ঢাকা ০৪:৩৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :




লাইফ সাপোর্টে সুবীর নন্দী

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:০১:১৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০১৯ ১১০ বার পড়া হয়েছে

বিনোদন প্রতিবেদক;
দেশবরেণ্য গায়ক সুবীর নন্দীকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়েছে। তার শারীরিক অবস্থা খারাপের দিকে গেলে তাকে রোববার (১৪ এপ্রিল) রাত সাড়ে ১১টার দিকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়।

সুবীর নন্দীর আত্মীয় অভিনেত্রী ঊর্মিলা শ্রাবন্তী করের মা সংগীতশিল্পী তৃপ্তি কর এ বিষয়ে বলেন, ‘সুবীর নন্দীর অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে জরুরিভাবে সিএমএইচে ভর্তি করা হয়। সেখানে বিগ্রেডিয়ার তৌফিকের নির্দেশনায় বেশ ক’জন স্পেশালিস্ট শিল্পীর চিকিৎসার দায়িত্ব নেন।

উনার অবস্থা কিছুটা স্থিতিশীল হবার পর বেশ কিছু ওষুধ দেয়া হয়। হাসপাতালে উনার মেয়ে, স্ত্রী ও আমি ছিলাম। রাতে ওষুধ খাওয়ানোর সময় উনি বিছানায় হেলান দিয়ে বসবেন বলে জানান। তাকে পিঠে বালিশ দিয়ে বসানোর চেষ্টা করি আমি। এসময় তার হার্ট অ্যাটাক হয়।

পরে চিকিৎসকরা দ্রুত তার জ্ঞান ফিরিয়ে এনে তাকে লাইফ সাপোর্টে নিয়ে যান। এখনো তিনি লাইফ সাপোর্টে রয়েছেন। চিকিৎসকরা বলেছেন ৭২ ঘণ্টার আগে কোনো রিপোর্ট পাওয়া যাবে না। নন্দিত এই শিল্পীর জন্য সবার দোয়া চাই।’

এদিকে গতকাল রোববার (১৪ এপ্রিল) রাত ১০টার দিকে সুবীর নন্দীকে সিএমএইচে ভর্তি করার তথ্য নিশ্চিত করেন শিল্পীর মেয়ে ফাল্গুনী নন্দী। তিনি সবার কাছে তার বাবার জন্য দোয়া চেয়েছেন। সেইসঙ্গে হাসপাতালে দর্শনার্থীদের ভিড় না করতেও চিকিৎসকদের নির্দেশের কথা তিনি জানান।

এদিকে সুবীর নন্দীর আত্মীয় অভিনেত্রী ঊর্মিলা শ্রাবন্তী করের মা তৃপ্তি কর বিস্তারিত জানিয়ে বলেন, ‘পরিবারসহ সিলেট থেকে ফিরছিলেন সুবীর নন্দী। উত্তরার কাছাকাছি আসতেই হঠাৎ তার শারীরিক অবস্থা খুব খারাপ হয়ে যায়। বাধ্য হয়ে তাকে ট্রেন থেকে নামিয়ে অ্যাম্বুলেন্সে করে সিএমএইচে নেয়া হয়।’

তিনি আরও জানান, ‘দীর্ঘদিন ধরেই কিডনির অসুখে ভুগছেন সুবীর নন্দী। ঢাকার ল্যাবএইডে নিয়মিতই ডায়ালাইসিস করান। কিন্তু উত্তরা থেকে ল্যাবএইড যেতে অনেক সময় লাগবে, তাই আমিই দায়িত্ব নিয়ে সিএমএইচে উনাকে ভর্তি করিয়েছি। একজন বরেণ্য মানুষ, তার সুস্থতা আগে জরুরি।

নন্দিত কণ্ঠশিল্পী সুবীর নন্দী ৪০ বছরের দীর্ঘ ক্যারিয়ারে গেয়েছেন আড়াই হাজারেরও বেশি গান। বেতার থেকে টেলিভিশন, তারপর চলচ্চিত্রেও উপহার দিয়েছেন অসংখ্য জনপ্রিয় গান। ১৯৮১ সালে তার প্রথম একক অ্যালবাম ‘সুবীর নন্দীর গান’ ডিসকো রেকর্ডিংয়ের ব্যানারে বাজারে আসে। তবে চলচ্চিত্রে তিনি প্রথম গান করেন ১৯৭৬ সালে আব্দুস সামাদ পরিচালিত ‘সূর্যগ্রহণ’ চলচ্চিত্রে।

চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক করে চারবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন তিনি। আর চলতি বছরে সংগীতে অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার সুবীর নন্দীকে দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা একুশে পদকে ভূষিত করে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




