ঢাকা ০৯:২৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ২ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ




শরীয়তপুরে করোনা সন্দেহে বৃদ্ধের মৃত্যু, ৩৩ পরিবার লকডাউন

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:২৮:০৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ৪ এপ্রিল ২০২০ ৬৪ বার পড়া হয়েছে

শরীয়তপুর প্রতিনিধি, 

শরীয়তপুরের নড়িয়ায় জ্বর ও মাথাব্যথায় আক্রান্ত হয়ে আমান উল্লাহ বেপারী (৯০) নামে এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় তার বাড়িসহ আশপাশের ৩৩ পরিবারকে লকডাউনে রাখা হয়েছে।

আজ শনিবার বেলা ১১টার দিকে ওই ব্যক্তি ঢাকার কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

জানা যায়, শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার থিরোপাড়া এলাকায় আমান উল্লাহ বেপারী (৯০) নামে এক ব্যক্তি জ্বর ও মাথা ব্যথা নিয়ে গত ১ এপ্রিল প্রথমে নড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন। পরে সেখানে অবস্থার অবনতি হলে গত বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকার উত্তরায় অবস্থিত কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়। আজ শনিবার ১১টার দিকে তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

এদিকে, ওই ব্যক্তির মারা যাওয়ার খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে তার বাড়িসহ আশপাশের ৩৩টি পরিবারকে লকডাউন করে রেখেছে স্থানীয় প্রশাসন।

নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাফিজুর রহমান এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




শরীয়তপুরে করোনা সন্দেহে বৃদ্ধের মৃত্যু, ৩৩ পরিবার লকডাউন

আপডেট সময় : ১১:২৮:০৭ অপরাহ্ন, শনিবার, ৪ এপ্রিল ২০২০

শরীয়তপুর প্রতিনিধি, 

শরীয়তপুরের নড়িয়ায় জ্বর ও মাথাব্যথায় আক্রান্ত হয়ে আমান উল্লাহ বেপারী (৯০) নামে এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। এ ঘটনায় তার বাড়িসহ আশপাশের ৩৩ পরিবারকে লকডাউনে রাখা হয়েছে।

আজ শনিবার বেলা ১১টার দিকে ওই ব্যক্তি ঢাকার কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

জানা যায়, শরীয়তপুরের নড়িয়া উপজেলার থিরোপাড়া এলাকায় আমান উল্লাহ বেপারী (৯০) নামে এক ব্যক্তি জ্বর ও মাথা ব্যথা নিয়ে গত ১ এপ্রিল প্রথমে নড়িয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হন। পরে সেখানে অবস্থার অবনতি হলে গত বৃহস্পতিবার সকালে ঢাকার উত্তরায় অবস্থিত কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালে উন্নত চিকিৎসার জন্য পাঠানো হয়। আজ শনিবার ১১টার দিকে তিনি চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যান।

এদিকে, ওই ব্যক্তির মারা যাওয়ার খবর এলাকায় ছড়িয়ে পড়লে তার বাড়িসহ আশপাশের ৩৩টি পরিবারকে লকডাউন করে রেখেছে স্থানীয় প্রশাসন।

নড়িয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. হাফিজুর রহমান এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।