ঢাকা ১১:২৪ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৮ জুলাই ২০২৪, ৩ শ্রাবণ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo জবিতে আজীবন ছাত্ররাজনীতি নিষিদ্ধ বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ Logo শাবিতে হল প্রশাসনকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে নোটিসে জোর পূর্বক সাইন আদায় Logo এবার সামনে আসছে ছাত্রলীগ কর্তৃক আন্দোলনকারীদের মারধরের আরো ঘটনা Logo আবাসিক হল ছাড়ছে শাবি শিক্ষার্থীরা Logo নিরাপত্তার স্বার্থে শাবি শিক্ষার্থীদের আইডিকার্ড সাথে রাখার আহবান বিশ্ববিদ্যালয় প্রশাসনের Logo জনস্বাস্থ্যের প্রধান সাধুর যত অসাধু কর্ম: দুর্নীতি ও অর্থ পাচারের অভিযোগ! Logo বিআইডব্লিউটিএ বন্দর শাখা যুগ্ম পরিচালক আলমগীরের দুর্নীতি ও ঘুষ বাণিজ্য  Logo রাজশাহীতে এটিএন বাংলার সাংবাদিক সুজাউদ্দিন ছোটনকে হয়রানিমূলক মামলায় বএিমইউজরে নিন্দা ও প্রতিবাদ Logo শিক্ষার্থীদের তথ্য প্রযুক্তিতে দক্ষ হয়ে স্মার্ট বাংলাদেশ গড়ায় অবদান রাখতে হবেঃ ড. তৌফিক রহমান চৌধুরী Logo ‘কানামাছি শিশুসাহিত্য পুরস্কার ২০২৪’ পেলেন লেখক




টানা ষষ্ঠ দিনের মতো মেহেরপুরে বাস চলাচল বন্ধ

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:১৩:১৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯ ৭৫ বার পড়া হয়েছে

মেহেরপুর প্রতিনিধিঃ
মালিকদের সঙ্গে দ্বন্দ্বের জেরে মেহেরপুরের সব রুটে গত বৃহস্পতিবার থেকে লোকাল বাস চলাচল বন্ধ রেখেছে শ্রমিকরা। আজ মঙ্গলবার ষষ্ঠ দিনের মতো সকাল ১০টায় এ প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে বাস চলাচল। এতে সীমাহীন দুর্ভোগ পড়েছে যাত্রীরা।

বাস চলাচল বন্ধ থাকায় আলগামন, নসিমন, করিমন, ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা এখন এ পথে চলাচলকারী যাত্রীদের একমাত্র ভরসা। এতে বাড়ছে ব্যয় ও জীবনের ঝুঁকি।

জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারা বলছেন, আন্ত জেলার সব রুটে ৩৬ দিন বাস চলাচলের পর ৪৬ দিন বন্ধ থাকে। বন্ধের সময় কাজ না থাকায় বাস শ্রমিকদের মানবেতর জীবন কাটাতে হয়। এ জন্য বন্ধের সময়সীমা কমাতে মেহেরপুর-কুষ্টিয়া সড়কে প্রতিটি বাস দুইবার চলাচলের পরিবর্তে একবার চালানোর দাবি শ্রমিকদের। মালিকপক্ষ যত দিন এ দাবি না মানবে, তত দিন বাস চলাচল বন্ধ রাখবে শ্রমিকরা।

তাঁরা অভিযোগ করেন, দীর্ঘ এক বছরের বেশি সময় ধরে তারা মালিক সমিতির কাছে এ দাবি জানানো হচ্ছে। কিন্তু তাঁরা আজ না কাল বলে সময় অতিবাহিত করছেন। এবার যদি দাবি মেনে না নেওয়া হয়, তাহলে তাঁরা বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তুলবেন। প্রয়োজনে দূরপাল্লার বাস-ট্রাক সব বন্ধ করে দেওয়ারও হুঁশিয়ারি দেন।

জেলা বাস ও মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক গোলাম রসুল বলেন, শ্রমিকদের এ দাবি আগেও মানা হয়েছিল। পরে তারাই তা পরিবর্তন করেছে। মালিকদের সঙ্গে না বসেই শ্রমিকরা বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। তাদের এ অন্যায় দাবি আমরা মেনে নেব না। আমাদের লাখ লাখ টাকা বিনিয়োগ করে বাস রাস্তায় নামিয়েছে। যখন-তখন তাদের অন্যায্য দাবি মেনে নেওয়া সম্ভব নয়।

