ঢাকা ০৫:১৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :




পুলিশের ছররা গুলিতে বিদ্ধ বিএনপির তিনজন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:৪৬:৫৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮ ১৬ বার পড়া হয়েছে

 

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জ সদর আসনে পুলিশের ছররা গুলিতে বিদ্ধ হয়েছেন বিএনপির তিনজন। একজন নারীর দুই চোখে গুলি লেগেছে। আহত হয়েছেন বিএনপির প্রার্থী রোমানা মাহমুদও।

শুক্রবার সন্ধ্যায় শহরের আইআই কলেজ রোড ও বিএনপি কার্যালয়ের পাশে এই ঘটনা ঘটে। এ সময় সংঘর্ষে পুলিশের একটি গাড়ির কাঁচ ভাঙা হয়েছে।

গুলিবিদ্ধরা হলেন, রুবেল, দিগন্ত ও মেরিনা। এরা সবাই যুবদল কর্মী। এদের মধ্যে মেরিনার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এই ঘটনায় পুলিশ ও বিএনপির পক্ষ থেকে দুই ধরনের ভাষ্য পাওয়া গেছে। বিএনপির দাবি, তাদের ওপর গুলি করা হয়েছে বিনা উস্কানিতে। আর পুলিশের দাবি, তাদের গাড়িতে হামলা করেছিল বিএনপির কর্মীরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে তারা ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হয়।

জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান বাচ্চু জানান, নির্বাচনী প্রচারণার জন্য রোমানার বাসার সামনে থেকে মিছিল নিয়ে বিএনপি কার্যালয়ের দিকে আসছিলেন। এ সময় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বিএনপি কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়ে থাকেন। বিষয়টি জানালে পুলিশ দলীয় কার্যালয়ের পাশে অবস্থান নেয়।

‘সন্ধ্যার পর আমরা কলেজ রোড দিয়ে মিছিল নিয়ে মোড়ে যাবার পরই পুলিশ টিয়ারশেল-রাবার বুলেট নিক্ষেপ করলে সংঘর্ষ বেঁধে যায়।’

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ দাউদ বলেন, টহল দেওয়ার সময় বিএনপি নেতাকর্মীরা তাদের গাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় পুলিশ রাবার বুলেট ও কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এই ঘটনায় পুলিশেরও বেশ কয়েকজন সদস্য আহত হয় বলে দাবি এই কর্মকর্তার।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




পুলিশের ছররা গুলিতে বিদ্ধ বিএনপির তিনজন

আপডেট সময় : ১০:৪৬:৫৮ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৮

 

সিরাজগঞ্জ প্রতিনিধিঃ সিরাজগঞ্জ সদর আসনে পুলিশের ছররা গুলিতে বিদ্ধ হয়েছেন বিএনপির তিনজন। একজন নারীর দুই চোখে গুলি লেগেছে। আহত হয়েছেন বিএনপির প্রার্থী রোমানা মাহমুদও।

শুক্রবার সন্ধ্যায় শহরের আইআই কলেজ রোড ও বিএনপি কার্যালয়ের পাশে এই ঘটনা ঘটে। এ সময় সংঘর্ষে পুলিশের একটি গাড়ির কাঁচ ভাঙা হয়েছে।

গুলিবিদ্ধরা হলেন, রুবেল, দিগন্ত ও মেরিনা। এরা সবাই যুবদল কর্মী। এদের মধ্যে মেরিনার অবস্থা আশঙ্কাজনক।

এই ঘটনায় পুলিশ ও বিএনপির পক্ষ থেকে দুই ধরনের ভাষ্য পাওয়া গেছে। বিএনপির দাবি, তাদের ওপর গুলি করা হয়েছে বিনা উস্কানিতে। আর পুলিশের দাবি, তাদের গাড়িতে হামলা করেছিল বিএনপির কর্মীরা। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে তারা ব্যবস্থা নিতে বাধ্য হয়।

জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক সাইদুর রহমান বাচ্চু জানান, নির্বাচনী প্রচারণার জন্য রোমানার বাসার সামনে থেকে মিছিল নিয়ে বিএনপি কার্যালয়ের দিকে আসছিলেন। এ সময় আওয়ামী লীগের নেতাকর্মীরা বিএনপি কার্যালয়ের সামনে অবস্থান নিয়ে থাকেন। বিষয়টি জানালে পুলিশ দলীয় কার্যালয়ের পাশে অবস্থান নেয়।

‘সন্ধ্যার পর আমরা কলেজ রোড দিয়ে মিছিল নিয়ে মোড়ে যাবার পরই পুলিশ টিয়ারশেল-রাবার বুলেট নিক্ষেপ করলে সংঘর্ষ বেঁধে যায়।’

সদর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা মোহাম্মদ দাউদ বলেন, টহল দেওয়ার সময় বিএনপি নেতাকর্মীরা তাদের গাড়িতে হামলা চালায়। এ সময় পুলিশ রাবার বুলেট ও কাঁদানে গ্যাস ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এই ঘটনায় পুলিশেরও বেশ কয়েকজন সদস্য আহত হয় বলে দাবি এই কর্মকর্তার।