ঢাকা ১২:৪৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo রূপালী ব্যাংকের ডিজিএম কর্তৃক সহকর্মী নারীকে যৌন হয়রানি: ধামাচাপা দিতে মরিয়া তদন্ত কমিটি Logo প্রতিবন্ধী ভাতার টাকা হাতিয়ে বহাল তবিয়তে মাদারীপুরের দুই সহকারী সমাজসেবা অফিসারl Logo যমুনা লাইফের গ্রাহক প্রতারণায় ‘জড়িতরা’ কে কোথায় Logo ঢাকাস্থ ভোলা সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি আহসান কামরুল, সম্পাদক জিয়াউর রহমান Logo টাটা মটরস বাংলাদেশে উদ্বোধন করলো টাটা যোদ্ধা Logo আশা শিক্ষা কর্মসূচী কর্তৃক অভিভাবক মতবিনিময় সভা Logo গণপূর্ত প্রধান প্রকৌশলীর গাড়ি চাপায় পিষ্ট সহকারী প্রকৌশলী -উত্তাল গণপূর্ত Logo শাবিপ্রবির বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ Logo সওজের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী নাহিনুরের সীমাহীন সম্পদ ও অনিয়ম -পর্ব-০১ Logo তামাক সেবনের আলাদা কক্ষ বানালেন গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলী: রয়েছে দুর্নীতির পাহাড়সম অভিযোগ!




আ. লীগ অফিসে ঢুকে যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৩:৪৮:২৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯ ৬০ বার পড়া হয়েছে

বগুড়া প্রতিনিধি |

বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে রতন মিয়া আকন্দ (২৭) নামে এক যুবলীগ নেতাকে আওয়ামী লীগ অফিসে ঢুকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নিহত রতন উপজেলার ফুলবাড়ি ইউনিয়নের কাঁঠাখালি গ্রামের ইদ্রিস আকন্দের ছেলে এবং রামচন্দ্রপুর সাংগঠনিক ইউনিয়ন যুবলীগের নির্বাহী সদস্য। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ একজনকে আটক করেছে।

নিহতের চাচাতো ভাই বিপুল ইসলাম জানান, রতন গাজীপুরে রিকশা চালাতেন ও তার স্ত্রী ময়না আকতার সেখানে একটি গার্মেন্টসে কাজ করেন।

তিনি বলেন, সংসদ নির্বাচনের সময় রতনের সঙ্গে ভোটের প্রচারণা নিয়ে সারিয়াকান্দি উপজেলার ফুলবাড়ি ইউপি সদস্য ও বিএনপি নেতা ফজলু প্রামাণিকের বিরোধ হয়। ভোটের পর রতন তার স্ত্রীকে নিয়ে গাজীপুরে চলে যায়। কয়েক দিন আগে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধনের জন্য রতন গ্রামের বাড়িতে আসে।

নিহত রতনের চাচা রামচন্দ্রপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফজলুল করিম লিপু জানান, সোমবার ইফতারের আগে রতন তার বন্ধু মিজানুরের সাথে ইফতার করতে রামচন্দ্রপুর বাজারে যায়। ইফতারের পরপরই ফুলবাড়ি ইউনিয়ন বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের কয়েকজন নেতাকর্মী তার ওপরে হামলা চালায়। সেসময় রতন দৌড়ে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে আশ্রয় নেয়। হামলাকারীরা সেই কার্যালয়ের ভেতরে ঢুকে তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে উপর্যুপরি কুপিয়ে ফেলে রেখে যায়।

পরে মুমূর্ষু অবস্থায় রতনকে প্রথমে সারিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে রাতেই বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে নেওয়ার কিছু পর চিকিৎসকরা রতনকে মৃত ঘোষণা করেন।

সারিয়াকান্দি থানার পুলিশ পরিদর্শক এনায়েতুর রহমান জানান, মঙ্গলবার সকালে লাশ ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। বেলা ১১টার দিকে তার মরদেহ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন হয়েছে। পরিবার থেকে পরে মামলা দায়ের করা হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ইতিমধ্যে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য লোকমান প্রামাণিক নামের এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। হামলার পরপরই জড়িতরা গা ঢাকা দিয়েছে, তাদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলেও উল্লেখ করেন পুলিশের এই কর্মকর্তা।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




