ঢাকা ০৩:১৬ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ জুলাই ২০২৪, ২ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo আবাসিক হল ছাড়ছে শাবি শিক্ষার্থীরা Logo নিরাপত্তার স্বার্থে শাবি শিক্ষার্থীদের আইডিকার্ড সাথে রাখার আহবান বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের Logo জনস্বাস্থ্যের প্রধান সাধুর যত অসাধু কর্ম: দুর্নীতি ও অর্থ পাচারের অভিযোগ! Logo বিআইডব্লিউটিএ বন্দর শাখা যুগ্ম পরিচালক আলমগীরের দুর্নীতি ও ঘুষ বাণিজ্য  Logo রাজশাহীতে এটিএন বাংলার সাংবাদিক সুজাউদ্দিন ছোটনকে হয়রানিমূলক মামলায় বএিমইউজরে নিন্দা ও প্রতিবাদ Logo শিক্ষার্থীদের তথ্য প্রযুক্তিতে দক্ষ হয়ে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ায় অবদান রাখতে হবেঃ ড. তৌফিক রহমান চৌধুরী Logo ‘কানামাছি শিশুসাহিত্য পুরস্কার ২০২৪’ পেলেন লেখক Logo মধ্যরাতে শাবি ছাত্রলীগের ‘ তুমি কে, আমি কে- বাঙ্গালী, বাঙ্গালী’ শ্লোগানে উত্তাল ক্যাম্পাস Logo আম নিয়ে কষ্টগাঁথা Logo ঘুমান্ত বিবেক মাতাল আবেগ’ – আকাশমণি




বরিশালে পেঁপে পাতার রস খেয়ে ৭ ডেঙ্গু রোগী পুরোপুরি সুস্থ!

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৭:৪৬:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ অগাস্ট ২০১৯ ৮০ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক;
বরিশালের গৌরনদী উপজেলার পিংগলাকাঠি গ্রামে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে নাছিমা বেগম (৩৫) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। একই গ্রামে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে শুধু পেঁপে পাতার রস খেয়ে পুরোপুরি সুস্থ হয়েছেন বলে ৭ জন দাবি করেছেন। তারা বলেন, নাছিমা বেগমকে পেঁপে পাতার রস খাওয়ানো হয়নি বলেই হয়তো এ পরিণতি।

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া নাছিমা বেগম পিংগলাকাঠি গ্রামের মোল্লার খালপাড় নামক স্থানের আবুল মোল্লার স্ত্রী।

নাছিমা বেগমের স্বজনরা জানান, বেশ কয়েকদিন ধরে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত ছিলেন তিনি। মঙ্গলবার রাতে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেয়ার পথে নাছিমার মৃত্যু হয়।

পিংগলাকাঠি গ্রামের একাধিক বাসিন্দা জানান, মোল্লার খাল পাড় এলাকার অবসরপ্রাপ্ত বিজিবি সদস্য সিরাজ ফকির (৫২), তার মেয়ে বরিশাল বিএম কলেজের অনার্স ২য় বর্ষের ছাত্রী অন্তরা (২০), প্রতিবেশী জলিল সরদার (২২), সুমন হাওলাদার (২০), জুরাল ফকির (৩২), ইব্রাহিম সরদার (২২), রেনু বেগম (৪০) ও নাছিমা বেগম (৩৫) ঈদের পর ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হন। তারা ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে স্থানীয় গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসা নিতে যান। কিন্তু সেখানে ডেঙ্গুর সুচিকিৎসার ব্যবস্থা না থাকায় তারা হতাশ হয়ে বাড়ি ফেরেন। এরপর ডেঙ্গুতে আক্রান্ত সিরাজ ফকিরের পরামর্শে পেঁপে পাতার রস খেয়ে ওই ৭ জন পুরোপুরি সুস্থ হয়ে ওঠেন।

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত সিরাজ ফকির বলেন, ঈদের দিন আমি ও আমার মেয়ে অন্তরা ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হই। একই সঙ্গে আমার প্রতিবেশী আরও ৫ জন আক্রান্ত হন। আমি ও আমার মেয়ে অন্তরাকে গৌরনদীর স্থানীয় একটি বেসরকারি ক্লিনিকে নেয়া হয়। সেখানে পরীক্ষা-নিরীক্ষায় আমার ও মেয়ের ডেঙ্গু ধরা পড়ে। গৌরনদীতে ডেঙ্গু রোগের চিকিৎসা না থাকায় আমরা চিন্তিত হয়ে পড়ি। এরপর আমার ছেলে ইঞ্জিনিয়ার মেহেদী হাসান ইন্টারনেটের মাধ্যমে পেঁপে পাতার রস খেলে ডেঙ্গু ভালো হয় বিষয়টি জানতে পারে। ছেলের পরামর্শে আমি ও আমার মেয়ে প্রতিদিন সকাল-বিকাল ও দুপুরে আধা কেজি করে পেঁপে পাতার রস ও একটি করে প্যারাসিটামল ট্যাবলেট খাওয়া শুরু করি। ৭ দিনের মধ্যে আমরা ২ জন সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে যাই। আমার পরামর্শে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত আমার ৫ প্রতিবেশী পেঁপে পাতার রস খেয়ে আরোগ্য লাভ করেন।

সিরাজ ফকির বলেন, আমরা নাছিমা বেগমকেও পেঁপে পাতার রস খাওয়ানোর পরামর্শ দিয়েছিলাম তাদের পরিবারের লোকজনকে। কিন্তু তারা খাওয়াননি।

গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বে থাকা ভারপ্রাপ্ত স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. বিপুল বিশ্বাস জানান, পেঁপের অনেক গুণাগুণের কথা শুনেছি। তবে পাতার রস খেলে ডেঙ্গু ভালো হয়, আগে কখনও শুনিনি। চিকিৎসা বিজ্ঞানে নেই, তাই আমরা কাউকে এ ধরনের পরামর্শ দিতে পারি না বলে জানান ডা. বিপুল।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




বরিশালে পেঁপে পাতার রস খেয়ে ৭ ডেঙ্গু রোগী পুরোপুরি সুস্থ!

