ঢাকা ০৩:৫২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo মঙ্গল শোভাযাত্রা – তাসফিয়া ফারহানা ঐশী Logo সাস্টিয়ান ব্রাহ্মণবাড়িয়া এর ইফতার মাহফিল সম্পন্ন Logo কুবির চট্টগ্রাম স্টুডেন্টস ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের ইফতার ও পূর্নমিলনী Logo অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমেদের মায়ের মৃত্যুতে শাবির মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মুক্ত চিন্তা চর্চায় ঐক্যবদ্ধ শিক্ষকবৃন্দ পরিষদের শোক প্রকাশ Logo শাবির অধ্যাপক জহীর উদ্দিনের মায়ের মৃত্যুতে উপাচার্যের শোক প্রকাশ Logo বিশ কোটিতে গণপূর্তের প্রধান হওয়ার মিশনে ‘ছাত্রদল ক্যাডার প্রকৌশলী’! Logo দূর্নীতির রাক্ষস ফায়ার সার্ভিসের এডি আনোয়ার! Logo ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতি হওয়া শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অবকাঠামোর সংস্কার শুরু Logo বুয়েটে নিয়মতান্ত্রিক ছাত্র রাজনীতির দাবিতে শাবিপ্রবি ছাত্রলীগের মানববন্ধন Logo কুবি উপাচার্যের বক্তব্যের প্রমাণ দিতে শিক্ষক সমিতির সাত দিনের আল্টিমেটাম




অনেক বিষয় রয়েছে যা বললে গ্রেফতার হবেন সিদ্দিক: মিম

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:৪৮:৩৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯ ৯৩ বার পড়া হয়েছে

বেশ কিছুদিন হল অভিনেতা সিদ্দিকুর রহমান ও বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত স্পেনের নাগরিক মারিয়া মিমের সংসারটা ভালো যাচ্ছে না। মাস তিনেক ধরেই আলাদা থাকছেন তারা। এদিকে মারিয়া মিম আর সিদ্দিকের সঙ্গে থাকতে চান না বলে সময় সংবাদকে জানান। তিনি শিগগিরই ডিভোর্স দিতে যাচ্ছেন বলেও নিশ্চিত করেছেন।

এ দম্পতির পরিবারে ছয় বছরের পুত্র সন্তান রয়েছে। কেন বিচ্ছেদ হচ্ছে তাদের? এমন প্রশ্নে মিম বলেন, ‘সিদ্দিককে ভালোবেসে আমি স্পেনের বিলাসী জীবন ছেড়ে সিদ্দিকের কাছে এসেছিলাম। পরিবারের সম্মতি নিয়ে ভালোবেসেই বিয়ে করেছিলাম। সেই ভালোবাসার ঘর আজ ভাঙনের মুখে! তিনমাস ধরে আলাদা থাকছি আমরা।’

বিচ্ছেদের আগে একে অপরের বিরুদ্ধে আনছেন নানা অভিযোগ। এর আগে সিদ্দিক জানান, কেবল মিডিয়ায় কাজ করতে না দেওয়াতে আলাদা থাকছেন মিম। মিম মিডিয়াতে কাজ করতে চাচ্ছে যে বিষয়টি আমার ভালো লাগে না। সেই কাজটি করতে চাওয়ায় আমাদের মধ্যে সমস্যার তৈরি হয়েছে।

এদিকে সিদ্দিকের এই অভিযোগের বিষয়টি অস্বীকার করে মিম বলেন, শুধু মিডিয়ায় কাজের বিষয় নয়, তার সঙ্গে ঘর ভাঙার শতশত কারণ আছে। যেগুলো এতদিন আমি সহ্য করেছি। যা এখন আর সহ্য করতে পারছি না। এমন অনেক বিষয় রয়েছে যা বললে গ্রেফতার হবেন সিদ্দিক।’

মিম আরও জানান, বিয়ের পর থেকেই আমাদের মধ্যে অ-মিল শুরু হয়। বিয়ের আগে আমার কোনো কিছু নিয়ে সিদ্দিকের আপত্তি ছিল না। কিন্তু বিয়ের পর সে আস্তে আস্তে পরিবর্তন হতে থাকে। যে কারণে তার এই পরিবর্তনের বিষয়গুলো আমি আর মানতে পারছি না। সব মেয়েদের স্বপ্ন থাকে, তার স্বামী একজন ভালো মনের মানুষ হবে। তাছাড়া সুখ শান্তিতেই থাকতেই পছন্দ করে মেয়েরা। সিদ্দিক আমার সব কাজ নিয়ে অভিযোগ করে। আমি সব কিছু ছেড়ে দিতাম। যদি আমার স্বামী আমাকে মানসিকভাবে শান্তি দিতো ও ভালোবাসতো। কিন্তু সে এমন মানুষ না। এই বিষয়গুলো সত্যি আমার কাছে বোঝা মনে হচ্ছে। আর যে কারণে সময়ের সাথে সাথে তার সঙ্গে থাকাটাও কতটা যৌক্তিক হবে সেটা সময় বলবে। সিদ্দিক আমার সঙ্গে অনেক প্রতারণা করেছে। কিন্তু ছেলের মুখের দিকে তাকিয়ে সংসার করতে চেয়েছিলাম। সব কিছু তো আর বলা সম্ভব নয়, যদি বলতাম তাহলে এতদিনে ওকে জেলে থাকতে হতো।’’

