ঢাকা ০৭:৩১ অপরাহ্ন, শনিবার, ১৫ জুন ২০২৪, ১ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ




ছেলেকে মারধর: ইউ,পি সদস্যের দ্বারে দ্বারে ঘুরে সুবিচার পায়নি-বিধবা জহুরা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:০৬:৫০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১১ ফেব্রুয়ারী ২০১৯ ১৩০ বার পড়া হয়েছে

 

  
মোঃ আহাদ, মৌলভীবাজারঃ মৌলভীবাজারের  কমলগঞ্জ উপজেলার লংগুরপার গ্রামে সম্প্রতি ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে মৃত সুবান মিয়ার স্কুল পড়ুয়া ছেলে দশম শ্রেনীর ছাএ রবিউল আলম (১৫) কে মারধর করেছে প্রভাবশালী সুরুক মিয়ার ছেলে ভানুগাছ বাজারের শাপলা আরদের স্বত্বাধিকারী রুবেল মিয়া(২৭)।
ভুক্তভোগীর কাছ থেকে জানা যায় রবিউল ইসলাম কে গত ২৯ জানুয়ারি ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে মারধর করে প্রভাবশালী রুবেল মিয়া। রবিউল ইসলাম গুরুতর আহত হলে কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের ইউ,পি সদস্য মাহমুদ আলী কে অবহিত করে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করা হয়।
দুই দিন চিকিৎসার পর বাড়ি ফিরে আসে।কমলগঞ্জ ইউনিয়নের সদস্য মাহমুদ আলীর দ্বারে দ্বারে ঘুরেও এখন পর্যন্ত কোন সুবিচার পায়নি বিধবা জহুরা বেগম।
এ বিষয়ে ইউ,পি সদস্য মাহমুদ আলীর সাথে যোগাযোগ করলে বলেন বিষটি দেখবেন বলে এরিয়ে গেলেন। আরও জানতে কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আ:হান্নানের সাথে ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




ছেলেকে মারধর: ইউ,পি সদস্যের দ্বারে দ্বারে ঘুরে সুবিচার পায়নি-বিধবা জহুরা

আপডেট সময় : ০৮:০৬:৫০ অপরাহ্ন, সোমবার, ১১ ফেব্রুয়ারী ২০১৯

 

  
মোঃ আহাদ, মৌলভীবাজারঃ মৌলভীবাজারের  কমলগঞ্জ উপজেলার লংগুরপার গ্রামে সম্প্রতি ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে মৃত সুবান মিয়ার স্কুল পড়ুয়া ছেলে দশম শ্রেনীর ছাএ রবিউল আলম (১৫) কে মারধর করেছে প্রভাবশালী সুরুক মিয়ার ছেলে ভানুগাছ বাজারের শাপলা আরদের স্বত্বাধিকারী রুবেল মিয়া(২৭)।
ভুক্তভোগীর কাছ থেকে জানা যায় রবিউল ইসলাম কে গত ২৯ জানুয়ারি ক্রিকেট খেলাকে কেন্দ্র করে মারধর করে প্রভাবশালী রুবেল মিয়া। রবিউল ইসলাম গুরুতর আহত হলে কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের ইউ,পি সদস্য মাহমুদ আলী কে অবহিত করে কমলগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স ভর্তি করা হয়।
দুই দিন চিকিৎসার পর বাড়ি ফিরে আসে।কমলগঞ্জ ইউনিয়নের সদস্য মাহমুদ আলীর দ্বারে দ্বারে ঘুরেও এখন পর্যন্ত কোন সুবিচার পায়নি বিধবা জহুরা বেগম।
এ বিষয়ে ইউ,পি সদস্য মাহমুদ আলীর সাথে যোগাযোগ করলে বলেন বিষটি দেখবেন বলে এরিয়ে গেলেন। আরও জানতে কমলগঞ্জ সদর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান আ:হান্নানের সাথে ফোনে যোগাযোগ করলে তিনি ফোন রিসিভ করেন নি।