ঢাকা ০৯:৩৩ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ




পুলিশের খাঁচায় ‘জ্বিনের বাদশা’

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৭:৪৯:০৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ জুন ২০২৪ ৫১ বার পড়া হয়েছে

বোদা (পঞ্চগড়) প্রতিনিধিঃ পঞ্চগড়ে মুঠোফোনে জিনের বাদশা পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে মিলন ইসলাম (৫০) নামে জিনের বাদশা চক্রের এক সদস্যকে বুধবার (৫ জুন) আইনি প্রক্রিয়া শেষে বিকেলে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়। এর আগে গত মঙ্গলবার দিনগত গভীর রাতে উপজেলার কাজলদিঘী কালিয়াগঞ্জ ইউনিয়নের উৎকুড়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। মো. মিলন ইসলাম ওই এলাকার মৃত আব্দুল আজিজের ছেলে। ধৃত মিলন ইসলাম ও তার একটি প্রতারকচক্রের দল সহ দীর্ঘদিন যাবৎ মানুষকে সিঙ্গাপুর, ইউএসএ এর ডলারসহ অন্যান্য দেশের মূদ্রা, হুনুমানের পয়সা, নকল স্বর্ণের পুতুল, নকল কষ্টি পাথরের মূর্তি, তক্ষক সহ প্রভৃতি জিনিস দেখিয়ে মানুষের নিকট হতে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে আসতেছিল।
বোদা থানা সূত্রে জানা যায়, ২০২৪ সালের অনুষ্ঠিত ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ২য় ধাপে মহসিন আলী রুবেল নামে নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে হেলিকপ্টার প্রতীক নিয়ে উপজেলা নির্বাচনী প্রচারনা শুরু করেন। ধৃত আসামী মিলন ইসলাম গত ২৩ মে চেয়ারম্যান প্রার্থীর গাড়ী ড্রাইভার বুলু ইসলামকে হিপনোটাইজ করেন এবং ২১ মে ২০২৪ইং তারিখের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বাদী মহসিন আলী রুবেলের পক্ষে ভোট কেন্দ্রে কথিত জিনের বাদশা পাঠিয়ে বাদীকে বিজয়ী করবে মর্মে প্রলোভন দেখিয়ে বিশ্বাস স্থাপন করে ১৫ লাখ হাতিয়ে নেন। পরবর্তীতে নির্বাচনের দিন ভোট গণনা শেষে বাদী চেয়ারম্যান প্রার্থী ৬ষ্ঠ স্থানের অধিকার করায় প্রতারক চক্রের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টায় ব্যার্থ হলে গত ২২ শে মে সন্ধ্যা অনুমান সাড়ে ৭টায় বাদী ব্যক্তিগত ড্রাইভার বুলু ইসলামসহ বাদীর পরিচিত লোকজনদের নিয়ে ধৃত আসামী মিলন ইসলাম এর বাড়ীতে যান এবং বাদী মহসিন আলী রুবেল নির্বাচনে বিজয়ী না হওয়ায় প্রতারক চক্রের নিকট প্রদানকৃত ১৫ লাখ টাকা ফেরত চাইলে তারা বাদীকে বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শন করে। পরবর্তীতে বাদী মহসিন আলী রুবেল থানায় উপস্থিত হয়ে বোদা থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।
এর প্রেক্ষিতে পঞ্চগড় জেলার সম্মানিত পুলিশ সুপার জনাব এস এম সিরাজুল হুদা পিপিএম-বার, সহকারী পুলিশ সুপার (বি-সার্কেল) জনাব রুনা লায়লা মহোদয়গনের দিক-নির্দেশনায় বোদা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মোজাম্মেল হক পিপিএম এর নেতৃত্বে বোদা থানার এসআই মো. আব্দুস ছালাম ও সঙ্গীয় ফোর্সের সমন্বয়ে গঠিত আভিযানিক দল তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার ও পুলিশি অভিযান পরিচালনা করে গত মঙ্গলবার ৪ জুন সকাল ৯’৩৫ ঘটিকার বোদা থানাধীন কাজলদিঘী কালিয়াগঞ্জ বাজার এলাকা হতে কুখ্যাত জিনের বাদশা মো. মিলন ইসলামকে আটক করে। বোদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাম্মেল হক বিষয়টি নিশ্চিত করে সময় সংবাদকে বলেন, অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে অভিযান পরিচালনা করে তাকে গ্রেফতার করা হয়। মিলনকে বুধবার (৫ জুন) বিকেলে আদালতে তোলার পরে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়। কিন্তু শুনানি না হওয়ায় এখনো রিমান্ডের বিষয়ে আদালতে কোনো নির্দেশনা আসেনি। তবে এ চক্রের অন্য সদস্যদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছে তিনি।

Loading

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




পুলিশের খাঁচায় ‘জ্বিনের বাদশা’

আপডেট সময় : ০৭:৪৯:০৮ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ৬ জুন ২০২৪

