ঢাকা ০৯:৫৪ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৭ এপ্রিল ২০২৪, ৪ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo মঙ্গল শোভাযাত্রা – তাসফিয়া ফারহানা ঐশী Logo সাস্টিয়ান ব্রাহ্মণবাড়িয়া এর ইফতার মাহফিল সম্পন্ন Logo কুবির চট্টগ্রাম স্টুডেন্টস ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের ইফতার ও পূর্নমিলনী Logo অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমেদের মায়ের মৃত্যুতে শাবির মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মুক্ত চিন্তা চর্চায় ঐক্যবদ্ধ শিক্ষকবৃন্দ পরিষদের শোক প্রকাশ Logo শাবির অধ্যাপক জহীর উদ্দিনের মায়ের মৃত্যুতে উপাচার্যের শোক প্রকাশ Logo বিশ কোটিতে গণপূর্তের প্রধান হওয়ার মিশনে ‘ছাত্রদল ক্যাডার প্রকৌশলী’! Logo দূর্নীতির রাক্ষস ফায়ার সার্ভিসের এডি আনোয়ার! Logo ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতি হওয়া শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অবকাঠামোর সংস্কার শুরু Logo বুয়েটে নিয়মতান্ত্রিক ছাত্র রাজনীতির দাবিতে শাবিপ্রবি ছাত্রলীগের মানববন্ধন Logo কুবি উপাচার্যের বক্তব্যের প্রমাণ দিতে শিক্ষক সমিতির সাত দিনের আল্টিমেটাম




বিএনপির ভেতরে কী হচ্ছে 

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:৫৯:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৫ ডিসেম্বর ২০২০ ১০০ বার পড়া হয়েছে

কমিটি ও সাংগঠনিক শক্তি-পুনর্গঠন এবং গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনে সফল হতে সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন রাজপথে শীর্ষ নেতাদের এককাতারে অবস্থান। এমনটা মনে করেন দলটির তৃণমূল নেতারা। যদিও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যরা দলে সংকটের কথা স্বীকার করলেও তৃণমূলের এই বক্তব্যর সঙ্গে একমত নন।

হঠাৎ করেই হেফাজত ইসলামের মহাসচিব আল্লামা নুর হোসেন কাসেমীর জানাজার দিনে, ১৪ ডিসেম্বর সকাল ১০ টার দিকে সরকার পতনের রাজপথে অবস্থানের ডাক দেন বিএনপির একজন ভাইস চেয়ারম্যান।

ওই দিনের আগে ও পরে ৩ দিনে প্রেসক্লাব এবং ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশনে সরকার পতনের বেশ কড়া কড়া বক্তব্য দেন বিএনপি এবং দলটির শুভাকাঙ্খি এমন নেতারা।

১৪ই ডিসেম্বর বিকেলে সরকার পতনের ডাক দেওয়া দলের ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ এবং আরেক ভাইস চেয়ারম্যান মেজর হাফিজকে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গে অভিযোগ শো কজ করে বিএনপি। সরকার পতনের আন্দোলনের ডাক আর সরকার বিরোধী বক্তব্য দেয়া- বিএনপি নেতাদের জন্য দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণ হয় কি ?

এ নিয়ে বেশ বিভ্রান্তিতে পড়েন তৃণমূলের নেতারা। যদিও শওকত মাহমুদের ওই আন্দোলন নিয়ে কোনো মন্তব্যও করতে চান না তারা। তবে তৃণমূলের নেতারা মনে করেন, শীর্ষ নেতাদের ভেদাভেদ ভুলে রাজপথে নামা উচিত।

আর শীর্ষ নেতারা বলছেন, পথে নামার তাড়াহুড়া নেই। সঠিক সময় ও কৌশলের জন্যই অপেক্ষা করছে বিএনপির হাইকমান্ড।

কমিটি পুনর্গঠন করে সাংগঠনিক শক্তি জোরালোর মাধ্যমে আগামীর আন্দোলনে সাফল্য দেখছেন বিএনপির অন্যতম শীর্ষ নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




বিএনপির ভেতরে কী হচ্ছে 

আপডেট সময় : ০৯:৫৯:৩৪ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৫ ডিসেম্বর ২০২০

কমিটি ও সাংগঠনিক শক্তি-পুনর্গঠন এবং গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারের আন্দোলনে সফল হতে সবচেয়ে বেশি প্রয়োজন রাজপথে শীর্ষ নেতাদের এককাতারে অবস্থান। এমনটা মনে করেন দলটির তৃণমূল নেতারা। যদিও বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্যরা দলে সংকটের কথা স্বীকার করলেও তৃণমূলের এই বক্তব্যর সঙ্গে একমত নন।

হঠাৎ করেই হেফাজত ইসলামের মহাসচিব আল্লামা নুর হোসেন কাসেমীর জানাজার দিনে, ১৪ ডিসেম্বর সকাল ১০ টার দিকে সরকার পতনের রাজপথে অবস্থানের ডাক দেন বিএনপির একজন ভাইস চেয়ারম্যান।

ওই দিনের আগে ও পরে ৩ দিনে প্রেসক্লাব এবং ডিপ্লোমা ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সটিটিউশনে সরকার পতনের বেশ কড়া কড়া বক্তব্য দেন বিএনপি এবং দলটির শুভাকাঙ্খি এমন নেতারা।

১৪ই ডিসেম্বর বিকেলে সরকার পতনের ডাক দেওয়া দলের ভাইস চেয়ারম্যান শওকত মাহমুদ এবং আরেক ভাইস চেয়ারম্যান মেজর হাফিজকে দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গে অভিযোগ শো কজ করে বিএনপি। সরকার পতনের আন্দোলনের ডাক আর সরকার বিরোধী বক্তব্য দেয়া- বিএনপি নেতাদের জন্য দলীয় শৃঙ্খলা ভঙ্গের কারণ হয় কি ?

এ নিয়ে বেশ বিভ্রান্তিতে পড়েন তৃণমূলের নেতারা। যদিও শওকত মাহমুদের ওই আন্দোলন নিয়ে কোনো মন্তব্যও করতে চান না তারা। তবে তৃণমূলের নেতারা মনে করেন, শীর্ষ নেতাদের ভেদাভেদ ভুলে রাজপথে নামা উচিত।

আর শীর্ষ নেতারা বলছেন, পথে নামার তাড়াহুড়া নেই। সঠিক সময় ও কৌশলের জন্যই অপেক্ষা করছে বিএনপির হাইকমান্ড।

কমিটি পুনর্গঠন করে সাংগঠনিক শক্তি জোরালোর মাধ্যমে আগামীর আন্দোলনে সাফল্য দেখছেন বিএনপির অন্যতম শীর্ষ নেতা গয়েশ্বর চন্দ্র রায়।