ঢাকা ১০:৩৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১২ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo পুলিশের হামলার পরও ৬ ঘন্টা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধে কুবি শিক্ষার্থীর Logo শাবিপ্রবির প্রো-ভিসি অধ্যাপক ড. কবির হোসেনের সফলতার একবছর পূর্তি Logo এবার আলোচনায় আওয়ামী লীগের থানা ওয়ার্ড কমিটিতে পদ বাণিজ্যে! Logo প্রত্যয় স্কিম প্রত্যাহার দাবি Logo শাবি উপাচার্যের কৃতিত্ব; মাত্র ৪বছরেই আয়োজন করছেন ২ বার কনভোকেশন Logo কুবিতে সমাপ্ত হলো আন্তর্জাতিক নাট্য উৎসব Logo পর্দা নামলো থিয়েটার কুবি আয়োজিত দুই দিনের আন্তর্জাতিক নাট্য উৎসব Logo রেলওয়ের নিরাপত্তা বাহিনীর কমান্ড্যান্ট শহীদ উল্লাহর সম্পদের খনি  Logo সাবরেজিস্ট্রার অফিসের হিসেবে ৬৭৭ কোটি টাকার নয় ছয় Logo সাংবাদিকদের নিয়ে মতিউরের স্ত্রীর বিতর্কিত বক্তব্যের প্রতিবাদ: হাজার কোটি টাকা মানহানী মামলার হুমকি বিএমইউজে’ র




তাপদাহ আরও দু-এক দিন, মাসের শেষে হতে পারে ঘূর্ণিঝড়

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:১২:৪১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯ ৮১ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক |
রাজধানীসহ সারা দেশের উপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে মৃদু তাপদাহ। গরমে অতিষ্ঠ পুরো দেশবাসী। গত কয়েক দিনের মধ্যে বৃহস্পতিবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। আরও দু-এক দিন এই তাপদাহ অব্যাহত থাকতে পারে এবং মাসের শেষদিকে ঘূর্ণিঝড়েরও শঙ্কার কথা জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় রাজশাহীতে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এছাড়া ঢাকাতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৭ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ বজলুর রশিদ দেশ রূপান্তরকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, ‘শুক্রবারও তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে। তাপমাত্রা সামান্য বাড়তেও পারে। তাপপ্রবাহ মৃদু অবস্থা থেকে মাঝারি আকার ধারণ করতে পারে। তবে এটি দু একদিনের বেশি থাকবে না।’

আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, তাপমাত্রা ৩৬ থেকে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে হলে মৃদু তাপদাহ, ৩৮ থেকে ৪০ ডিগ্রির মধ্যে হলে মাঝারি, ৪০ থেকে ৪২ ডিগ্রির মধ্যে হলে তীব্র এবং তাপমাত্রা ৪২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি হলে তাকে অতি তীব্র তাপদাহ বলা হয়ে থাকে।

এর আগে আবহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান খান দেশ রূপান্তরকে বলেছেন, চলতি মাসের ২৯-৩০ তারিখের দিকে বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা আছে। তখন তাপমাত্রাও কিছুটা কমবে। আগামী মে মাসের ১০-১২ তারিখের দিকে কালবৈশাখী ঝড় হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ ছাড়া সাগরে নিম্নচাপেরও শঙ্কা রয়েছে।

মাসের শেষ দিকে ঘূর্ণিঝড়ের শঙ্কার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এ মাসের শেষ দিকে মধ্য বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ সৃষ্টি হতে পারে। নিম্নচাপটি শক্তিশালী হয়ে ৩০ এপ্রিলের পর ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে। এরপর সেটি আগামী ৩ মে বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চলে আঘাত হানতে পারে।’

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




তাপদাহ আরও দু-এক দিন, মাসের শেষে হতে পারে ঘূর্ণিঝড়

আপডেট সময় : ১১:১২:৪১ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক |
রাজধানীসহ সারা দেশের উপর দিয়ে বয়ে যাচ্ছে মৃদু তাপদাহ। গরমে অতিষ্ঠ পুরো দেশবাসী। গত কয়েক দিনের মধ্যে বৃহস্পতিবার সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয়েছে। আরও দু-এক দিন এই তাপদাহ অব্যাহত থাকতে পারে এবং মাসের শেষদিকে ঘূর্ণিঝড়েরও শঙ্কার কথা জানিয়েছে আবহাওয়া অধিদপ্তর।

বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টায় দেশের সর্বোচ্চ তাপমাত্রা রেকর্ড করা হয় রাজশাহীতে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াস। এছাড়া ঢাকাতে সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৭ দশমিক ১ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ বজলুর রশিদ দেশ রূপান্তরকে এ তথ্য নিশ্চিত করেন।

তিনি বলেন, ‘শুক্রবারও তাপপ্রবাহ অব্যাহত থাকতে পারে। তাপমাত্রা সামান্য বাড়তেও পারে। তাপপ্রবাহ মৃদু অবস্থা থেকে মাঝারি আকার ধারণ করতে পারে। তবে এটি দু একদিনের বেশি থাকবে না।’

আবহাওয়া অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী, তাপমাত্রা ৩৬ থেকে ৩৮ ডিগ্রি সেলসিয়াসের মধ্যে হলে মৃদু তাপদাহ, ৩৮ থেকে ৪০ ডিগ্রির মধ্যে হলে মাঝারি, ৪০ থেকে ৪২ ডিগ্রির মধ্যে হলে তীব্র এবং তাপমাত্রা ৪২ ডিগ্রি সেলসিয়াসের বেশি হলে তাকে অতি তীব্র তাপদাহ বলা হয়ে থাকে।

এর আগে আবহাওয়াবিদ আব্দুর রহমান খান দেশ রূপান্তরকে বলেছেন, চলতি মাসের ২৯-৩০ তারিখের দিকে বৃষ্টি অথবা বজ্রবৃষ্টি হওয়ার সম্ভাবনা আছে। তখন তাপমাত্রাও কিছুটা কমবে। আগামী মে মাসের ১০-১২ তারিখের দিকে কালবৈশাখী ঝড় হওয়ার সম্ভাবনা রয়েছে। এ ছাড়া সাগরে নিম্নচাপেরও শঙ্কা রয়েছে।

মাসের শেষ দিকে ঘূর্ণিঝড়ের শঙ্কার কথা জানিয়ে তিনি বলেন, ‘এ মাসের শেষ দিকে মধ্য বঙ্গোপসাগরে নিম্নচাপ সৃষ্টি হতে পারে। নিম্নচাপটি শক্তিশালী হয়ে ৩০ এপ্রিলের পর ঘূর্ণিঝড়ে রূপ নিতে পারে। এরপর সেটি আগামী ৩ মে বাংলাদেশের উপকূলীয় অঞ্চলে আঘাত হানতে পারে।’