ঢাকা ০৮:৩২ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৮ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo গণপূর্ত প্রধান প্রকৌশলীর গাড়ি চাপায় পিষ্ট সহকারী প্রকৌশলী -উত্তাল গণপূর্ত Logo শাবিপ্রবির বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ Logo সওজের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী নাহিনুরের সীমাহীন সম্পদ ও অনিয়ম -পর্ব-০১ Logo তামাক সেবনের আলাদা কক্ষ বানালেন গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলী: রয়েছে দুর্নীতির পাহাড়সম অভিযোগ! Logo দেশের সর্বোচ্চ আদালতকে বৃদ্ধাঙ্গুলি: কালবে সর্বোচ্চ পদ দখলে রেখেছে আগস্টিন! Logo আইআইএফসি ও মার্কটেল বাংলাদেশ’র মধ্যে কৌশলগত সহযোগিতা ও সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর Logo ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তর পরিদর্শনে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী Logo সর্বজনীন পেনশন প্রত্যাহারে শাবি শিক্ষক সমিতি মৌন মিছিল ও কালোব্যাজ ধারণ Logo শাবিপ্রবিতে কুমিল্লা স্টুডেন্টস এসোসিয়েশনের নবীনবরণ অনুষ্ঠিত Logo শাবিপ্রবি কেন্দ্রে সুষ্ঠভাবে গুচ্ছভর্তির তিন ইউনিটের পরীক্ষা সম্পন্ন




রাষ্ট্রীয় খরচে হজে যাচ্ছেন ৪০০ জনের বিশাল বহর!

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:৩১:০৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জুলাই ২০১৯ ১২৮ বার পড়া হয়েছে

বিশেষ সংবাদদাতা; 
রাষ্ট্রীয় খরচে হজে যাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন ও সিইসি কে এম নূরুল হুদাও রয়েছেন
ধর্ম মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে চলতি বছর রাষ্ট্রীয় খরচে বিভিন্ন শ্রেণি ও পেশার হজ পালনকারীর তালিকা ক্রমেই দীর্ঘ হচ্ছে। গত ১ জুলাই থেকে গতকাল রোববার (২১ জুলাই) পর্যন্ত ২০ দিনে মোট সাত দফায় রাষ্ট্রীয় খরচে মনোনয়নপ্রাপ্ত ৩৮৯ জন হজযাত্রীর তালিকা প্রকাশ করেছে মন্ত্রণালয়। এ সংখ্যা চারশ’ ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে জানা গেছে।

আগামী ২৯ ও ৩০ জুলাই ফ্লাইট প্রাপ্তি সাপেক্ষে তারা পবিত্র হজ পালন করতে সৌদি যাবেন। ১০ সেপ্টেম্বর দেশে ফিরে আসবেন। তারা ধর্ম মন্ত্রণালয় ঘোষিত ৩ লাখ ৪৪ হাজার টাকার প্যাকেজ-২-এর সুবিধায় হজ পালন করবেন।

এ তালিকার বাইরে হজ ব্যবস্থাপনার সার্বিক তত্ত্বাবধান ও দিক-নির্দেশনার জন্য ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে ‘ভিআইপি’ হজ প্রতিনিধি দল-২০১৯ গঠিত হয়। এ তালিকায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার, একাধিক প্রতিমন্ত্রী, সচিব ও সংসদ সদস্য রয়েছেন। এ প্রতিনিধি দলের সদস্যরা আবার প্রত্যেকে ভ্রমণসঙ্গী হিসেবে স্ত্রী ও সন্তানসহ তিনজনকে সঙ্গে হজে নিয়ে যেতে পারবেন। তারা ও তাদের স্ত্রী সন্তানরা ৪ লাখ ১৮ হাজার ৫০০ টাকার প্যাকেজ-১-এর সুবিধায় হজ করবেন।

রাষ্ট্রীয় খরচে হজে মনোনয়ন প্রক্রিয়া নিয়ে প্রতি বছরের মতো এবারো নানা মহলে আলোচনা-সমালোচনা চলছে। অনেকেই প্রশ্ন তুলে বলেছেন, রাষ্ট্রীয় খরচে মনোনয়নের কোনো নীতিমালা রয়েছে কিনা? যাদেরকে মনোনয়ন দেয়া হয় তাদেরকে কোন ভিত্তিতে মনোনয়ন দেয়া হয়?

