ঢাকা ০৮:৫৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ০১ ডিসেম্বর ২০২২, ১৭ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :




পেকুয়ায় ভোটকেন্দ্রে গুলিবিদ্ধ ৪

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:৩৮:০৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ মার্চ ২০১৯ ১২ বার পড়া হয়েছে

কক্সবাজারের পেকুয়ার মগনামা ইউনিয়নের দক্ষিণ মগনামা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের চারজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। ভোট শুরুর পর, রবিবার (২৪ মার্চ) সকাল ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
গুলিবিদ্ধরা হলেন— আবুল হোছেন, ছাদেক, বদি, রমিজ। তারা মগনামা এলাকার বাসিন্দা। তবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতায় পরিবেশ এখন শান্ত রয়েছে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন নৌকার প্রার্থী আবুল কাশেমের পক্ষে স্থানীয় চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ ওয়াসিম লোকজন নিয়ে কেন্দ্রে ঢুকে ব্যালট পেপারে সিল মারার চেষ্টা করে। এ সময় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমের লোকজন বাধা দেন। এতে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। গোলাগুলি শুরু হলে, উভয় পক্ষের চারজন গুলিবিদ্ধ হন। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রিসাইডিং কর্মকর্তা ওসমান গনি বলেন, ‘কেন্দ্রটি ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। বাইরে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে বলে শুনেছি। যার কারণে ভোটার শূন্য অবস্থায় রয়েছে কেন্দ্রটি। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে জানিয়েছি।’

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসেন বলেন, ‘কেন্দ্রের বাইরে ধাওয়া, পাল্টা-ধাওয়া ও গুলিবিদ্ধের ঘটনা ঘটেছে। তাৎক্ষণিক পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে। এখন ওই কেন্দ্রে ভোটাররা উৎসব মুখর পরিবেশে ভোট দিচ্ছেন। এ ছাড়াও জেলার অন্যান্য কেন্দ্রে অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।’

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




পেকুয়ায় ভোটকেন্দ্রে গুলিবিদ্ধ ৪

আপডেট সময় : ১২:৩৮:০৬ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৪ মার্চ ২০১৯

কক্সবাজারের পেকুয়ার মগনামা ইউনিয়নের দক্ষিণ মগনামা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষ ও গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে। এতে উভয় পক্ষের চারজন গুলিবিদ্ধ হয়েছেন। ভোট শুরুর পর, রবিবার (২৪ মার্চ) সকাল ৯টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
গুলিবিদ্ধরা হলেন— আবুল হোছেন, ছাদেক, বদি, রমিজ। তারা মগনামা এলাকার বাসিন্দা। তবে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর তৎপরতায় পরিবেশ এখন শান্ত রয়েছে।

স্থানীয়রা জানিয়েছেন নৌকার প্রার্থী আবুল কাশেমের পক্ষে স্থানীয় চেয়ারম্যান শরাফত উল্লাহ ওয়াসিম লোকজন নিয়ে কেন্দ্রে ঢুকে ব্যালট পেপারে সিল মারার চেষ্টা করে। এ সময় আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী ও স্বতন্ত্র প্রার্থী জাহাঙ্গীর আলমের লোকজন বাধা দেন। এতে দু’পক্ষের মধ্যে সংঘর্ষের সৃষ্টি হয়। গোলাগুলি শুরু হলে, উভয় পক্ষের চারজন গুলিবিদ্ধ হন। আহতদের স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

প্রিসাইডিং কর্মকর্তা ওসমান গনি বলেন, ‘কেন্দ্রটি ঝুঁকিপূর্ণ অবস্থায় রয়েছে। বাইরে ব্যাপক সংঘর্ষ হয়েছে বলে শুনেছি। যার কারণে ভোটার শূন্য অবস্থায় রয়েছে কেন্দ্রটি। বিষয়টি সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাকে জানিয়েছি।’

কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মো. ইকবাল হোসেন বলেন, ‘কেন্দ্রের বাইরে ধাওয়া, পাল্টা-ধাওয়া ও গুলিবিদ্ধের ঘটনা ঘটেছে। তাৎক্ষণিক পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে। এখন ওই কেন্দ্রে ভোটাররা উৎসব মুখর পরিবেশে ভোট দিচ্ছেন। এ ছাড়াও জেলার অন্যান্য কেন্দ্রে অপ্রীতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।’