ঢাকা ০৮:৩৭ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০২৪, ১ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo নিরাপত্তার স্বার্থে শাবি শিক্ষার্থীদের আইডিকার্ড সাথে রাখার আহবান বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের Logo জনস্বাস্থ্যের প্রধান সাধুর যত অসাধু কর্ম: দুর্নীতি ও অর্থ পাচারের অভিযোগ! Logo বিআইডব্লিউটিএ বন্দর শাখা যুগ্ম পরিচালক আলমগীরের দুর্নীতি ও ঘুষ বাণিজ্য  Logo রাজশাহীতে এটিএন বাংলার সাংবাদিক সুজাউদ্দিন ছোটনকে হয়রানিমূলক মামলায় বএিমইউজরে নিন্দা ও প্রতিবাদ Logo শিক্ষার্থীদের তথ্য প্রযুক্তিতে দক্ষ হয়ে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ায় অবদান রাখতে হবেঃ ড. তৌফিক রহমান চৌধুরী Logo ‘কানামাছি শিশুসাহিত্য পুরস্কার ২০২৪’ পেলেন লেখক Logo মধ্যরাতে শাবি ছাত্রলীগের ‘ তুমি কে, আমি কে- বাঙ্গালী, বাঙ্গালী’ শ্লোগানে উত্তাল ক্যাম্পাস Logo আম নিয়ে কষ্টগাঁথা Logo ঘুমান্ত বিবেক মাতাল আবেগ’ – আকাশমণি Logo পুলিশের হামলার পরও ৬ ঘন্টা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধে কুবি শিক্ষার্থীর




বাংলাদেশ নিয়ে স্ট্যাটাস দিলেন জাকারবার্গ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:০৮:৫৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯ ১৫২ বার পড়া হয়েছে

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক

ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মার্ক জাকারবার্গ বাংলাদেশে মেনিনজাইটিস নামের স্নায়ুরোগের প্রার্দুভাব নিয়ে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। তার ওই স্ট্যাটাসে জাকারবার্গের দাতব্য প্রতিষ্ঠান ও বায়োহাবের তৈরি একটু টুল ব্যবহারের প্রশংসা করা হয়েছে।

বুধবার (২৭ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত ১২টা ২৯ মিনিটে পোস্টটি দেন জাকারবার্গ। এতে তিনি লিখেছেন, সম্প্রতি বাংলাদেশের গবেষকেরা মেনিনজাইটিস প্রার্দুভাবের কারণ খুঁজে বের করতে ‘আইডিসেক’ নামের টুল ব্যবহার করছে। টুলটি তৈরি করেছে ‘চ্যান জাকারবার্গ ইনিশিয়েটিভ’ ও বায়োহাব নামের একটি দল।’

এরপর তিনি লিখেছেন, ‘আইডিসেক’ বা ইনফেকটিয়াশ ডিজিজ সিকোয়েন্সার হচ্ছে মূলত ওপেন সোর্স ও ক্লাউডভিত্তিক টুল যা যে কেউ ইন্টারনেট সংযোগ ব্যবহার করে তা ব্যবহার করতে পারে। এটা বড় ধরনের একটি উদাহরণ যাতে বায়োহাবের প্রযুক্তি ও টুল ব্যবহার করে শিশুদের রোগ প্রতিরোধের উপযোগী নানা ব্যবস্থা নেয়া যায়।

ফেসবুক পোস্টে এ কাজের জন্য গেটস ফাউন্ডেশনকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন জাকারবার্গ। এ ছাড়া আইডিসেক টুলটি বিশ্বের সব স্বাস্থ্যকর্মীর হাতে তুলে দিতে গেটস ফাউন্ডেশন কাজ করছে বলে জানান তিনি।

পোস্টের নিচে জাকারবার্গ আইডিসেক নিয়ে একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন। ওই ভিডিওটি ৩ লাখ ৮৮ হাজার ভিউ হয়েছে। এটি তিন হাজারবার শেয়ার হয়েছে। মন্তব্য পড়েছে তিন হাজার। প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন ২৭ হাজার ফেসবুক ব্যবহারকারীরা।

