ঢাকা ০২:৩৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ২৪ মাঘ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo ঐতিহ্যবাহী সোহরাওয়ার্দী কলেজ সাংবাদিক সমিতির কমিটি গঠন Logo চেয়ারম্যানের আহ্লাদে বেপরোয়া বিআইডব্লিউটিএ‘র কর্মচারি পান্না বিশ্বাস! Logo রাজউকে বদলী ও পদায়নে ভয়ংকর দুর্নীতি ফাঁস: নেপথ্য নায়ক প্রধান প্রকৌশলী  Logo কুবির শেখ হাসিনা হলের গ্যাস লিক, আতঙ্কে শিক্ষার্থীরা Logo ইন্টার্ন চিকিৎসকের হাত-পা ভেঙে দিলেন সহকর্মীরা Logo ঐতিহ্যবাহী শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজে অফিসার্স কাউন্সিল নির্বাচন অনুষ্ঠিত  Logo একজন মমতাময়ী মায়ের উদাহরণ শাবির প্রাধ্যক্ষ জোবেদা কনক Logo বাংলা বিভাগের নতুন চেয়ারম্যান ড. শামসুজ্জামান মিলকী Logo মেট্রোপলিটন ইউনিভার্সিটি শিক্ষার্থীদের দক্ষ জনশক্তি ও উদ্যোক্তা তৈরীতে ভূমিকা রাখবেঃ ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ জহিরুল হক  Logo কুবিতে প্রক্টরের সামনে সহকারী প্রক্টরকে মারতে তেড়ে গেলেন ২ নেতা




যেকোনো ভারতীয় পাইলটকে মুহূর্তে হস্তান্তর

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৫:৩০:৫৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১ মার্চ ২০১৯ ৩৫ বার পড়া হয়েছে

পাকিস্তানের হাতে আটক ভারতীয় পাইলট উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে নিয়ে লাহোর পৌঁছেছেন পাকিস্তানি কর্মকর্তারা। ওয়াঘা-আতারি সীমান্ত দিয়ে অল্প সময়ের মধ্যে তাকে ভারতীয় কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করা হবে। পাকিস্তানি গণমাধ্যম ডন এ খবর দিয়েছে। এর আগে শুক্রবার সকালে ওই পাইলটকে নিয়ে সড়ক পথে লাহোরের উদ্দেশ্যে রওনা হন পাকিস্তানি কর্মকর্তারা।

পাক পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে ডন আরো জানিয়েছে, ভারতীয় হাইকমিশনের অ্যাটাশে জে টি ক্যুরিয়েন অভিনন্দনের সঙ্গে রয়েছেন। এদিকে, ভারতীয় বিমানবাহিনী জানিয়েছে, লাহোরে মুক্তির পর অভিনন্দনকে অমৃতসর হয়ে দিল্লিতে নিয়ে যাওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান পার্লামেন্টে ঘোষণা দেন যে, শান্তির নিদর্শন হিসেবে আগামীকালই (আজ) ভারতীয় পাইলটকে মুক্তি দেওয়া হবে। এ সিদ্ধান্তের কারণে জাতীয়, আন্তর্জাতিক এমনকি ভারতীয়দেরও প্রশংসা কুড়াচ্ছেন পাক প্রধানমন্ত্রী।

এর আগে বুধবার সকালে পাকিস্তানি বিমানবাহিনী ভারতের দুটি যুদ্ধবিমান গুলি করে ভূপাতিত করে এবং ওই ভারতীয় পাইলটকে আটক করে। তার আগে মঙ্গলবার ভোররাতে পাকিস্তানের বালাকোট, চাটোকি ও মুজাফফরাবাদ সীমান্তে হামলা চালায় ভারতীয় বিমানবাহিনী।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের পুলওয়ামায় আত্মঘাতী হামলাকে কেন্দ্র করে সাম্প্রতিক পাক-ভারত উত্তেজনা শুরু হয়। ওই হামলায় ৪৯ ভারতীয় সেনা নিহত হয়।

অন্যদিকে, অভিনন্দনের মুক্তির খবর শুনেই শুক্রবার সকাল থেকে ওয়াঘা সীমান্তে হাজির হয়েছেন কয়েক শ ভারতীয়। তারা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন কখন মুক্তি দেওয়া হবে অভিনন্দনকে।

গণমাধ্যমকে জানিয়েছে, ইতিমধ্যেই ওয়াঘা সীমান্তে পৌঁছে গেছেন অভিনন্দনের বাবা এয়ার মার্শাল এস বর্তমান এবং মা শোভা বর্তমান। এ ছাড়া ভারতীয় বিমানবাহিনী ও সেনাবাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তারাও ওয়াঘা সীমান্তে উপস্থিত আছেন।