দেখা গেছে, এ তালিকায় থাকা অনেকে অর্থবিত্তের মালিক। তাদের নিজ খরচে হজে যাওয়ার সামর্থ্য রয়েছে কিন্তু তারা সরকারি খরচে হজে যান। শুধু হজেই যান না, তাদের অনেকে বিশেষ করে সরকারি উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা হজ পালনের পাশাপাশি লাখ লাখ টাকা খরচও পান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ধর্ম মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানান, সাধারণত সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী, সচিবসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি সংসদ সদস্য ও রাজনীতিবিদসহ বিভিন্ন মহল থেকে সরকারি খরচে হজে পাঠানোর নাম প্রস্তাব করে ধর্ম মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। ধর্ম মন্ত্রণালয় সেখান থেকে যাচাই-বাছাই করে একটি খসড়া তালিকা প্রণয়ন করে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠায়। প্রধানমন্ত্রীর চূড়ান্ত অনুমোদনে রাষ্ট্রীয় খরচে হজে মনোনয়নপ্রাপ্তদের তালিকা প্রকাশ করে ধর্ম মন্ত্রণালয়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ধর্ম মন্ত্রণালয় ১ জুলাই সরকারি খরচে হজে যাওয়ার জন্য ১৭৪ জন মনোনয়নপ্রাপ্তের তালিকা প্রকাশ করে। ৯ জুলাই প্রথমবারের মতো সরকারি খরচে হজ পালনের জন্য ৫৭ সদস্যের দেশ সেরা আলেম-ওলামাদের নাম প্রকাশ করা হয়। তারা হজযাত্রীদের হজ পালনের ব্যাপারে পরামর্শ দেবেন।

১০ জুলাই আরও ১৩৪ সদস্যের একটি তালিকা প্রকাশ করা হয়। একইভাবে পরবর্তীতে ১১ জুলাই ৪ জন, ১৪ জুলাই ৪ জন ও সর্বশেষ গতকাল আরও ১৩ জনের নাম প্রকাশ করা হয়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




রাষ্ট্রীয় খরচে হজে যাচ্ছেন ৪০০ জনের বিশাল বহর!

আপডেট সময় : ০২:৩১:০৪ অপরাহ্ন, সোমবার, ২২ জুলাই ২০১৯

বিশেষ সংবাদদাতা; 
রাষ্ট্রীয় খরচে হজে যাওয়া ব্যক্তিদের মধ্যে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আবদুল্লাহ, বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন প্রতিমন্ত্রী মো. মাহবুব আলী, জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ফরহাদ হোসেন ও সিইসি কে এম নূরুল হুদাও রয়েছেন
ধর্ম মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে চলতি বছর রাষ্ট্রীয় খরচে বিভিন্ন শ্রেণি ও পেশার হজ পালনকারীর তালিকা ক্রমেই দীর্ঘ হচ্ছে। গত ১ জুলাই থেকে গতকাল রোববার (২১ জুলাই) পর্যন্ত ২০ দিনে মোট সাত দফায় রাষ্ট্রীয় খরচে মনোনয়নপ্রাপ্ত ৩৮৯ জন হজযাত্রীর তালিকা প্রকাশ করেছে মন্ত্রণালয়। এ সংখ্যা চারশ’ ছাড়িয়ে যেতে পারে বলে জানা গেছে।

