• ২৫শে সেপ্টেম্বর ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ১০ই আশ্বিন ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের আর কত গাছ উপড়ে ফেলা হবে?

সকালের সংবাদ ডেস্ক;
প্রকাশিত জানুয়ারি ১, ২০২১, ১২:২০ অপরাহ্ণ
সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের আর কত গাছ উপড়ে ফেলা হবে?

বিশেষ সংবাদদাতা;

রাষ্ট্রীয় গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনার (কেপিআই) অন্তর্ভুক্ত রাজধানীর ঐতিহাসিক সোহরাওয়ার্দী উদ্যানের চৌহদ্দিতে খাবারের রেস্টুরেন্ট স্থাপনের নামে নির্বিচারে গাছ নিধন অব্যাহত রয়েছে। প্রায় প্রতি সপ্তাহেই উদ্যানের ভেতর বিভিন্ন স্থানের বিশাল আকারের তরতাজা গাছ প্রকাশ্যে শিকড় থেকে উপড়ে ফেলা হচ্ছে। গোপনে সেগুলো বিক্রি করে দেয়া হচ্ছে।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যান ঘুরে দেখা গেছে, নতুন নতুন গাছ উপড়ে ফেলা হচ্ছে। উদ্যানে তরতাজা সবুজ পাতাবেষ্টিত গাছগুলো মাটিতে পড়ে আছে। উদ্যানের বিভিন্ন স্থানে এমনকি খোলামাঠেও মাটি কেটে রাস্তা নির্মিত হচ্ছে। এখানে-সেখানে রড, সিমেন্ট ও বালু মজুত রেখে পিলার নির্মাণ ও ঢালাইয়ের কাজ চলছে। সেখানে একাধিক নিরাপত্তাকর্মীকে দাঁড়িয়ে পাহারা দিতে দেখা যায়।

সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে রক্ষণাবেক্ষণের সঙ্গে জড়িত একাধিক কর্মকর্তা-কর্মচারীর সঙ্গে আলাপকালে জানা গেছে, উদ্যানের চৌহদ্দিতে সাতটি রেস্টুরেন্ট নির্মিত হবে। এছাড়া রেস্টুরেন্টগুলোতে আসার জন্য ওয়াকওয়ে নির্মাণের কাজ চলছে। পার্কের বিভিন্ন স্পটে ব্যায়াম করার জন্য স্থাপনা নির্মিত হবে।

উদ্যানের বিভিন্ন স্পট- টিএসসি, রমনা কালীমন্দির, ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউট ও শিশুপার্ক সংলগ্ন প্রবেশদ্বারের পাশে রেস্টুরেন্ট ও অন্যান্য স্থাপনা নির্মাণ কাজ বেশ দ্রুত গতিতে এগিয়ে চলেছে। তবে এসব দেখে হতাশ সোহরাওয়ার্দী উদ্যানে নিয়মিত আসা প্রাতঃভ্রমণকারীরা।

তারা বলছেন, রেস্টুরেন্ট কিংবা ব্যায়ামাগার স্থাপনের ব্যাপারে সরকার তথা সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় সিদ্ধান্ত নিতেই পারে। কিন্তু এভাবে নির্বিচারে তরতাজা গাছ কেটে ফেলার কোনো মানে হয় না। পরিবেশ মন্ত্রণালয় কিংবা পরিবেশবাদী বিভিন্ন সংগঠনেরও এ বিষয়ে কোনো ভ্রূক্ষেপ নেই।

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৪:৩৬
  • ১১:৫৩
  • ৪:১১
  • ৫:৫৬
  • ৭:০৯
  • ৫:৪৭
error: সাইটের কোন তথ্য কপি করা নিষেধ!!