২০১৬ সালে ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গের একটি দাতব্য প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম শুরু হয়। মেয়ে ম্যাক্সিমার জন্ম উপলক্ষে ‘চ্যান জাকারবার্গ ইনিশিয়েটিভ’ নামের দাতব্য প্রতিষ্ঠান গড়ার ঘোষণা দেন জাকারবার্গ। এ প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে জাকারবার্গ তার মোট সম্পদের ৯৯ শতাংশ (৪৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার) দাতব্য কাজে ব্যয় করার ঘোষণা দেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




বাংলাদেশ নিয়ে স্ট্যাটাস দিলেন জাকারবার্গ

আপডেট সময় : ১১:০৮:৫৫ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৭ সেপ্টেম্বর ২০১৯

তথ্যপ্রযুক্তি ডেস্ক

ফেসবুকের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা (সিইও) মার্ক জাকারবার্গ বাংলাদেশে মেনিনজাইটিস নামের স্নায়ুরোগের প্রার্দুভাব নিয়ে ফেসবুকে একটি স্ট্যাটাস দিয়েছেন। তার ওই স্ট্যাটাসে জাকারবার্গের দাতব্য প্রতিষ্ঠান ও বায়োহাবের তৈরি একটু টুল ব্যবহারের প্রশংসা করা হয়েছে।

বুধবার (২৭ সেপ্টেম্বর) দিবাগত রাত ১২টা ২৯ মিনিটে পোস্টটি দেন জাকারবার্গ। এতে তিনি লিখেছেন, সম্প্রতি বাংলাদেশের গবেষকেরা মেনিনজাইটিস প্রার্দুভাবের কারণ খুঁজে বের করতে ‘আইডিসেক’ নামের টুল ব্যবহার করছে। টুলটি তৈরি করেছে ‘চ্যান জাকারবার্গ ইনিশিয়েটিভ’ ও বায়োহাব নামের একটি দল।’

এরপর তিনি লিখেছেন, ‘আইডিসেক’ বা ইনফেকটিয়াশ ডিজিজ সিকোয়েন্সার হচ্ছে মূলত ওপেন সোর্স ও ক্লাউডভিত্তিক টুল যা যে কেউ ইন্টারনেট সংযোগ ব্যবহার করে তা ব্যবহার করতে পারে। এটা বড় ধরনের একটি উদাহরণ যাতে বায়োহাবের প্রযুক্তি ও টুল ব্যবহার করে শিশুদের রোগ প্রতিরোধের উপযোগী নানা ব্যবস্থা নেয়া যায়।

ফেসবুক পোস্টে এ কাজের জন্য গেটস ফাউন্ডেশনকে ধন্যবাদ জানিয়েছেন জাকারবার্গ। এ ছাড়া আইডিসেক টুলটি বিশ্বের সব স্বাস্থ্যকর্মীর হাতে তুলে দিতে গেটস ফাউন্ডেশন কাজ করছে বলে জানান তিনি।

পোস্টের নিচে জাকারবার্গ আইডিসেক নিয়ে একটি ভিডিও পোস্ট করেছেন। ওই ভিডিওটি ৩ লাখ ৮৮ হাজার ভিউ হয়েছে। এটি তিন হাজারবার শেয়ার হয়েছে। মন্তব্য পড়েছে তিন হাজার। প্রতিক্রিয়া দেখিয়েছেন ২৭ হাজার ফেসবুক ব্যবহারকারীরা।

২০১৬ সালে ফেসবুকের প্রতিষ্ঠাতা মার্ক জাকারবার্গের একটি দাতব্য প্রতিষ্ঠানের কার্যক্রম শুরু হয়। মেয়ে ম্যাক্সিমার জন্ম উপলক্ষে ‘চ্যান জাকারবার্গ ইনিশিয়েটিভ’ নামের দাতব্য প্রতিষ্ঠান গড়ার ঘোষণা দেন জাকারবার্গ। এ প্রতিষ্ঠানের মাধ্যমে জাকারবার্গ তার মোট সম্পদের ৯৯ শতাংশ (৪৫ বিলিয়ন মার্কিন ডলার) দাতব্য কাজে ব্যয় করার ঘোষণা দেন।