ঢাকা ০৩:৩৫ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo মঙ্গল শোভাযাত্রা – তাসফিয়া ফারহানা ঐশী Logo সাস্টিয়ান ব্রাহ্মণবাড়িয়া এর ইফতার মাহফিল সম্পন্ন Logo কুবির চট্টগ্রাম স্টুডেন্টস ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের ইফতার ও পূর্নমিলনী Logo অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমেদের মায়ের মৃত্যুতে শাবির মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মুক্ত চিন্তা চর্চায় ঐক্যবদ্ধ শিক্ষকবৃন্দ পরিষদের শোক প্রকাশ Logo শাবির অধ্যাপক জহীর উদ্দিনের মায়ের মৃত্যুতে উপাচার্যের শোক প্রকাশ Logo বিশ কোটিতে গণপূর্তের প্রধান হওয়ার মিশনে ‘ছাত্রদল ক্যাডার প্রকৌশলী’! Logo দূর্নীতির রাক্ষস ফায়ার সার্ভিসের এডি আনোয়ার! Logo ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতি হওয়া শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অবকাঠামোর সংস্কার শুরু Logo বুয়েটে নিয়মতান্ত্রিক ছাত্র রাজনীতির দাবিতে শাবিপ্রবি ছাত্রলীগের মানববন্ধন Logo কুবি উপাচার্যের বক্তব্যের প্রমাণ দিতে শিক্ষক সমিতির সাত দিনের আল্টিমেটাম




রফতানি পণ্যের চুরি সম্পূর্ণরূপে বন্ধ করতে হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:১৫:৩৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ১২ জুলাই ২০২১ ১৩০ বার পড়া হয়েছে

সকালের সংবাদ ডেস্ক:
রফতানি পণ্যের চুরি ঠেকাতে সরকারের অবস্থান জিরো টলারেন্স বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বলেন, ‘মহাসড়কে যেভাবেই হোক, রফতানি পণ্যের চুরি সম্পূর্ণরূপে বন্ধ করতে হবে।’ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে পোশাক শিল্পের রফতানি পণ্য চুরি প্রতিরোধ বিষয়ে সোমবার (১২ জুলাই) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আয়োজিত এক সভায় তিনি এ কথা বলেন।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘পোশাক শিল্প দেশের অর্থনীতির প্রধান চালিকাশক্তি। এ শিল্পে সুষ্ঠু আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি বজায় রাখাসহ সব সহযোগিতা প্রদানে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তৎপর রয়েছে।’ এ সময় মন্ত্রী চুরি বন্ধের জন্য উপস্থিত আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসমূহকে কঠোর নির্দেশনা দেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক সিসিটিভি’র নজরদারিতে আনার জন্য এ মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপনের কাজ ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে, যা আগামী চার মাসের মধ্যে সমাপ্ত হবে।’

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে চুরি বন্ধের জন্য অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক, হাইওয়ে পুলিশকে প্রধান করে বিজিএমইএ, আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসমূহ এবং বাংলাদেশ কাভার্ডভ্যান মালিক সমিতির প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে একটি কমিটি গঠন করে দেন। তিনি বলেন, ‘এ কমিটির মূল কাজ হবে চুরি বন্ধের জন্য সংশ্লিষ্ট সবার জন্য এসওপি (স্ট্যান্ডার্ড অপারেশনাল প্রসিডিউর) নির্ধারণ করে দেওয়া।’ মন্ত্রী এ মর্মে আরও নির্দেশনা দেন যে চুরি বন্ধের জন্য হাইওয়ে পুলিশ এখন থেকে শুধু হাইওয়ে নয়, সংযুক্ত ফিডার রোডগুলোতেও টহলদারি ও তদারকি জোরদার করবে।

প্রসঙ্গত, বিজিএমইএ মহাসড়কে তৈরি পোশাক শিল্পের রফতানির মালামাল চুরি প্রতিরোধে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদারের জন্য সরকারকে অনুরোধ জানায়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সভাপতিত্বে বিজিএমইএ নেতৃবৃন্দ, আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসমূহের সদস্যগণ এবং বাংলাদশ কাভার্ডভ্যান মালিক সমিতির প্রতিনিধিরা সভায় উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসান বলেন, ‘ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দীর্ঘদিন ধরে পোশাক খাতের রফতানি ও আমদানির মালামাল চুরির ঘটনা ঘটে আসছে।’ তিনি বলেন, ‘এটা মাঝখানে বন্ধ ছিল। এখন আবার ঘন ঘন ঘটছে। এ মহাসড়কে একটি সংঘবদ্ধ শ্রেণিচক্র কাভার্ডভ্যান চালকদের যোগসাজশে রাতে কাভার্ডভ্যান দাঁড় করিয়ে মালামাল চুরি করছে। অনেক সময় কার্টনের ওজন ঠিক রাখার জন্য তারা কার্টনে ঝুট, মাটি ইত্যাদি ভরে দিচ্ছে। পরে যখন উক্ত রফতানি পণ্য আমেরিকা-ইউরোপসহ বিভিন্ন দেশে ক্রেতাদের কাছে পৌঁছাচ্ছে, তখন কার্টন খুলে ক্রেতাদের চাহিদা অনুযায়ী পোশাক পাওয়া যাচ্ছে না বলে অভিযোগ আসছে। এতে একদিকে সংশ্লিষ্ট রফতানিকারকরা আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন, অন্যদিকে দেশের সুনামও নষ্ট হচ্ছে, যা মোটেও কাম্য নয়।’

বিজিএমইএ নেতারা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে এই চুরি বন্ধে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সদয় হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