বোদা (পঞ্চগড়) প্রতিনিধিঃ পঞ্চগড়ে মুঠোফোনে জিনের বাদশা পরিচয় দিয়ে প্রতারণা করে অর্থ আত্মসাতের অভিযোগে মিলন ইসলাম (৫০) নামে জিনের বাদশা চক্রের এক সদস্যকে বুধবার (৫ জুন) আইনি প্রক্রিয়া শেষে বিকেলে আদালতের মাধ্যমে জেলা কারাগারে পাঠানো হয়। এর আগে গত মঙ্গলবার দিনগত গভীর রাতে উপজেলার কাজলদিঘী কালিয়াগঞ্জ ইউনিয়নের উৎকুড়া এলাকা থেকে তাকে গ্রেফতার করা হয়। মো. মিলন ইসলাম ওই এলাকার মৃত আব্দুল আজিজের ছেলে। ধৃত মিলন ইসলাম ও তার একটি প্রতারকচক্রের দল সহ দীর্ঘদিন যাবৎ মানুষকে সিঙ্গাপুর, ইউএসএ এর ডলারসহ অন্যান্য দেশের মূদ্রা, হুনুমানের পয়সা, নকল স্বর্ণের পুতুল, নকল কষ্টি পাথরের মূর্তি, তক্ষক সহ প্রভৃতি জিনিস দেখিয়ে মানুষের নিকট হতে কোটি কোটি টাকা হাতিয়ে নিয়ে আসতেছিল।
বোদা থানা সূত্রে জানা যায়, ২০২৪ সালের অনুষ্ঠিত ৬ষ্ঠ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ২য় ধাপে মহসিন আলী রুবেল নামে নীলফামারী জেলার সৈয়দপুর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদে হেলিকপ্টার প্রতীক নিয়ে উপজেলা নির্বাচনী প্রচারনা শুরু করেন। ধৃত আসামী মিলন ইসলাম গত ২৩ মে চেয়ারম্যান প্রার্থীর গাড়ী ড্রাইভার বুলু ইসলামকে হিপনোটাইজ করেন এবং ২১ মে ২০২৪ইং তারিখের উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে বাদী মহসিন আলী রুবেলের পক্ষে ভোট কেন্দ্রে কথিত জিনের বাদশা পাঠিয়ে বাদীকে বিজয়ী করবে মর্মে প্রলোভন দেখিয়ে বিশ্বাস স্থাপন করে ১৫ লাখ হাতিয়ে নেন। পরবর্তীতে নির্বাচনের দিন ভোট গণনা শেষে বাদী চেয়ারম্যান প্রার্থী ৬ষ্ঠ স্থানের অধিকার করায় প্রতারক চক্রের সাথে মোবাইল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টায় ব্যার্থ হলে গত ২২ শে মে সন্ধ্যা অনুমান সাড়ে ৭টায় বাদী ব্যক্তিগত ড্রাইভার বুলু ইসলামসহ বাদীর পরিচিত লোকজনদের নিয়ে ধৃত আসামী মিলন ইসলাম এর বাড়ীতে যান এবং বাদী মহসিন আলী রুবেল নির্বাচনে বিজয়ী না হওয়ায় প্রতারক চক্রের নিকট প্রদানকৃত ১৫ লাখ টাকা ফেরত চাইলে তারা বাদীকে বিভিন্ন ধরনের ভয়ভীতি ও হুমকি প্রদর্শন করে। পরবর্তীতে বাদী মহসিন আলী রুবেল থানায় উপস্থিত হয়ে বোদা থানায় অভিযোগ দায়ের করেন।
এর প্রেক্ষিতে পঞ্চগড় জেলার সম্মানিত পুলিশ সুপার জনাব এস এম সিরাজুল হুদা পিপিএম-বার, সহকারী পুলিশ সুপার (বি-সার্কেল) জনাব রুনা লায়লা মহোদয়গনের দিক-নির্দেশনায় বোদা থানার অফিসার ইনচার্জ মো. মোজাম্মেল হক পিপিএম এর নেতৃত্বে বোদা থানার এসআই মো. আব্দুস ছালাম ও সঙ্গীয় ফোর্সের সমন্বয়ে গঠিত আভিযানিক দল তথ্য প্রযুক্তি ব্যবহার ও পুলিশি অভিযান পরিচালনা করে গত মঙ্গলবার ৪ জুন সকাল ৯’৩৫ ঘটিকার বোদা থানাধীন কাজলদিঘী কালিয়াগঞ্জ বাজার এলাকা হতে কুখ্যাত জিনের বাদশা মো. মিলন ইসলামকে আটক করে। বোদা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোজাম্মেল হক বিষয়টি নিশ্চিত করে সময় সংবাদকে বলেন, অভিযোগের পরিপ্রেক্ষিতে অভিযান পরিচালনা করে তাকে গ্রেফতার করা হয়। মিলনকে বুধবার (৫ জুন) বিকেলে আদালতে তোলার পরে ৫ দিনের রিমান্ড আবেদন করা হয়। কিন্তু শুনানি না হওয়ায় এখনো রিমান্ডের বিষয়ে আদালতে কোনো নির্দেশনা আসেনি। তবে এ চক্রের অন্য সদস্যদের গ্রেফতারে পুলিশের অভিযান অব্যাহত রয়েছে বলে জানিয়েছে তিনি।

Loading