একটি সূত্রের বরাত দিয়ে ভারতীয় গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, অভিনন্দনকে বিমানে ভারতে ফেরত পাঠানো হোক— এমনটাই নাকি ইসলামাবাদের কাছে অনুরোধ জানিয়েছিল নয়া দিল্লি। কিন্তু ইসলামাবাদ সেই অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করে জানিয়ে দেয়, ওয়াঘা-আতারি সীমান্ত দিয়েই অভিনন্দনকে তুলে দেওয়া হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




যেকোনো ভারতীয় পাইলটকে মুহূর্তে হস্তান্তর

আপডেট সময় : ০৫:৩০:৫৬ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১ মার্চ ২০১৯

পাকিস্তানের হাতে আটক ভারতীয় পাইলট উইং কমান্ডার অভিনন্দন বর্তমানকে নিয়ে লাহোর পৌঁছেছেন পাকিস্তানি কর্মকর্তারা। ওয়াঘা-আতারি সীমান্ত দিয়ে অল্প সময়ের মধ্যে তাকে ভারতীয় কর্মকর্তাদের কাছে হস্তান্তর করা হবে। পাকিস্তানি গণমাধ্যম ডন এ খবর দিয়েছে। এর আগে শুক্রবার সকালে ওই পাইলটকে নিয়ে সড়ক পথে লাহোরের উদ্দেশ্যে রওনা হন পাকিস্তানি কর্মকর্তারা।

পাক পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বরাত দিয়ে ডন আরো জানিয়েছে, ভারতীয় হাইকমিশনের অ্যাটাশে জে টি ক্যুরিয়েন অভিনন্দনের সঙ্গে রয়েছেন। এদিকে, ভারতীয় বিমানবাহিনী জানিয়েছে, লাহোরে মুক্তির পর অভিনন্দনকে অমৃতসর হয়ে দিল্লিতে নিয়ে যাওয়া হবে।

প্রসঙ্গত, গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান পার্লামেন্টে ঘোষণা দেন যে, শান্তির নিদর্শন হিসেবে আগামীকালই (আজ) ভারতীয় পাইলটকে মুক্তি দেওয়া হবে। এ সিদ্ধান্তের কারণে জাতীয়, আন্তর্জাতিক এমনকি ভারতীয়দেরও প্রশংসা কুড়াচ্ছেন পাক প্রধানমন্ত্রী।

এর আগে বুধবার সকালে পাকিস্তানি বিমানবাহিনী ভারতের দুটি যুদ্ধবিমান গুলি করে ভূপাতিত করে এবং ওই ভারতীয় পাইলটকে আটক করে। তার আগে মঙ্গলবার ভোররাতে পাকিস্তানের বালাকোট, চাটোকি ও মুজাফফরাবাদ সীমান্তে হামলা চালায় ভারতীয় বিমানবাহিনী।

গত ১৪ ফেব্রুয়ারি ভারত নিয়ন্ত্রিত কাশ্মীরের পুলওয়ামায় আত্মঘাতী হামলাকে কেন্দ্র করে সাম্প্রতিক পাক-ভারত উত্তেজনা শুরু হয়। ওই হামলায় ৪৯ ভারতীয় সেনা নিহত হয়।

অন্যদিকে, অভিনন্দনের মুক্তির খবর শুনেই শুক্রবার সকাল থেকে ওয়াঘা সীমান্তে হাজির হয়েছেন কয়েক শ ভারতীয়। তারা অধীর আগ্রহে অপেক্ষা করছেন কখন মুক্তি দেওয়া হবে অভিনন্দনকে।

গণমাধ্যমকে জানিয়েছে, ইতিমধ্যেই ওয়াঘা সীমান্তে পৌঁছে গেছেন অভিনন্দনের বাবা এয়ার মার্শাল এস বর্তমান এবং মা শোভা বর্তমান। এ ছাড়া ভারতীয় বিমানবাহিনী ও সেনাবাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তারাও ওয়াঘা সীমান্তে উপস্থিত আছেন।

একটি সূত্রের বরাত দিয়ে ভারতীয় গণমাধ্যমে বলা হয়েছে, অভিনন্দনকে বিমানে ভারতে ফেরত পাঠানো হোক— এমনটাই নাকি ইসলামাবাদের কাছে অনুরোধ জানিয়েছিল নয়া দিল্লি। কিন্তু ইসলামাবাদ সেই অনুরোধ প্রত্যাখ্যান করে জানিয়ে দেয়, ওয়াঘা-আতারি সীমান্ত দিয়েই অভিনন্দনকে তুলে দেওয়া হবে।