ঢাকা ০২:২৬ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :




কারাগারে আসামিকে পুড়িয়ে মারার চেষ্টার অভিযোগ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:৩৯:০২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ এপ্রিল ২০১৯ ৫৫ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক |
কারাগারের ভেতরে এ্যাড. পলাশ কুমার রায় (৩৭) নামে এক আসামিকে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। তার শরীরের ৪৭ শতাংশ পুড়ে গেছে।

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে পঞ্চগড় জেলা কারাগারে। তবে কারা কর্তৃপক্ষের দাবি, তিনি নিজেই নিজের গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন।

শনিবার রাতে বার্ন ইউনিটের অবজারভেশন ইউনিটে চিকিৎসাধীন পলাশ জানান, অসুস্থ হওয়ায় কারা হাসপাতালে ভর্তি করা হয় আমাকে। সেখানে গত ২৫ মার্চ এসবি পরিচয়ে ৩ জন লোক এসে ছবি তুলে নিয়ে যায়। শুক্রবার সকাল ১১ টার দিকে পুনরায় দুজন লোক তার কাছে আসে এবং কারা হাসপাতালের এক নম্বর ওয়ার্ডের টয়লেটের পাশে নিয়ে তার শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরে তাকে কারা কর্তৃপক্ষ হাসপাতালে ভর্তি করে।

পঞ্চগড় জেলা কারাগারের জেলার মুশফিকুর রহমান জানান, গত ২৬ মার্চ পলাশ রায়কে কারাগারে আনা হয়। তার পায়ের সমস্যার কারণে তাকে কারা হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়। শুক্রবার তাকে পঞ্চগড় থেকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছিল। সেখানে রোববার তার মামলার হাজিরা ছিল। কিন্তু সকালে হঠাৎ টয়লেটের পাশে গিয়ে তিনি নিজের পরনে ট্রাউজারে আগুন ধরিয়ে দেন। পরে কারারক্ষীরা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে জেলা হাসপাতালে এবং পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, পলাশের শরীরের ৪৭ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। বর্তমানে তাকে অবজারভেশনে রাখা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




কারাগারে আসামিকে পুড়িয়ে মারার চেষ্টার অভিযোগ

আপডেট সময় : ১১:৩৯:০২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৭ এপ্রিল ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক |
কারাগারের ভেতরে এ্যাড. পলাশ কুমার রায় (৩৭) নামে এক আসামিকে পুড়িয়ে হত্যাচেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে উদ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের (ঢামেক) বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে। তার শরীরের ৪৭ শতাংশ পুড়ে গেছে।

চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে পঞ্চগড় জেলা কারাগারে। তবে কারা কর্তৃপক্ষের দাবি, তিনি নিজেই নিজের গায়ে আগুন দিয়ে আত্মহত্যার চেষ্টা করেছেন।

শনিবার রাতে বার্ন ইউনিটের অবজারভেশন ইউনিটে চিকিৎসাধীন পলাশ জানান, অসুস্থ হওয়ায় কারা হাসপাতালে ভর্তি করা হয় আমাকে। সেখানে গত ২৫ মার্চ এসবি পরিচয়ে ৩ জন লোক এসে ছবি তুলে নিয়ে যায়। শুক্রবার সকাল ১১ টার দিকে পুনরায় দুজন লোক তার কাছে আসে এবং কারা হাসপাতালের এক নম্বর ওয়ার্ডের টয়লেটের পাশে নিয়ে তার শরীরে আগুন ধরিয়ে দেয়। পরে তাকে কারা কর্তৃপক্ষ হাসপাতালে ভর্তি করে।

পঞ্চগড় জেলা কারাগারের জেলার মুশফিকুর রহমান জানান, গত ২৬ মার্চ পলাশ রায়কে কারাগারে আনা হয়। তার পায়ের সমস্যার কারণে তাকে কারা হাসপাতালে ভর্তি রাখা হয়। শুক্রবার তাকে পঞ্চগড় থেকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে পাঠানোর প্রস্তুতি চলছিল। সেখানে রোববার তার মামলার হাজিরা ছিল। কিন্তু সকালে হঠাৎ টয়লেটের পাশে গিয়ে তিনি নিজের পরনে ট্রাউজারে আগুন ধরিয়ে দেন। পরে কারারক্ষীরা তাকে উদ্ধার করে প্রথমে জেলা হাসপাতালে এবং পরে রংপুর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করে। সেখানে তার অবস্থার অবনতি হলে তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে ভর্তি করা হয়।

ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ন ইউনিটে কর্তব্যরত চিকিৎসক জানান, পলাশের শরীরের ৪৭ শতাংশ দগ্ধ হয়েছে। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক। বর্তমানে তাকে অবজারভেশনে রাখা হয়েছে।