুন কমিশন:

**সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ রুলস, ১৯৮৭ রহিত করে নতুনভাবে সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ রুলস, ২০২০ প্রণয়ন করা হয়েছে।

**বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড্রয়েড এক্সচেঞ্জ কমিশন (ট্রেডিং রাইট এনটাইটেলমেমেটিফিকেট) সার্মাল্যাল, ২০২০ জারি করা।

**বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (ক্যাপিটাল মার্কেট স্টেবিলাইজেশন ফান্ড) বিধিমালা, ২০২১ জারি করা হয়েছে।

** সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (প্রাইভেট প্লেসমেন্ট অফ ডেট সিকিউরিটিজ) বিধিমালা, ২০১২ রহিত করে নতুনভাবে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (ডেট সিকিউরিটিজ) বিধিমালা, ২০২১ জারি করা হয়েছে।

**ক্রেডিট রেটিং কোম্পানির সুনিশ্চিতকরণ লক্ষ্যে ক্রেডিট রেটিং কোম্পানি বিধিমালা, 1996 রহিত করে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (ক্রেডিট রেটিং কোম্পানি), 2022 দ্বারা প্রতিস্থাপিত হয়েছে।

**বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (যোগ্য ক্ষুদ্র পুঁজি কোম্পানির দ্বারা বিনিয়োগকারী অফার) বিধিমালা, 2018 রহিত করে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (ক্ষুদ্র মূলধন কোম্পানি দ্বারা যোগ্য বিনিয়োগকারী অফার) বিধিমালা, 2022 প্রণয়ন করা হয়েছে।

**শরীয়া এডভ্যাশিয়ারী কাউন্সিল গঠনের লক্ষ্যে বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড্রয়েড এক্সচেঞ্জ এডভ্যাজিয়ার কাউন্সিল ফর সিরিটিজ মডেল রুলস, ২০২২ প্রয়ন করা হয়েছে। সংস্থা (শরিয়া

** বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশন (সুবিধাভোগী ব্যবসা প্রকাশক) নিয়মমালা, ২০২২ প্রণয়ন করা হয়েছে।

এছাড়াও বিদ্যমান নীতিমালার মধ্যে ৩৫টি নীতিমালাকে সংশোধন করেছেন বাংলাদেশ সিকিউরিটি এক্সচেঞ্জ এন্ড কমিশনের বর্তমান কমিশন। পুঁজিবাজার অর্থনীতিকে চাঙ্গা করতে বর্তমান কমিশনের গবেষণামূলক নতুন নীতিমালা প্রয়োগের পাশাপাশি বিদ্যমান নীতিমালা কে সংস্কার করার উদ্যোগ যুগোপযোগী এবং পরীক্ষিত বলে মনে করেন অর্থনৈতিক খাতের অধিকাংশ বিশ্লেষকগণ।