লাইফ সাপোর্টে সুবীর নন্দী

আপডেট সময় : ০২:০১:১৮ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০১৯

বিনোদন প্রতিবেদক;
দেশবরেণ্য গায়ক সুবীর নন্দীকে লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়েছে। তার শারীরিক অবস্থা খারাপের দিকে গেলে তাকে রোববার (১৪ এপ্রিল) রাত সাড়ে ১১টার দিকে সম্মিলিত সামরিক হাসপাতালে (সিএমএইচ) লাইফ সাপোর্টে নেয়া হয়।

সুবীর নন্দীর আত্মীয় অভিনেত্রী ঊর্মিলা শ্রাবন্তী করের মা সংগীতশিল্পী তৃপ্তি কর এ বিষয়ে বলেন, ‘সুবীর নন্দীর অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে জরুরিভাবে সিএমএইচে ভর্তি করা হয়। সেখানে বিগ্রেডিয়ার তৌফিকের নির্দেশনায় বেশ ক’জন স্পেশালিস্ট শিল্পীর চিকিৎসার দায়িত্ব নেন।

উনার অবস্থা কিছুটা স্থিতিশীল হবার পর বেশ কিছু ওষুধ দেয়া হয়। হাসপাতালে উনার মেয়ে, স্ত্রী ও আমি ছিলাম। রাতে ওষুধ খাওয়ানোর সময় উনি বিছানায় হেলান দিয়ে বসবেন বলে জানান। তাকে পিঠে বালিশ দিয়ে বসানোর চেষ্টা করি আমি। এসময় তার হার্ট অ্যাটাক হয়।

পরে চিকিৎসকরা দ্রুত তার জ্ঞান ফিরিয়ে এনে তাকে লাইফ সাপোর্টে নিয়ে যান। এখনো তিনি লাইফ সাপোর্টে রয়েছেন। চিকিৎসকরা বলেছেন ৭২ ঘণ্টার আগে কোনো রিপোর্ট পাওয়া যাবে না। নন্দিত এই শিল্পীর জন্য সবার দোয়া চাই।’

এদিকে গতকাল রোববার (১৪ এপ্রিল) রাত ১০টার দিকে সুবীর নন্দীকে সিএমএইচে ভর্তি করার তথ্য নিশ্চিত করেন শিল্পীর মেয়ে ফাল্গুনী নন্দী। তিনি সবার কাছে তার বাবার জন্য দোয়া চেয়েছেন। সেইসঙ্গে হাসপাতালে দর্শনার্থীদের ভিড় না করতেও চিকিৎসকদের নির্দেশের কথা তিনি জানান।

এদিকে সুবীর নন্দীর আত্মীয় অভিনেত্রী ঊর্মিলা শ্রাবন্তী করের মা তৃপ্তি কর বিস্তারিত জানিয়ে বলেন, ‘পরিবারসহ সিলেট থেকে ফিরছিলেন সুবীর নন্দী। উত্তরার কাছাকাছি আসতেই হঠাৎ তার শারীরিক অবস্থা খুব খারাপ হয়ে যায়। বাধ্য হয়ে তাকে ট্রেন থেকে নামিয়ে অ্যাম্বুলেন্সে করে সিএমএইচে নেয়া হয়।’

তিনি আরও জানান, ‘দীর্ঘদিন ধরেই কিডনির অসুখে ভুগছেন সুবীর নন্দী। ঢাকার ল্যাবএইডে নিয়মিতই ডায়ালাইসিস করান। কিন্তু উত্তরা থেকে ল্যাবএইড যেতে অনেক সময় লাগবে, তাই আমিই দায়িত্ব নিয়ে সিএমএইচে উনাকে ভর্তি করিয়েছি। একজন বরেণ্য মানুষ, তার সুস্থতা আগে জরুরি।

নন্দিত কণ্ঠশিল্পী সুবীর নন্দী ৪০ বছরের দীর্ঘ ক্যারিয়ারে গেয়েছেন আড়াই হাজারেরও বেশি গান। বেতার থেকে টেলিভিশন, তারপর চলচ্চিত্রেও উপহার দিয়েছেন অসংখ্য জনপ্রিয় গান। ১৯৮১ সালে তার প্রথম একক অ্যালবাম ‘সুবীর নন্দীর গান’ ডিসকো রেকর্ডিংয়ের ব্যানারে বাজারে আসে। তবে চলচ্চিত্রে তিনি প্রথম গান করেন ১৯৭৬ সালে আব্দুস সামাদ পরিচালিত ‘সূর্যগ্রহণ’ চলচ্চিত্রে।

চলচ্চিত্রে প্লেব্যাক করে চারবার জাতীয় চলচ্চিত্র পুরস্কার অর্জন করেন তিনি। আর চলতি বছরে সংগীতে অবদানের জন্য বাংলাদেশ সরকার সুবীর নন্দীকে দেশের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ বেসামরিক সম্মাননা একুশে পদকে ভূষিত করে।