‘সিদ্দিক আমাকে সব সময় মানসিক টর্চারে রেখেছে। আমার অধিকার হরণ করেছে। না, ওর সংসারে আমার কোনো স্বাধীনতা নেই। এখন সে আমাকে হুমকি দিয়ে আসছে নানাভাবে। তাই আমি তার নামে জিডি করেছি।’

২০১২ সালের ২৪ মে বিয়ে হয় বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত স্পেনের নাগরিক মারিয়া মিম ও সিদ্দিকের।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




অনেক বিষয় রয়েছে যা বললে গ্রেফতার হবেন সিদ্দিক: মিম

আপডেট সময় : ০৯:৪৮:৩৭ পূর্বাহ্ন, বুধবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৯

বেশ কিছুদিন হল অভিনেতা সিদ্দিকুর রহমান ও বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত স্পেনের নাগরিক মারিয়া মিমের সংসারটা ভালো যাচ্ছে না। মাস তিনেক ধরেই আলাদা থাকছেন তারা। এদিকে মারিয়া মিম আর সিদ্দিকের সঙ্গে থাকতে চান না বলে সময় সংবাদকে জানান। তিনি শিগগিরই ডিভোর্স দিতে যাচ্ছেন বলেও নিশ্চিত করেছেন।

এ দম্পতির পরিবারে ছয় বছরের পুত্র সন্তান রয়েছে। কেন বিচ্ছেদ হচ্ছে তাদের? এমন প্রশ্নে মিম বলেন, ‘সিদ্দিককে ভালোবেসে আমি স্পেনের বিলাসী জীবন ছেড়ে সিদ্দিকের কাছে এসেছিলাম। পরিবারের সম্মতি নিয়ে ভালোবেসেই বিয়ে করেছিলাম। সেই ভালোবাসার ঘর আজ ভাঙনের মুখে! তিনমাস ধরে আলাদা থাকছি আমরা।’

বিচ্ছেদের আগে একে অপরের বিরুদ্ধে আনছেন নানা অভিযোগ। এর আগে সিদ্দিক জানান, কেবল মিডিয়ায় কাজ করতে না দেওয়াতে আলাদা থাকছেন মিম। মিম মিডিয়াতে কাজ করতে চাচ্ছে যে বিষয়টি আমার ভালো লাগে না। সেই কাজটি করতে চাওয়ায় আমাদের মধ্যে সমস্যার তৈরি হয়েছে।

এদিকে সিদ্দিকের এই অভিযোগের বিষয়টি অস্বীকার করে মিম বলেন, শুধু মিডিয়ায় কাজের বিষয় নয়, তার সঙ্গে ঘর ভাঙার শতশত কারণ আছে। যেগুলো এতদিন আমি সহ্য করেছি। যা এখন আর সহ্য করতে পারছি না। এমন অনেক বিষয় রয়েছে যা বললে গ্রেফতার হবেন সিদ্দিক।’

মিম আরও জানান, বিয়ের পর থেকেই আমাদের মধ্যে অ-মিল শুরু হয়। বিয়ের আগে আমার কোনো কিছু নিয়ে সিদ্দিকের আপত্তি ছিল না। কিন্তু বিয়ের পর সে আস্তে আস্তে পরিবর্তন হতে থাকে। যে কারণে তার এই পরিবর্তনের বিষয়গুলো আমি আর মানতে পারছি না। সব মেয়েদের স্বপ্ন থাকে, তার স্বামী একজন ভালো মনের মানুষ হবে। তাছাড়া সুখ শান্তিতেই থাকতেই পছন্দ করে মেয়েরা। সিদ্দিক আমার সব কাজ নিয়ে অভিযোগ করে। আমি সব কিছু ছেড়ে দিতাম। যদি আমার স্বামী আমাকে মানসিকভাবে শান্তি দিতো ও ভালোবাসতো। কিন্তু সে এমন মানুষ না। এই বিষয়গুলো সত্যি আমার কাছে বোঝা মনে হচ্ছে। আর যে কারণে সময়ের সাথে সাথে তার সঙ্গে থাকাটাও কতটা যৌক্তিক হবে সেটা সময় বলবে। সিদ্দিক আমার সঙ্গে অনেক প্রতারণা করেছে। কিন্তু ছেলের মুখের দিকে তাকিয়ে সংসার করতে চেয়েছিলাম। সব কিছু তো আর বলা সম্ভব নয়, যদি বলতাম তাহলে এতদিনে ওকে জেলে থাকতে হতো।’’

‘সিদ্দিক আমাকে সব সময় মানসিক টর্চারে রেখেছে। আমার অধিকার হরণ করেছে। না, ওর সংসারে আমার কোনো স্বাধীনতা নেই। এখন সে আমাকে হুমকি দিয়ে আসছে নানাভাবে। তাই আমি তার নামে জিডি করেছি।’

২০১২ সালের ২৪ মে বিয়ে হয় বাংলাদেশি বংশোদ্ভূত স্পেনের নাগরিক মারিয়া মিম ও সিদ্দিকের।