বর্জ্য ব্যবস্থাপনায় পরিবর্তন এনেছে ডিএসসিসি

সকালের সংবাদ ডেস্ক;সকালের সংবাদ ডেস্ক;
  প্রকাশিত হয়েছেঃ  ০৯:৪১ পূর্বাহ্ণ, ২৫ জুলাই ২০২০

নিজস্ব প্রতিবেদক;

রাজধানীতে প্রতিনিয়ত বাড়ছে সমস্যার পরিধি। এখানে নিত্যদিনের বড় এক সমস্যার নাম বর্জ্য। বাসা-বাড়ির ময়লাসহ রাজধানীতে প্রতিদিন উৎপন্ন হয় ব্যাপক পরিমাণে বর্জ্য। এসব বর্জ্য অপসারণে প্রতিনিয়ত হিমশিম খেতে হয় ঢাকার দুই সিটি করপোরেশনকে। এ অবস্থায় বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রমে পরিবর্তন এনে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রমের নতুন সময়সূচি ও পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন (ডিএসসিসি)।

ডিএসসিসির বর্জ্য ব্যবস্থাপনা বিভাগ সূত্রে জানা গেছে, নতুন কার্যক্রম অনুযায়ী সংস্থাটির প্রাথমিক বর্জ্য সেবা প্রদানকারী (পিসিএসপি) সন্ধ্যা ৬টা হতে রাত ১০ টার মধ্যে ওয়ার্ডভিত্তিক নির্ধারিত স্থানে বর্জ্য ফেলবে। অন্তর্বর্তীকালীন বজ্য স্থানান্তর কেন্দ্রে (এসটিএস) রাত ৮টা হতে বর্জ্য স্থানান্তর শুরু হবে এবং ভোর ৬টার ওয়ার্ডভিত্তিক নির্ধারিত স্থান সম্পূর্ণ পরিষ্কার করা হবে। এ ছাড়া রাত ১০টা হতে সকাল ৬ টার মধ্যে ল্যান্ডফিলে বর্জ্য পরিবহন শেষ করবে সংস্থাটি।

অন্যদিকে রাত ৯টা হতে ভোর ৫টার মধ্যে রাস্তা, ফুটপাত পরিষ্কার করা হবে। পাশাপাশি সকাল ৬টা হতে কাজ শেষ না হওয়া পর্যন্ত স্টর্ম সুয়্যারেজ লাইন (বক্স কালভার্ট) পরিষ্কার করবে তারা। খোলা নর্দমা, পাইপ নর্দমা পরিষ্কার সকাল ৬টা হতে সকাল ৯ টার মধ্যে করা হবে (মশার ওষুধ ছেটানোর আগে)। প্রতি মাসের ১ ও ১৬ তারিখে চক্রাকারে নিয়মিত প্রণয়নকৃত সূচি মোতাবেক চলবে কার্যক্রম। রাস্তাভিত্তিক পরিচ্ছন্নতাকর্মীর কর্ম বণ্টন করে সুনির্দিষ্ট আকারে পরিচ্ছন্নতাকর্মীর প্রণীত তালিকা অনুযায়ী রাস্তা পরিষ্কার করা হবে।

বর্জ্য ব্যবস্থাপনা সূত্রে জানা গেছে, ডিএসসিসির প্রতিটি ওয়ার্ডে একটি করে এসটিএস (বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ভবন বা সেকেন্ডারি ট্রান্সফার স্টেশন) নির্মাণের কার্যক্রম গ্রহণ করা হয়েছে। ইতোমধ্যে ২৪টি এসটিএস নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হয়েছে। ৭ টি এসটিএসের নির্মাণ কাজ চলমান। সব ওয়ার্ডে একটি করে এসটিএস নির্মাণ সম্পন্ন হলে ২০২১ সাল হতে উন্মুক্ত স্থানে আর কোনো বর্জ্য পড়ে থাকতে দেবে না ঢাকা দক্ষিণ সিট করপোরেশন।

গত ১৫ জুলাই থেকে ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশন এলাকা ধানমন্ডি থেকে নতুন আঙ্গিকে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন ডিএসসিসি মেয়র ব্যারিস্টার শেখ ফজলে নূর তাপস।

এ বিষয়ে মেয়র তাপস বলেন, নির্বাচনী ইশতেহারে আমি বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রমকে ঢেলে সাজানোর ওয়াদা করেছিলাম। সেই আলোকে আমরা নতুন আঙ্গিকে বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কার্যক্রম শুরু করছি। এই কার্যক্রমের আওতায় এখন থেকে ৭৫টি ওয়ার্ডে একসাথে সন্ধ্যা ৬টা হতে বর্জ্য সংগ্রহ কার্যক্রম শুরু হবে এবং সকাল ৬টার মধ্যে এই শহর পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন নগরী হিসেবে আত্মপ্রকাশ করবে।

তিনি বলেন, আমি বিশ্বাস করি, একদিন ঢাকা শহর শুধু বাংলাদেশের মধ্যেই নয়, বিশ্বের বুকেও একটি পরিচ্ছন্ন নগরী হিসেবে প্রতিষ্ঠিত পাবে। সন্ধ্যা ৬টা হতে আমাদের প্রাথমিক বজ্য সংগ্রহ সেবাদানকারীরা (প্রাইমারি কালেকশন সার্ভিস প্রোভাইডার -পিসিএসপি) বাসাবাড়ি থেকে রাত ১০টার মধ্যে বর্জ্য সংগ্রহ করে আমাদের নির্ধারিত কন্টেইনার বা অন্তর্বর্তীকালীন বর্জ্য ব্যবস্থাপনা কেন্দ্রে (সেকেন্ডারি ট্রান্সফার স্টেশন-এসটিএস) নিয়ে যাবে এবং রাত ১০টা হতে ভোর ৬টার মধ্যে আমরা সব বর্জ্য মাতুয়াইলের ল্যান্ডফিলে নিয়ে যাব।

তাপস আরও বলেন, একই সঙ্গে রাত ৯টা হতে ভোর ৫টার মধ্যে আমাদের পরিচ্ছন্নতাকর্মীরা সব রাস্তা ঝাড় দেবে। তারপর প্রয়োজনীয়তা অনুসারে মূল সড়কগুলোতে পানি ছিটানো হবে। তাই, নতুন এ কার্যক্রমের আওতায় সন্ধ্যা ৬টা হতে ভোর ৬টার মধ্যে আমরা বর্জ্য ব্যবস্থাপনা ও পরিষ্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রম শেষ করব।

 

আপনার মতামত লিখুন :