মেহেরপুর জেলা প্রশাসক (ডিসি) আতাউল গনি বলেন, জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে উভয় পক্ষের সঙ্গে কথা বলা হচ্ছে। কিন্তু কোনো পক্ষ থেকেই সাড়া মিলছে না।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ জাহিদুল ইসলাম বলেন জানান, বাস মালিক সমিতির ও শ্রমিক ইউনিয়নের নেতাদের সঙ্গে আলোচনা চলছে। উভয়পক্ষই তাঁদের নিজেদের দাবিতে অনড়। কোনো পক্ষই ছাড় দিতে রাজি হচ্ছে না।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




টানা ষষ্ঠ দিনের মতো মেহেরপুরে বাস চলাচল বন্ধ

আপডেট সময় : ১১:১৩:১৭ পূর্বাহ্ন, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯

মেহেরপুর প্রতিনিধিঃ
মালিকদের সঙ্গে দ্বন্দ্বের জেরে মেহেরপুরের সব রুটে গত বৃহস্পতিবার থেকে লোকাল বাস চলাচল বন্ধ রেখেছে শ্রমিকরা। আজ মঙ্গলবার ষষ্ঠ দিনের মতো সকাল ১০টায় এ প্রতিবেদন লেখার সময় পর্যন্ত বন্ধ রয়েছে বাস চলাচল। এতে সীমাহীন দুর্ভোগ পড়েছে যাত্রীরা।

বাস চলাচল বন্ধ থাকায় আলগামন, নসিমন, করিমন, ব্যাটারিচালিত অটোরিকশা এখন এ পথে চলাচলকারী যাত্রীদের একমাত্র ভরসা। এতে বাড়ছে ব্যয় ও জীবনের ঝুঁকি।

জেলা মোটর শ্রমিক ইউনিয়নের নেতারা বলছেন, আন্ত জেলার সব রুটে ৩৬ দিন বাস চলাচলের পর ৪৬ দিন বন্ধ থাকে। বন্ধের সময় কাজ না থাকায় বাস শ্রমিকদের মানবেতর জীবন কাটাতে হয়। এ জন্য বন্ধের সময়সীমা কমাতে মেহেরপুর-কুষ্টিয়া সড়কে প্রতিটি বাস দুইবার চলাচলের পরিবর্তে একবার চালানোর দাবি শ্রমিকদের। মালিকপক্ষ যত দিন এ দাবি না মানবে, তত দিন বাস চলাচল বন্ধ রাখবে শ্রমিকরা।

তাঁরা অভিযোগ করেন, দীর্ঘ এক বছরের বেশি সময় ধরে তারা মালিক সমিতির কাছে এ দাবি জানানো হচ্ছে। কিন্তু তাঁরা আজ না কাল বলে সময় অতিবাহিত করছেন। এবার যদি দাবি মেনে না নেওয়া হয়, তাহলে তাঁরা বৃহত্তর আন্দোলন গড়ে তুলবেন। প্রয়োজনে দূরপাল্লার বাস-ট্রাক সব বন্ধ করে দেওয়ারও হুঁশিয়ারি দেন।

জেলা বাস ও মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক গোলাম রসুল বলেন, শ্রমিকদের এ দাবি আগেও মানা হয়েছিল। পরে তারাই তা পরিবর্তন করেছে। মালিকদের সঙ্গে না বসেই শ্রমিকরা বাস চলাচল বন্ধ করে দিয়েছে। তাদের এ অন্যায় দাবি আমরা মেনে নেব না। আমাদের লাখ লাখ টাকা বিনিয়োগ করে বাস রাস্তায় নামিয়েছে। যখন-তখন তাদের অন্যায্য দাবি মেনে নেওয়া সম্ভব নয়।

মেহেরপুর জেলা প্রশাসক (ডিসি) আতাউল গনি বলেন, জেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে উভয় পক্ষের সঙ্গে কথা বলা হচ্ছে। কিন্তু কোনো পক্ষ থেকেই সাড়া মিলছে না।

অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শেখ জাহিদুল ইসলাম বলেন জানান, বাস মালিক সমিতির ও শ্রমিক ইউনিয়নের নেতাদের সঙ্গে আলোচনা চলছে। উভয়পক্ষই তাঁদের নিজেদের দাবিতে অনড়। কোনো পক্ষই ছাড় দিতে রাজি হচ্ছে না।