ঢাকা ০২:০৭ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo জবিতে আজীবন ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ Logo শাবিতে হল প্রশাসনকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে নোটিসে জোর পূর্বক সাইন আদায় Logo এবার সামনে আসছে ছাত্রলীগ কর্তৃক আন্দোলনকারীদের মারধরের আরো ঘটনা Logo আবাসিক হল ছাড়ছে শাবি শিক্ষার্থীরা Logo নিরাপত্তার স্বার্থে শাবি শিক্ষার্থীদের আইডিকার্ড সাথে রাখার আহবান বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের Logo জনস্বাস্থ্যের প্রধান সাধুর যত অসাধু কর্ম: দুর্নীতি ও অর্থ পাচারের অভিযোগ! Logo বিআইডব্লিউটিএ বন্দর শাখা যুগ্ম পরিচালক আলমগীরের দুর্নীতি ও ঘুষ বাণিজ্য  Logo রাজশাহীতে এটিএন বাংলার সাংবাদিক সুজাউদ্দিন ছোটনকে হয়রানিমূলক মামলায় বএিমইউজরে নিন্দা ও প্রতিবাদ Logo শিক্ষার্থীদের তথ্য প্রযুক্তিতে দক্ষ হয়ে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ায় অবদান রাখতে হবেঃ ড. তৌফিক রহমান চৌধুরী Logo ‘কানামাছি শিশুসাহিত্য পুরস্কার ২০২৪’ পেলেন লেখক




বিআইডব্লিউটিএ’র সাবেক কর্মকর্তা সালামের ৭ বছরের দণ্ড

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:১২:৪৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯ ১২৯ বার পড়া হয়েছে

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট |

মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইনের দায়ের করা মামলায় বিআইডব্লিউটিএ’র সাবেক সহকারী কর্মকর্তা মো. আব্দুস সালাম খানকে ৭ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। পাশাপাশি অর্থদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছে।

মামলায় আসামি আব্দুস সালাম খানের স্ত্রী শাহনাজ পারভীন লাভলীকে খালাস দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) দুপুরে বিশেষ জজ-১০ এর বিচারক জয়নাল আবেদীন আসামির উপস্থিতিতে ৭ বছরের কারাদণ্ডের পাশাপাশি ৪১ কোটি ১৯ লাখ ৭ হাজার ৩২ টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত করেছেন।

রায় ঘোষণার পর আসামি সালাম খানকে সাজা পরোয়ানা দিয়ে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি সালাম খানের স্থাবর/অস্থাবর সব সম্পত্তি সরকারের অনূকুলে বাজেয়াপ্ত করারও নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, ২০০৭ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ২০১০ সালের ২৫ নভেম্বর পর্যন্ত বিআইডব্লিউটিএ কর্মচারীদের উন্নয়ন তহবিলের ১৯ কোটি ৯৯ লাখ ১৫ হাজার একশত ১৬ টাকা ১৭ পয়সা পুরানা পল্টন শাখার জনতা ব্যাংক জমা দেন ওই কর্মকর্তা। এরপর আসামি ৬৫২টি চেকের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের স্বাক্ষর জাল করে ২০ কোটি ৫৯ লাখ ৫৩ হাজার ৫১৬ টাকা ৬ পয়সা উত্তোলন করে তা আত্মসাৎ করেন। সেই টাকা দিয়ে আসামি বিভিন্ন সময় নামে বেনামে সম্পদ ক্রয় করেছেন।

ওই ঘটনায় বিআইডব্লিউটিএ’র উপ-পরিচালক মো. বেনজীর আহমেদ মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইনের ৪(২) ধারায় মামলাটি দায়ের করেন।

২০১২ সালের ৫ আগস্ট মামলাটি তদন্ত করে উক্ত আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। মামলায় ১৯ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে এ রায় দিয়েছেন আদালত।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




বিআইডব্লিউটিএ’র সাবেক কর্মকর্তা সালামের ৭ বছরের দণ্ড

আপডেট সময় : ০৩:১২:৪৬ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২৩ জুলাই ২০১৯

স্পেশাল করেসপন্ডেন্ট |

মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইনের দায়ের করা মামলায় বিআইডব্লিউটিএ’র সাবেক সহকারী কর্মকর্তা মো. আব্দুস সালাম খানকে ৭ বছরের সশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন আদালত। পাশাপাশি অর্থদণ্ডে দণ্ডিত করা হয়েছে।

মামলায় আসামি আব্দুস সালাম খানের স্ত্রী শাহনাজ পারভীন লাভলীকে খালাস দিয়েছেন আদালত।

মঙ্গলবার (২৩ জুলাই) দুপুরে বিশেষ জজ-১০ এর বিচারক জয়নাল আবেদীন আসামির উপস্থিতিতে ৭ বছরের কারাদণ্ডের পাশাপাশি ৪১ কোটি ১৯ লাখ ৭ হাজার ৩২ টাকা অর্থদণ্ডে দণ্ডিত করেছেন।

রায় ঘোষণার পর আসামি সালাম খানকে সাজা পরোয়ানা দিয়ে কারাগারে পাঠানোর নির্দেশ দেন আদালত। দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি সালাম খানের স্থাবর/অস্থাবর সব সম্পত্তি সরকারের অনূকুলে বাজেয়াপ্ত করারও নির্দেশ দিয়েছেন আদালত।

মামলার অভিযোগে বলা হয়, ২০০৭ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ২০১০ সালের ২৫ নভেম্বর পর্যন্ত বিআইডব্লিউটিএ কর্মচারীদের উন্নয়ন তহবিলের ১৯ কোটি ৯৯ লাখ ১৫ হাজার একশত ১৬ টাকা ১৭ পয়সা পুরানা পল্টন শাখার জনতা ব্যাংক জমা দেন ওই কর্মকর্তা। এরপর আসামি ৬৫২টি চেকের মাধ্যমে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের স্বাক্ষর জাল করে ২০ কোটি ৫৯ লাখ ৫৩ হাজার ৫১৬ টাকা ৬ পয়সা উত্তোলন করে তা আত্মসাৎ করেন। সেই টাকা দিয়ে আসামি বিভিন্ন সময় নামে বেনামে সম্পদ ক্রয় করেছেন।

ওই ঘটনায় বিআইডব্লিউটিএ’র উপ-পরিচালক মো. বেনজীর আহমেদ মানিলন্ডারিং প্রতিরোধ আইনের ৪(২) ধারায় মামলাটি দায়ের করেন।

২০১২ সালের ৫ আগস্ট মামলাটি তদন্ত করে উক্ত আসামির বিরুদ্ধে অভিযোগপত্র দাখিল করেন। মামলায় ১৯ জনের সাক্ষ্যগ্রহণ শেষে এ রায় দিয়েছেন আদালত।