আগামী ২৯ ও ৩০ জুলাই ফ্লাইট প্রাপ্তি সাপেক্ষে তারা পবিত্র হজ পালন করতে সৌদি যাবেন। ১০ সেপ্টেম্বর দেশে ফিরে আসবেন। তারা ধর্ম মন্ত্রণালয় ঘোষিত ৩ লাখ ৪৪ হাজার টাকার প্যাকেজ-২-এর সুবিধায় হজ পালন করবেন।

এ তালিকার বাইরে হজ ব্যবস্থাপনার সার্বিক তত্ত্বাবধান ও দিক-নির্দেশনার জন্য ধর্ম প্রতিমন্ত্রীর নেতৃত্বে ‘ভিআইপি’ হজ প্রতিনিধি দল-২০১৯ গঠিত হয়। এ তালিকায় প্রধান নির্বাচন কমিশনার, একাধিক প্রতিমন্ত্রী, সচিব ও সংসদ সদস্য রয়েছেন। এ প্রতিনিধি দলের সদস্যরা আবার প্রত্যেকে ভ্রমণসঙ্গী হিসেবে স্ত্রী ও সন্তানসহ তিনজনকে সঙ্গে হজে নিয়ে যেতে পারবেন। তারা ও তাদের স্ত্রী সন্তানরা ৪ লাখ ১৮ হাজার ৫০০ টাকার প্যাকেজ-১-এর সুবিধায় হজ করবেন।

রাষ্ট্রীয় খরচে হজে মনোনয়ন প্রক্রিয়া নিয়ে প্রতি বছরের মতো এবারো নানা মহলে আলোচনা-সমালোচনা চলছে। অনেকেই প্রশ্ন তুলে বলেছেন, রাষ্ট্রীয় খরচে মনোনয়নের কোনো নীতিমালা রয়েছে কিনা? যাদেরকে মনোনয়ন দেয়া হয় তাদেরকে কোন ভিত্তিতে মনোনয়ন দেয়া হয়?

দেখা গেছে, এ তালিকায় থাকা অনেকে অর্থবিত্তের মালিক। তাদের নিজ খরচে হজে যাওয়ার সামর্থ্য রয়েছে কিন্তু তারা সরকারি খরচে হজে যান। শুধু হজেই যান না, তাদের অনেকে বিশেষ করে সরকারি উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা হজ পালনের পাশাপাশি লাখ লাখ টাকা খরচও পান।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক ধর্ম মন্ত্রণালয়ের একজন কর্মকর্তা জানান, সাধারণত সরকারের বিভিন্ন মন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী, সচিবসহ বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের পাশাপাশি সংসদ সদস্য ও রাজনীতিবিদসহ বিভিন্ন মহল থেকে সরকারি খরচে হজে পাঠানোর নাম প্রস্তাব করে ধর্ম মন্ত্রণালয়ে পাঠানো হয়। ধর্ম মন্ত্রণালয় সেখান থেকে যাচাই-বাছাই করে একটি খসড়া তালিকা প্রণয়ন করে প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ে পাঠায়। প্রধানমন্ত্রীর চূড়ান্ত অনুমোদনে রাষ্ট্রীয় খরচে হজে মনোনয়নপ্রাপ্তদের তালিকা প্রকাশ করে ধর্ম মন্ত্রণালয়।

খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ধর্ম মন্ত্রণালয় ১ জুলাই সরকারি খরচে হজে যাওয়ার জন্য ১৭৪ জন মনোনয়নপ্রাপ্তের তালিকা প্রকাশ করে। ৯ জুলাই প্রথমবারের মতো সরকারি খরচে হজ পালনের জন্য ৫৭ সদস্যের দেশ সেরা আলেম-ওলামাদের নাম প্রকাশ করা হয়। তারা হজযাত্রীদের হজ পালনের ব্যাপারে পরামর্শ দেবেন।

১০ জুলাই আরও ১৩৪ সদস্যের একটি তালিকা প্রকাশ করা হয়। একইভাবে পরবর্তীতে ১১ জুলাই ৪ জন, ১৪ জুলাই ৪ জন ও সর্বশেষ গতকাল আরও ১৩ জনের নাম প্রকাশ করা হয়।