ঢাকা ০৩:১৬ পূর্বাহ্ন, শুক্রবার, ২১ জুন ২০২৪, ৬ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :




রাজধানীতে খোলা থাকবে হোটেল-বেকারি: ডিএমপি

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:৫৫:৩৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৮ মার্চ ২০২০ ১০২ বার পড়া হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক; 

রাজধানীতে অবস্থানরত নাগরিকরা করোনা সংকটের সময় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাফেরা করতে পারবেন। এছাড়া হোটেল ও খাবারের দোকানও খোলা থাকবে। এ সম্পর্কে কিছু নির্দেশনা ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের জানিয়েছেন পুলিশ কমিশনার শফিকুল ইসলাম।

মাঠপর্যায়ে কর্মরত পুলিশ সদস্যদের পাঠানো এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ক্রাইম) কৃষ্ণপদ রায়।

পুলিশ কমিশনার বলেছেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঢাকায় একজন নাগরিক যেকোনো মাধ্যম ব্যবহার করে চলাফেরা করতে পারবেন। হোটেল ও বেকারিগুলো খোলা থাকবে। কারণ বহু মানুষের রান্নার ব্যবস্থা নেই। হোটেল ও বেকারি সচল রাখার জন্য যাঁরা সেখানে কাজ করেন, তাঁদের স্বাধীনভাবে চলাফেরা করার সুযোগ দিতে হবে। নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রীর দোকান খোলা থাকবে, তাঁদের কর্মীদেরও কাজ করার সুযোগ দিতে হবে।

ডিএমপি কমিশনার আরো বলেছেন, যেকোন অবস্থাতেই পুলিশ তার পেশাদারিত্ব বজায় রাখবে। দায়িত্ব পালনের সময় তারা সামাজিক দূরত্ব মেনে চলবে। কাজ করার সময় এমন বিষয়গুলো মাথায় রাখতে হবে। যেন কোন একটি ভুল কাজে পুরো ডিপার্টমেন্টের ওপর দুর্নাম না আসে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




রাজধানীতে খোলা থাকবে হোটেল-বেকারি: ডিএমপি

আপডেট সময় : ০৯:৫৫:৩৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৮ মার্চ ২০২০

অনলাইন ডেস্ক; 

রাজধানীতে অবস্থানরত নাগরিকরা করোনা সংকটের সময় স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাফেরা করতে পারবেন। এছাড়া হোটেল ও খাবারের দোকানও খোলা থাকবে। এ সম্পর্কে কিছু নির্দেশনা ঢাকা মেট্রোপলিটন পুলিশের মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তাদের জানিয়েছেন পুলিশ কমিশনার শফিকুল ইসলাম।

মাঠপর্যায়ে কর্মরত পুলিশ সদস্যদের পাঠানো এ তথ্যের সত্যতা নিশ্চিত করেছেন ডিএমপির অতিরিক্ত কমিশনার (ক্রাইম) কৃষ্ণপদ রায়।

পুলিশ কমিশনার বলেছেন, স্বাস্থ্যবিধি মেনে ঢাকায় একজন নাগরিক যেকোনো মাধ্যম ব্যবহার করে চলাফেরা করতে পারবেন। হোটেল ও বেকারিগুলো খোলা থাকবে। কারণ বহু মানুষের রান্নার ব্যবস্থা নেই। হোটেল ও বেকারি সচল রাখার জন্য যাঁরা সেখানে কাজ করেন, তাঁদের স্বাধীনভাবে চলাফেরা করার সুযোগ দিতে হবে। নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রীর দোকান খোলা থাকবে, তাঁদের কর্মীদেরও কাজ করার সুযোগ দিতে হবে।

ডিএমপি কমিশনার আরো বলেছেন, যেকোন অবস্থাতেই পুলিশ তার পেশাদারিত্ব বজায় রাখবে। দায়িত্ব পালনের সময় তারা সামাজিক দূরত্ব মেনে চলবে। কাজ করার সময় এমন বিষয়গুলো মাথায় রাখতে হবে। যেন কোন একটি ভুল কাজে পুরো ডিপার্টমেন্টের ওপর দুর্নাম না আসে।