আপডেট সময় : ০৭:৪৬:৪৮ অপরাহ্ন, বুধবার, ২১ অগাস্ট ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক;
বরিশালের গৌরনদী উপজেলার পিংগলাকাঠি গ্রামে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে নাছিমা বেগম (৩৫) নামে এক গৃহবধূর মৃত্যু হয়েছে। একই গ্রামে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে শুধু পেঁপে পাতার রস খেয়ে পুরোপুরি সুস্থ হয়েছেন বলে ৭ জন দাবি করেছেন। তারা বলেন, নাছিমা বেগমকে পেঁপে পাতার রস খাওয়ানো হয়নি বলেই হয়তো এ পরিণতি।

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হয়ে মারা যাওয়া নাছিমা বেগম পিংগলাকাঠি গ্রামের মোল্লার খালপাড় নামক স্থানের আবুল মোল্লার স্ত্রী।

নাছিমা বেগমের স্বজনরা জানান, বেশ কয়েকদিন ধরে ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত ছিলেন তিনি। মঙ্গলবার রাতে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা নেয়ার পথে নাছিমার মৃত্যু হয়।

পিংগলাকাঠি গ্রামের একাধিক বাসিন্দা জানান, মোল্লার খাল পাড় এলাকার অবসরপ্রাপ্ত বিজিবি সদস্য সিরাজ ফকির (৫২), তার মেয়ে বরিশাল বিএম কলেজের অনার্স ২য় বর্ষের ছাত্রী অন্তরা (২০), প্রতিবেশী জলিল সরদার (২২), সুমন হাওলাদার (২০), জুরাল ফকির (৩২), ইব্রাহিম সরদার (২২), রেনু বেগম (৪০) ও নাছিমা বেগম (৩৫) ঈদের পর ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হন। তারা ডেঙ্গু জ্বরে আক্রান্ত হয়ে স্থানীয় গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্যকেন্দ্রে চিকিৎসা নিতে যান। কিন্তু সেখানে ডেঙ্গুর সুচিকিৎসার ব্যবস্থা না থাকায় তারা হতাশ হয়ে বাড়ি ফেরেন। এরপর ডেঙ্গুতে আক্রান্ত সিরাজ ফকিরের পরামর্শে পেঁপে পাতার রস খেয়ে ওই ৭ জন পুরোপুরি সুস্থ হয়ে ওঠেন।

ডেঙ্গুতে আক্রান্ত সিরাজ ফকির বলেন, ঈদের দিন আমি ও আমার মেয়ে অন্তরা ডেঙ্গুতে আক্রান্ত হই। একই সঙ্গে আমার প্রতিবেশী আরও ৫ জন আক্রান্ত হন। আমি ও আমার মেয়ে অন্তরাকে গৌরনদীর স্থানীয় একটি বেসরকারি ক্লিনিকে নেয়া হয়। সেখানে পরীক্ষা-নিরীক্ষায় আমার ও মেয়ের ডেঙ্গু ধরা পড়ে। গৌরনদীতে ডেঙ্গু রোগের চিকিৎসা না থাকায় আমরা চিন্তিত হয়ে পড়ি। এরপর আমার ছেলে ইঞ্জিনিয়ার মেহেদী হাসান ইন্টারনেটের মাধ্যমে পেঁপে পাতার রস খেলে ডেঙ্গু ভালো হয় বিষয়টি জানতে পারে। ছেলের পরামর্শে আমি ও আমার মেয়ে প্রতিদিন সকাল-বিকাল ও দুপুরে আধা কেজি করে পেঁপে পাতার রস ও একটি করে প্যারাসিটামল ট্যাবলেট খাওয়া শুরু করি। ৭ দিনের মধ্যে আমরা ২ জন সম্পূর্ণ সুস্থ হয়ে যাই। আমার পরামর্শে ডেঙ্গুতে আক্রান্ত আমার ৫ প্রতিবেশী পেঁপে পাতার রস খেয়ে আরোগ্য লাভ করেন।

সিরাজ ফকির বলেন, আমরা নাছিমা বেগমকেও পেঁপে পাতার রস খাওয়ানোর পরামর্শ দিয়েছিলাম তাদের পরিবারের লোকজনকে। কিন্তু তারা খাওয়াননি।

গৌরনদী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের দায়িত্বে থাকা ভারপ্রাপ্ত স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. বিপুল বিশ্বাস জানান, পেঁপের অনেক গুণাগুণের কথা শুনেছি। তবে পাতার রস খেলে ডেঙ্গু ভালো হয়, আগে কখনও শুনিনি। চিকিৎসা বিজ্ঞানে নেই, তাই আমরা কাউকে এ ধরনের পরামর্শ দিতে পারি না বলে জানান ডা. বিপুল।