পুলিশ প্রধান ড. বেনজীর আহমেদ চুরি প্রতিরোধে সংশ্লিষ্টদের নিয়ে একটি কমিটি গঠনের প্রস্তাবনা দিয়ে বলেন, ‘এ কমিটি চুরি বন্ধের জন্য সংশ্লিষ্ট সবার জন্য এসওপি (স্ট্যান্ডার্ড অপারেশনাল প্রসিডিউর) নির্ধারণ করার কাজ করতে পারে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




রফতানি পণ্যের চুরি সম্পূর্ণরূপে বন্ধ করতে হবে: স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী

আপডেট সময় : ১০:১৫:৩৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ১২ জুলাই ২০২১

সকালের সংবাদ ডেস্ক:
রফতানি পণ্যের চুরি ঠেকাতে সরকারের অবস্থান জিরো টলারেন্স বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল। তিনি বলেন, ‘মহাসড়কে যেভাবেই হোক, রফতানি পণ্যের চুরি সম্পূর্ণরূপে বন্ধ করতে হবে।’ ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে পোশাক শিল্পের রফতানি পণ্য চুরি প্রতিরোধ বিষয়ে সোমবার (১২ জুলাই) স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে আয়োজিত এক সভায় তিনি এ কথা বলেন।

আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেন, ‘পোশাক শিল্প দেশের অর্থনীতির প্রধান চালিকাশক্তি। এ শিল্পে সুষ্ঠু আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি বজায় রাখাসহ সব সহযোগিতা প্রদানে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় তৎপর রয়েছে।’ এ সময় মন্ত্রী চুরি বন্ধের জন্য উপস্থিত আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসমূহকে কঠোর নির্দেশনা দেন।

মন্ত্রী বলেন, ‘ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক সিসিটিভি’র নজরদারিতে আনার জন্য এ মহাসড়কের বিভিন্ন স্থানে সিসিটিভি ক্যামেরা স্থাপনের কাজ ইতোমধ্যে শুরু হয়েছে, যা আগামী চার মাসের মধ্যে সমাপ্ত হবে।’

ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে চুরি বন্ধের জন্য অতিরিক্ত মহাপরিদর্শক, হাইওয়ে পুলিশকে প্রধান করে বিজিএমইএ, আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসমূহ এবং বাংলাদেশ কাভার্ডভ্যান মালিক সমিতির প্রতিনিধিদের সমন্বয়ে একটি কমিটি গঠন করে দেন। তিনি বলেন, ‘এ কমিটির মূল কাজ হবে চুরি বন্ধের জন্য সংশ্লিষ্ট সবার জন্য এসওপি (স্ট্যান্ডার্ড অপারেশনাল প্রসিডিউর) নির্ধারণ করে দেওয়া।’ মন্ত্রী এ মর্মে আরও নির্দেশনা দেন যে চুরি বন্ধের জন্য হাইওয়ে পুলিশ এখন থেকে শুধু হাইওয়ে নয়, সংযুক্ত ফিডার রোডগুলোতেও টহলদারি ও তদারকি জোরদার করবে।

প্রসঙ্গত, বিজিএমইএ মহাসড়কে তৈরি পোশাক শিল্পের রফতানির মালামাল চুরি প্রতিরোধে নিরাপত্তা ব্যবস্থা জোরদারের জন্য সরকারকে অনুরোধ জানায়।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামালের সভাপতিত্বে বিজিএমইএ নেতৃবৃন্দ, আইন প্রয়োগকারী সংস্থাসমূহের সদস্যগণ এবং বাংলাদশ কাভার্ডভ্যান মালিক সমিতির প্রতিনিধিরা সভায় উপস্থিত ছিলেন।

সভায় বিজিএমইএ সভাপতি ফারুক হাসান বলেন, ‘ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে দীর্ঘদিন ধরে পোশাক খাতের রফতানি ও আমদানির মালামাল চুরির ঘটনা ঘটে আসছে।’ তিনি বলেন, ‘এটা মাঝখানে বন্ধ ছিল। এখন আবার ঘন ঘন ঘটছে। এ মহাসড়কে একটি সংঘবদ্ধ শ্রেণিচক্র কাভার্ডভ্যান চালকদের যোগসাজশে রাতে কাভার্ডভ্যান দাঁড় করিয়ে মালামাল চুরি করছে। অনেক সময় কার্টনের ওজন ঠিক রাখার জন্য তারা কার্টনে ঝুট, মাটি ইত্যাদি ভরে দিচ্ছে। পরে যখন উক্ত রফতানি পণ্য আমেরিকা-ইউরোপসহ বিভিন্ন দেশে ক্রেতাদের কাছে পৌঁছাচ্ছে, তখন কার্টন খুলে ক্রেতাদের চাহিদা অনুযায়ী পোশাক পাওয়া যাচ্ছে না বলে অভিযোগ আসছে। এতে একদিকে সংশ্লিষ্ট রফতানিকারকরা আর্থিক ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছেন, অন্যদিকে দেশের সুনামও নষ্ট হচ্ছে, যা মোটেও কাম্য নয়।’

বিজিএমইএ নেতারা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়কে এই চুরি বন্ধে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীর সদয় হস্তক্ষেপ কামনা করেন।

পুলিশ প্রধান ড. বেনজীর আহমেদ চুরি প্রতিরোধে সংশ্লিষ্টদের নিয়ে একটি কমিটি গঠনের প্রস্তাবনা দিয়ে বলেন, ‘এ কমিটি চুরি বন্ধের জন্য সংশ্লিষ্ট সবার জন্য এসওপি (স্ট্যান্ডার্ড অপারেশনাল প্রসিডিউর) নির্ধারণ করার কাজ করতে পারে।