ঢাকা ০৩:৫৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo আবাসিক হল ছাড়ছে শাবি শিক্ষার্থীরা Logo নিরাপত্তার স্বার্থে শাবি শিক্ষার্থীদের আইডিকার্ড সাথে রাখার আহবান বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের Logo জনস্বাস্থ্যের প্রধান সাধুর যত অসাধু কর্ম: দুর্নীতি ও অর্থ পাচারের অভিযোগ! Logo বিআইডব্লিউটিএ বন্দর শাখা যুগ্ম পরিচালক আলমগীরের দুর্নীতি ও ঘুষ বাণিজ্য  Logo রাজশাহীতে এটিএন বাংলার সাংবাদিক সুজাউদ্দিন ছোটনকে হয়রানিমূলক মামলায় বএিমইউজরে নিন্দা ও প্রতিবাদ Logo শিক্ষার্থীদের তথ্য প্রযুক্তিতে দক্ষ হয়ে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ায় অবদান রাখতে হবেঃ ড. তৌফিক রহমান চৌধুরী Logo ‘কানামাছি শিশুসাহিত্য পুরস্কার ২০২৪’ পেলেন লেখক Logo মধ্যরাতে শাবি ছাত্রলীগের ‘ তুমি কে, আমি কে- বাঙ্গালী, বাঙ্গালী’ শ্লোগানে উত্তাল ক্যাম্পাস Logo আম নিয়ে কষ্টগাঁথা Logo ঘুমান্ত বিবেক মাতাল আবেগ’ – আকাশমণি




জোর করে আবাসিক স্কুলে ভর্তি করায় কিশোরীর আত্মহত্যা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:৩১:২১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০১৯ ৭১ বার পড়া হয়েছে

জেলা প্রতিনিধি;
দিনাজপুরের চিরিরবন্দরের একটি বেসরকারি আবাসিক স্কুলে ইচ্ছার বিরুদ্ধে ভর্তি করায় স্কুল ক্যাম্পাসে আত্মহত্যা করেছে ৮ম শ্রেণির এক ছাত্রী। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দিনাজপুরের চিরিরচন্দরের ঘুঘুরাতলী ড্যাফডিল রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুলে এই ঘটনা ঘটে।

ওই ছাত্রীর নাম হাসনাতুন তুরিন (১৪)। সে ঠাকুরগাঁও জেলার সদর উপজেলার গোবিন্দনগর গ্রামের হারেসুল ইসলামের মেয়ে।

পুলিশ জানায়, হাসনাতুন তুরিন ঠাকুরগাঁওয়ে একটি স্কুলে পড়ালেখা করত। সেই সুবাদে একটি ছেলের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। যা তার পরিবার মেনে নিতে পারেনি। সম্প্রতি ছেলেটি অসুস্থ হয়ে মারা যায়। এরপর গত ৩ মাস আগে তুরিনকে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে দিনাজপুরের চিরিরচন্দরের ঘুঘুরাতলী ড্যাফডিল রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুলে ভর্তি করা হয়।

সে বাড়িতে থেকেই পড়ালেখা চালিয়ে যেতে চেয়েছিল। কিন্তু তার বাবা-মা তাকে জোর করে আবাসিকে রেখে যায়। ঈদের ছুটি শেষে গত বুধবার তাকে আবারও ইচ্ছার বিরুদ্ধে ওই স্কুলে রেখে যাওয়া হয়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সবাইকে নামাজের জন্য ডাকলে তুরিন নামাজে না গিয়ে স্কুলের দ্বিতীয় তলায় বেলকনিতে ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে।

খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। কোনো অভিযোগ না থাকায় রাতেই লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। শুক্রবার সকাল ১০টায় গোবিন্দনগরে জানাজা শেষে পারিবারিক গোরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ড্যাফডিল রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুলের অধ্যক্ষ মো. মশিউর রহমান জানান, পরিবারের লোকজন তাদেরকে এ বিষয়ে কিছু জানায়নি। জানলে হয়ত তারা ওই ছাত্রীর প্রতি বিশেষ খেয়াল রাখতে পারতেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে চিরিরবন্দর থানা পুলিশের ওসি হারেসুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, কোনো অভিযোগ না থাকায় লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




জোর করে আবাসিক স্কুলে ভর্তি করায় কিশোরীর আত্মহত্যা

আপডেট সময় : ০১:৩১:২১ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ১৪ জুন ২০১৯

জেলা প্রতিনিধি;
দিনাজপুরের চিরিরবন্দরের একটি বেসরকারি আবাসিক স্কুলে ইচ্ছার বিরুদ্ধে ভর্তি করায় স্কুল ক্যাম্পাসে আত্মহত্যা করেছে ৮ম শ্রেণির এক ছাত্রী। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় দিনাজপুরের চিরিরচন্দরের ঘুঘুরাতলী ড্যাফডিল রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুলে এই ঘটনা ঘটে।

ওই ছাত্রীর নাম হাসনাতুন তুরিন (১৪)। সে ঠাকুরগাঁও জেলার সদর উপজেলার গোবিন্দনগর গ্রামের হারেসুল ইসলামের মেয়ে।

পুলিশ জানায়, হাসনাতুন তুরিন ঠাকুরগাঁওয়ে একটি স্কুলে পড়ালেখা করত। সেই সুবাদে একটি ছেলের সঙ্গে তার পরিচয় হয়। যা তার পরিবার মেনে নিতে পারেনি। সম্প্রতি ছেলেটি অসুস্থ হয়ে মারা যায়। এরপর গত ৩ মাস আগে তুরিনকে তার ইচ্ছার বিরুদ্ধে দিনাজপুরের চিরিরচন্দরের ঘুঘুরাতলী ড্যাফডিল রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুলে ভর্তি করা হয়।

সে বাড়িতে থেকেই পড়ালেখা চালিয়ে যেতে চেয়েছিল। কিন্তু তার বাবা-মা তাকে জোর করে আবাসিকে রেখে যায়। ঈদের ছুটি শেষে গত বুধবার তাকে আবারও ইচ্ছার বিরুদ্ধে ওই স্কুলে রেখে যাওয়া হয়। বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সবাইকে নামাজের জন্য ডাকলে তুরিন নামাজে না গিয়ে স্কুলের দ্বিতীয় তলায় বেলকনিতে ফ্যানের সঙ্গে ওড়না পেঁচিয়ে আত্মহত্যা করে।

খবর পেয়ে লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। কোনো অভিযোগ না থাকায় রাতেই লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। শুক্রবার সকাল ১০টায় গোবিন্দনগরে জানাজা শেষে পারিবারিক গোরস্থানে তাকে দাফন করা হয়।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে ড্যাফডিল রেসিডেন্সিয়াল মডেল স্কুলের অধ্যক্ষ মো. মশিউর রহমান জানান, পরিবারের লোকজন তাদেরকে এ বিষয়ে কিছু জানায়নি। জানলে হয়ত তারা ওই ছাত্রীর প্রতি বিশেষ খেয়াল রাখতে পারতেন।

এ ব্যাপারে জানতে চাইলে চিরিরবন্দর থানা পুলিশের ওসি হারেসুল ইসলাম ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, কোনো অভিযোগ না থাকায় লাশ পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে।