ঢাকা ০৩:৫৫ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :




জ্বর সর্দি হাঁচি কাশির জন্য বিএসএমএমইউ’র বিশেষ সেবা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৬:৪৬:৫৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৫ মার্চ ২০২০ ১০৮ বার পড়া হয়েছে

বিশেষ সংবাদদাতা” 
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে রোগী ভর্তি সীমিত করা হয়েছে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে গুরুতর (একিউট) অসুস্থ রোগী ছাড়া অন্যান্যদের আপাতত ভর্তি করা হবে না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

শনিবার (২১ মার্চ) রাতে বিএসএমএমইউ উপাচার্য অধ্যাপক ডাক্তার কনক কান্তি বড়ুয়া এ সব তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘বিএসএমএমইউ হাসপাতালে বর্তমানে চিকিৎসাধীন রোগী, চিকিৎসক-নার্সসহ অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীদের করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ঝুঁকি থেকে মুক্ত রাখতে বিভিন্ন বিভাগে রোগী ভর্তি সীমিত রাখা হবে।’

উপাচার্য বলেন, ‘হাসপাতালে আগত কোনো রোগী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত থাকলে তার মাধ্যমে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন জটিল রোগীদের জীবন বিপন্ন হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হবে। এ কারণে তীব্র ও জটিল রোগে আক্রান্ত অসুস্থ রোগী ছাড়া এই মুহূর্তে অন্যান্যদের যাদের এখনই হাসপাতালে ভর্তি না করলেও চলে এমন রোগীদের আপাতত ভর্তি করা হবে না। চিকিৎসক-নার্সদের নিরাপত্তার জন্য ইতোমধ্যেই পার্সোনাল প্রটেকশন ইক্যুইপমেন্ট (পিপিই) সরবরাহ করা হয়েছে।’

তিনি জানান, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে জ্বর-হাঁচি-কাশিতে আক্রান্ত রোগীদের জন্য বেতার ভবনে পৃথক স্বাস্থ্যসেবা চালু করা হয়েছে। সেখানে চিকিৎসক ও নার্সসহ অন্যান্য স্টাফরা পিপিই পরিধান করে রোগীদের সেবা প্রদান করছেন। শনিবার থেকে বিশেষ এই স্বাস্থ্যসেবা শুরু হয়েছে বলেও জানান তিনি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




জ্বর সর্দি হাঁচি কাশির জন্য বিএসএমএমইউ’র বিশেষ সেবা

আপডেট সময় : ০৬:৪৬:৫৭ অপরাহ্ন, বুধবার, ২৫ মার্চ ২০২০

বিশেষ সংবাদদাতা” 
বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় (বিএসএমএমইউ) হাসপাতালে রোগী ভর্তি সীমিত করা হয়েছে। করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে গুরুতর (একিউট) অসুস্থ রোগী ছাড়া অন্যান্যদের আপাতত ভর্তি করা হবে না বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ।

শনিবার (২১ মার্চ) রাতে বিএসএমএমইউ উপাচার্য অধ্যাপক ডাক্তার কনক কান্তি বড়ুয়া এ সব তথ্য জানিয়েছেন।

তিনি বলেন, ‘বিএসএমএমইউ হাসপাতালে বর্তমানে চিকিৎসাধীন রোগী, চিকিৎসক-নার্সসহ অন্যান্য কর্মকর্তা-কর্মচারীদের করোনাভাইরাসের সংক্রমণের ঝুঁকি থেকে মুক্ত রাখতে বিভিন্ন বিভাগে রোগী ভর্তি সীমিত রাখা হবে।’

উপাচার্য বলেন, ‘হাসপাতালে আগত কোনো রোগী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত থাকলে তার মাধ্যমে হাসপাতালে চিকিৎসাধীন জটিল রোগীদের জীবন বিপন্ন হওয়ার আশঙ্কা তৈরি হবে। এ কারণে তীব্র ও জটিল রোগে আক্রান্ত অসুস্থ রোগী ছাড়া এই মুহূর্তে অন্যান্যদের যাদের এখনই হাসপাতালে ভর্তি না করলেও চলে এমন রোগীদের আপাতত ভর্তি করা হবে না। চিকিৎসক-নার্সদের নিরাপত্তার জন্য ইতোমধ্যেই পার্সোনাল প্রটেকশন ইক্যুইপমেন্ট (পিপিই) সরবরাহ করা হয়েছে।’

তিনি জানান, করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে সতর্কতামূলক ব্যবস্থা হিসেবে জ্বর-হাঁচি-কাশিতে আক্রান্ত রোগীদের জন্য বেতার ভবনে পৃথক স্বাস্থ্যসেবা চালু করা হয়েছে। সেখানে চিকিৎসক ও নার্সসহ অন্যান্য স্টাফরা পিপিই পরিধান করে রোগীদের সেবা প্রদান করছেন। শনিবার থেকে বিশেষ এই স্বাস্থ্যসেবা শুরু হয়েছে বলেও জানান তিনি।