ঢাকা ১০:১১ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo এমপি আনার খুন: রহস্যময় রূপে শীর্ষ দুই ব্যবসায়ী Logo রূপালী ব্যাংকের ডিজিএম কর্তৃক সহকর্মী নারীকে যৌন হয়রানি: ধামাচাপা দিতে মরিয়া তদন্ত কমিটি Logo প্রতিবন্ধী ভাতার টাকা হাতিয়ে বহাল তবিয়তে মাদারীপুরের দুই সহকারী সমাজসেবা অফিসারl Logo যমুনা লাইফের গ্রাহক প্রতারণায় ‘জড়িতরা’ কে কোথায় Logo ঢাকাস্থ ভোলা সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি আহসান কামরুল, সম্পাদক জিয়াউর রহমান Logo টাটা মটরস বাংলাদেশে উদ্বোধন করলো টাটা যোদ্ধা Logo আশা শিক্ষা কর্মসূচী কর্তৃক অভিভাবক মতবিনিময় সভা Logo গণপূর্ত প্রধান প্রকৌশলীর গাড়ি চাপায় পিষ্ট সহকারী প্রকৌশলী -উত্তাল গণপূর্ত Logo শাবিপ্রবির বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ Logo সওজের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী নাহিনুরের সীমাহীন সম্পদ ও অনিয়ম -পর্ব-০১




১৪ বছর স্বামীর পিঠে ভর করেই প্রতিবন্ধী রওশনের ভালোবাসার সংসার

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৪:৩৬:২৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২২ ২০০ বার পড়া হয়েছে

সকালের সংবাদ স্পেশাল: দিন তারিখ উদযাপনের মাধ্যমে কখনোই ভালোবাসার পূর্ণতা পায়না কিন্তু ভালোবাসা দিবস আসলেই আমাদের মাঝে লেগে পরে ভালবাসা দেখানো হুরিহুরি। ভালোবাসা আর এই দিবসকে ঘিরে চলে কতইনা রমরমা বাণিজ্য আর অশ্লীলতা। ভালোবাসা দিবসের এই দিনে রওশন সোহেলের ভালোবাসা ও ১৪ বছরের সংসারের গল্প হৃদয় কেড়ে নেবে যে কোন মানুষের।

ময়মনসিংহের রওশনকে দেখে তার প্রেমে পড়ে যায় সোহেল নিজের পায়ে হাঁটতে না পারা রওশনকে ভালোবেসে বিয়ে সংসার পার হয়ে গেছে ১৪ বছর।

১৪ বছর আ‌গের রোমান্টিক হৃদয়স্পর্শী আবেগী ভালোবাসার গল্প। হঠাৎ এক‌দিন রওশন‌কে দে‌খে মুগ্ধ হন সো‌হেল। খোঁজ নি‌য়ে জান‌তে পা‌রেন মে‌য়ে‌টি হাঁট‌তে পা‌রেন না। জানার পর সো‌হে‌লের মুগ্ধতা আ‌রো বেড়ে যায় রওশ‌নের প্রতি। শুরু হয় প্রেম। প্রেমের বিষয়‌টি জে‌নে স্বজনরা রওশন‌কে ব‌লে‌ছিল প্রেম শেষ হ‌য়ে গে‌লেই পা‌লি‌য়ে যা‌বে ছে‌লে‌টি। স্বজন‌দের এ ভাবনাটা যে অমূলক ছিল তা কিন্তু নয়। কার‌ণ চারপা‌শে ঠুন‌কো বিষ‌য়ে তারা শেষ হ‌য়ে যে‌তে দে‌খে‌ছে অ‌নেক মজবুত সম্পর্কও। সেইসব অ‌ভিজ্ঞতা থে‌কেই রওশন‌কে স‌াবধান ক‌রেছি‌লেন তারা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত স্বজন‌দের ভাবনার উ‌ল্টোটা ঘ‌টে‌ছে। প্রেমিকা রওশন‌কে বি‌য়ে ক‌রে‌ছে সো‌হেল। ১৪ বছ‌র ধ‌রে তারা মুগ্ধতার স‌ঙ্গে সংসা‌র কর‌ছে তারা। তা‌দের ঘ‌রে এখন ফুটফুটে এক‌টি কন্যা সন্তান। ১৪ বছর ধ‌রে স্বামী সোহে‌লের পিঠে ভর করি চলাচল করেন রওশ‌ন। স্বামীই তার প্রধান বাহন। যে‌কো‌নো জায়গায় স্বামীর পি‌ঠে উ‌ঠে চ‌লে যায় রওশন।