আ. লীগ অফিসে ঢুকে যুবলীগ নেতাকে কুপিয়ে হত্যা

আপডেট সময় : ০৩:৪৮:২৩ অপরাহ্ন, মঙ্গলবার, ২১ মে ২০১৯

বগুড়া প্রতিনিধি |

বগুড়ার সারিয়াকান্দিতে রতন মিয়া আকন্দ (২৭) নামে এক যুবলীগ নেতাকে আওয়ামী লীগ অফিসে ঢুকে কুপিয়ে হত্যা করেছে দুর্বৃত্তরা। নিহত রতন উপজেলার ফুলবাড়ি ইউনিয়নের কাঁঠাখালি গ্রামের ইদ্রিস আকন্দের ছেলে এবং রামচন্দ্রপুর সাংগঠনিক ইউনিয়ন যুবলীগের নির্বাহী সদস্য। এ ঘটনায় জিজ্ঞাসাবাদের জন্য পুলিশ একজনকে আটক করেছে।

নিহতের চাচাতো ভাই বিপুল ইসলাম জানান, রতন গাজীপুরে রিকশা চালাতেন ও তার স্ত্রী ময়না আকতার সেখানে একটি গার্মেন্টসে কাজ করেন।

তিনি বলেন, সংসদ নির্বাচনের সময় রতনের সঙ্গে ভোটের প্রচারণা নিয়ে সারিয়াকান্দি উপজেলার ফুলবাড়ি ইউপি সদস্য ও বিএনপি নেতা ফজলু প্রামাণিকের বিরোধ হয়। ভোটের পর রতন তার স্ত্রীকে নিয়ে গাজীপুরে চলে যায়। কয়েক দিন আগে ভোটার আইডি কার্ড সংশোধনের জন্য রতন গ্রামের বাড়িতে আসে।

নিহত রতনের চাচা রামচন্দ্রপুর ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ফজলুল করিম লিপু জানান, সোমবার ইফতারের আগে রতন তার বন্ধু মিজানুরের সাথে ইফতার করতে রামচন্দ্রপুর বাজারে যায়। ইফতারের পরপরই ফুলবাড়ি ইউনিয়ন বিএনপি ও সহযোগী সংগঠনের কয়েকজন নেতাকর্মী তার ওপরে হামলা চালায়। সেসময় রতন দৌড়ে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে আশ্রয় নেয়। হামলাকারীরা সেই কার্যালয়ের ভেতরে ঢুকে তাকে ধারালো অস্ত্র দিয়ে উপর্যুপরি কুপিয়ে ফেলে রেখে যায়।

পরে মুমূর্ষু অবস্থায় রতনকে প্রথমে সারিয়াকান্দি উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হয়। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে রাতেই বগুড়া শহীদ জিয়াউর রহমান মেডিকেল কলেজ (শজিমেক) হাসপাতালে স্থানান্তর করা হয়। সেখানে নেওয়ার কিছু পর চিকিৎসকরা রতনকে মৃত ঘোষণা করেন।

সারিয়াকান্দি থানার পুলিশ পরিদর্শক এনায়েতুর রহমান জানান, মঙ্গলবার সকালে লাশ ময়নাতদন্ত শেষে পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়। বেলা ১১টার দিকে তার মরদেহ পারিবারিক কবরস্থানে দাফন সম্পন্ন হয়েছে। পরিবার থেকে পরে মামলা দায়ের করা হবে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ইতিমধ্যে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য লোকমান প্রামাণিক নামের এক ব্যক্তিকে আটক করা হয়েছে। হামলার পরপরই জড়িতরা গা ঢাকা দিয়েছে, তাদের গ্রেপ্তারে চেষ্টা চালানো হচ্ছে বলেও উল্লেখ করেন পুলিশের এই কর্মকর্তা।