ঢাকা ০৭:৫১ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ




দ্রব্যমূল্যের অস্থিরতা, বিপাকে সাধারণ মানুষ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:২৭:১৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ মে ২০২৩ ১৭১ বার পড়া হয়েছে

দ্রব্যমূল্যের অস্থিরতা, বিপাকে সাধারণ মানুষ

আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে মিল রেখে দেশে কমছে না নিত্যপণ্যের দাম। ফলে সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছে সীমিত আয়ের মানুষ। তাই, আগামী বাজেটে নিত্যপণ্যের দামের বিষয়ে সরকারের বিশেষ নজর চায় সাধারণ মানুষ। বিশেষজ্ঞদের মতে, দ্রব্যমূল্যের অস্থিরতা ঠেকাতে এ খাতে ভর্তুকি বাড়াতে হবে।

সীমিত আয়ের মানুষরা বলছেন, গত বছরের চেয়ে এ বছর তেল, পেয়াজ, চিনি, চাল, ডাল, সবজিসহ সবকিছুর দাম বেড়েছে। সংসারে ব্যয় দ্বিগুণ হলেও আয় বাড়েনি। এমন অবস্থায় সংসার চালানোই দায় হয়ে পড়েছে। বাজারে প্রতিটি পণ্যের দাম লাগামহীনভাবে বাড়ছে।

বিভিন্ন মহলের অভিযোগ, বাজার ব্যবস্থা চলে গেছে সিন্ডিকেটের দখলে। সরকার নিত্যপণ্যের বাজারে অস্থিরতা কমাতে না পারলেও নিম্ন আয়ের মানুষের পাশে দাঁড়াতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। পণ্য আমদানি করে টিসিবির মাধ্যমে নিম্নবিত্তের কাছে কম দামে সরবরাহ করছে। চালু রয়েছে ওএমএস সেবাও।

এদিকে, বাজারের নিত্যপণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে এবারের বাজেটে ভর্তুকি বাড়ানোর পাশাপাশি যোগ্য ব্যক্তি নিয়োগের মাধ্যমে প্রতিনিয়ত বাজার মনিটরিংয়ের পরামর্শ দিয়েছেন সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগের (সিপিডি) জ্যেষ্ঠ গবেষক তৌফিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, বিশ্ববাজারে দাম কমলেও দেশের বাজারে এর প্রভাব পড়ছে না। তাই, সরকারের উচিত নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য, বিশেষ করে আমদানি নির্ভর পণ্যের ওপর থেকে শুল্ককর সরিয়ে ফেলতে হবে।

এ ছাড়া সরকারের অর্থের জোগানের জন্য কর ফাঁকি দেওয়া প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে কঠোর হওয়ার পরামর্শ দেন তৌফিকুল ইসলাম।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




দ্রব্যমূল্যের অস্থিরতা, বিপাকে সাধারণ মানুষ

আপডেট সময় : ০৩:২৭:১৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৬ মে ২০২৩

দ্রব্যমূল্যের অস্থিরতা, বিপাকে সাধারণ মানুষ

আন্তর্জাতিক বাজারের সঙ্গে মিল রেখে দেশে কমছে না নিত্যপণ্যের দাম। ফলে সংসার চালাতে হিমশিম খাচ্ছে সীমিত আয়ের মানুষ। তাই, আগামী বাজেটে নিত্যপণ্যের দামের বিষয়ে সরকারের বিশেষ নজর চায় সাধারণ মানুষ। বিশেষজ্ঞদের মতে, দ্রব্যমূল্যের অস্থিরতা ঠেকাতে এ খাতে ভর্তুকি বাড়াতে হবে।

সীমিত আয়ের মানুষরা বলছেন, গত বছরের চেয়ে এ বছর তেল, পেয়াজ, চিনি, চাল, ডাল, সবজিসহ সবকিছুর দাম বেড়েছে। সংসারে ব্যয় দ্বিগুণ হলেও আয় বাড়েনি। এমন অবস্থায় সংসার চালানোই দায় হয়ে পড়েছে। বাজারে প্রতিটি পণ্যের দাম লাগামহীনভাবে বাড়ছে।

বিভিন্ন মহলের অভিযোগ, বাজার ব্যবস্থা চলে গেছে সিন্ডিকেটের দখলে। সরকার নিত্যপণ্যের বাজারে অস্থিরতা কমাতে না পারলেও নিম্ন আয়ের মানুষের পাশে দাঁড়াতে বিভিন্ন পদক্ষেপ নিয়েছে। পণ্য আমদানি করে টিসিবির মাধ্যমে নিম্নবিত্তের কাছে কম দামে সরবরাহ করছে। চালু রয়েছে ওএমএস সেবাও।

এদিকে, বাজারের নিত্যপণ্যের দাম নিয়ন্ত্রণে এবারের বাজেটে ভর্তুকি বাড়ানোর পাশাপাশি যোগ্য ব্যক্তি নিয়োগের মাধ্যমে প্রতিনিয়ত বাজার মনিটরিংয়ের পরামর্শ দিয়েছেন সেন্টার ফর পলিসি ডায়লগের (সিপিডি) জ্যেষ্ঠ গবেষক তৌফিকুল ইসলাম।

তিনি বলেন, বিশ্ববাজারে দাম কমলেও দেশের বাজারে এর প্রভাব পড়ছে না। তাই, সরকারের উচিত নিত্যপ্রয়োজনীয় দ্রব্য, বিশেষ করে আমদানি নির্ভর পণ্যের ওপর থেকে শুল্ককর সরিয়ে ফেলতে হবে।

এ ছাড়া সরকারের অর্থের জোগানের জন্য কর ফাঁকি দেওয়া প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে কঠোর হওয়ার পরামর্শ দেন তৌফিকুল ইসলাম।