এ সমা‌জে বহু বুক ভরা ভা‌লোবাসা নি‌শি‌ষেই শে‌ষ হ‌তে দে‌খে‌ছি আমরা। দেখেছ অসংখ্য অশ্লীলতা প্রতারণার কাহিনী। কিন্তু ১৪ বছর ভা‌লোবাসায় মানুষকে বয়ে চললেও ক্লান্ত হ‌তে দে‌খি‌নি ক্লান্ত না হওয়া একজন জীবনসঙ্গী সোহেল। স্ত্রী হি‌সে‌বে রওশ‌নের ম‌তো ভাগ‌্যবান এবং স্বামী হি‌সে‌বে সো‌হে‌লের ম‌তো ভরসার পুরুষ এ সমা‌জে এখন নেই বল‌লেই চ‌লে। আজীবন ভা‌লো থাকুক ওরা। নিপাত যাক সমাজের ভালোবাসার নামে স্বার্থপরতা প্রতারণা।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




১৪ বছর স্বামীর পিঠে ভর করেই প্রতিবন্ধী রওশনের ভালোবাসার সংসার

আপডেট সময় : ০৪:৩৬:২৩ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৪ ফেব্রুয়ারী ২০২২

সকালের সংবাদ স্পেশাল: দিন তারিখ উদযাপনের মাধ্যমে কখনোই ভালোবাসার পূর্ণতা পায়না কিন্তু ভালোবাসা দিবস আসলেই আমাদের মাঝে লেগে পরে ভালবাসা দেখানো হুরিহুরি। ভালোবাসা আর এই দিবসকে ঘিরে চলে কতইনা রমরমা বাণিজ্য আর অশ্লীলতা। ভালোবাসা দিবসের এই দিনে রওশন সোহেলের ভালোবাসা ও ১৪ বছরের সংসারের গল্প হৃদয় কেড়ে নেবে যে কোন মানুষের।

ময়মনসিংহের রওশনকে দেখে তার প্রেমে পড়ে যায় সোহেল নিজের পায়ে হাঁটতে না পারা রওশনকে ভালোবেসে বিয়ে সংসার পার হয়ে গেছে ১৪ বছর।

১৪ বছর আ‌গের রোমান্টিক হৃদয়স্পর্শী আবেগী ভালোবাসার গল্প। হঠাৎ এক‌দিন রওশন‌কে দে‌খে মুগ্ধ হন সো‌হেল। খোঁজ নি‌য়ে জান‌তে পা‌রেন মে‌য়ে‌টি হাঁট‌তে পা‌রেন না। জানার পর সো‌হে‌লের মুগ্ধতা আ‌রো বেড়ে যায় রওশ‌নের প্রতি। শুরু হয় প্রেম। প্রেমের বিষয়‌টি জে‌নে স্বজনরা রওশন‌কে ব‌লে‌ছিল প্রেম শেষ হ‌য়ে গে‌লেই পা‌লি‌য়ে যা‌বে ছে‌লে‌টি। স্বজন‌দের এ ভাবনাটা যে অমূলক ছিল তা কিন্তু নয়। কার‌ণ চারপা‌শে ঠুন‌কো বিষ‌য়ে তারা শেষ হ‌য়ে যে‌তে দে‌খে‌ছে অ‌নেক মজবুত সম্পর্কও। সেইসব অ‌ভিজ্ঞতা থে‌কেই রওশন‌কে স‌াবধান ক‌রেছি‌লেন তারা। কিন্তু শেষ পর্যন্ত স্বজন‌দের ভাবনার উ‌ল্টোটা ঘ‌টে‌ছে। প্রেমিকা রওশন‌কে বি‌য়ে ক‌রে‌ছে সো‌হেল। ১৪ বছ‌র ধ‌রে তারা মুগ্ধতার স‌ঙ্গে সংসা‌র কর‌ছে তারা। তা‌দের ঘ‌রে এখন ফুটফুটে এক‌টি কন্যা সন্তান। ১৪ বছর ধ‌রে স্বামী সোহে‌লের পিঠে ভর করি চলাচল করেন রওশ‌ন। স্বামীই তার প্রধান বাহন। যে‌কো‌নো জায়গায় স্বামীর পি‌ঠে উ‌ঠে চ‌লে যায় রওশন।

এ সমা‌জে বহু বুক ভরা ভা‌লোবাসা নি‌শি‌ষেই শে‌ষ হ‌তে দে‌খে‌ছি আমরা। দেখেছ অসংখ্য অশ্লীলতা প্রতারণার কাহিনী। কিন্তু ১৪ বছর ভা‌লোবাসায় মানুষকে বয়ে চললেও ক্লান্ত হ‌তে দে‌খি‌নি ক্লান্ত না হওয়া একজন জীবনসঙ্গী সোহেল। স্ত্রী হি‌সে‌বে রওশ‌নের ম‌তো ভাগ‌্যবান এবং স্বামী হি‌সে‌বে সো‌হে‌লের ম‌তো ভরসার পুরুষ এ সমা‌জে এখন নেই বল‌লেই চ‌লে। আজীবন ভা‌লো থাকুক ওরা। নিপাত যাক সমাজের ভালোবাসার নামে স্বার্থপরতা প্রতারণা।