ঢাকা ০১:১৯ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ১৯ মে ২০২৪, ৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo গণপূর্ত প্রধান প্রকৌশলীর গাড়ি চাপায় পিষ্ট সহকারী প্রকৌশলী -উত্তাল গণপূর্ত Logo শাবিপ্রবির বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ Logo সওজের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী নাহিনুরের সীমাহীন সম্পদ ও অনিয়ম -পর্ব-০১ Logo তামাক সেবনের আলাদা কক্ষ বানালেন গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলী: রয়েছে দুর্নীতির পাহাড়সম অভিযোগ! Logo দেশের সর্বোচ্চ আদালতকে বৃদ্ধাঙ্গুলি: কালবে সর্বোচ্চ পদ দখলে রেখেছে আগস্টিন! Logo আইআইএফসি ও মার্কটেল বাংলাদেশ’র মধ্যে কৌশলগত সহযোগিতা ও সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষর Logo ফায়ার সার্ভিস সদর দপ্তর পরিদর্শনে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী Logo সর্বজনীন পেনশন প্রত্যাহারে শাবি শিক্ষক সমিতি মৌন মিছিল ও কালোব্যাজ ধারণ Logo শাবিপ্রবিতে কুমিল্লা স্টুডেন্টস এসোসিয়েশনের নবীনবরণ অনুষ্ঠিত Logo শাবিপ্রবি কেন্দ্রে সুষ্ঠভাবে গুচ্ছভর্তির তিন ইউনিটের পরীক্ষা সম্পন্ন




পুরো পাবনাকেই হোম কোয়ারেন্টিন বানিয়েছেন তিন হাজার প্রবাসী!

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:৪২:৫৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৬ মার্চ ২০২০ ৭৩ বার পড়া হয়েছে

পাবনা প্রতিনিধি; 

পাবনায় প্রায় চার হাজারের মতো বিদেশ থেকে ফিরে এসেছেন। তার মধ্যে মাত্র ছয়শ’ ৮৮ জন হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন। বাকি বিদেশফেরতরা কোথায় আছেন কেউ জানেন না। এ নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে এক ধরনের আতঙ্ক বিরাজ করছে।

এদিকে গেল ২৪ ঘণ্টায় ৫৭ ব্যক্তিকে হোম কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে।

পাবনা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এক রোগীকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ওই রোগীকে চিকিৎসাসেবা দেয়া হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সসহ আরও নয়জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

পাবনার সিভিল সার্জন ডা. মেহেদী হাসান ইকবাল বিষয়টি গণমাধ্যম কর্মীদের নিশ্চিত করেছেন।

অন্যদিকে করোনা আতঙ্কে পাবনা জেনারেল হাসপাতাল ছেড়ে সাধারণ অনেক রোগী চলে গেছেন। শুধু গুরুতর অসুস্থ রোগী ছাড়া অন্য কোনও রোগী বর্তমানে হাসপাতালে নেই। তবে এখনও কোন রোগীকে হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করতে হয়নি।

পাবনায় বিদেশফেরত তিন হাজারের বেশি মানুষ কোথায় আছেন তা কেউ জানে না। এদের বাড়িতে পুলিশ হানা দিয়েও না পেয়ে ফিরে এসেছেন। পাবনায় এখন পর্যন্ত কোনও করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়নি। একজনকে করোনা সন্দেহে পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছিলো। তার নেগেটিভ ফলাফল এসেছে।

এদিকে সকালে পাবনার জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ ও পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে প্রশাসনের কর্মকর্তারা করোনা থেকে রক্ষায় জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন। কর্মকর্তারা শহরের প্রধান সড়ক আব্দুল হামিদ রোড, বড়বাজার, নিউমার্কেট, রূপকথা রোডসহ জনসমাগম প্রবণ এলাকাগুলোতে লিফলেট বিতরণ জনসাধারণকে পরামর্শ দেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




পুরো পাবনাকেই হোম কোয়ারেন্টিন বানিয়েছেন তিন হাজার প্রবাসী!

আপডেট সময় : ০৯:৪২:৫৯ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৬ মার্চ ২০২০

পাবনা প্রতিনিধি; 

পাবনায় প্রায় চার হাজারের মতো বিদেশ থেকে ফিরে এসেছেন। তার মধ্যে মাত্র ছয়শ’ ৮৮ জন হোম কোয়ারেন্টিনে আছেন। বাকি বিদেশফেরতরা কোথায় আছেন কেউ জানেন না। এ নিয়ে স্থানীয়দের মধ্যে এক ধরনের আতঙ্ক বিরাজ করছে।

এদিকে গেল ২৪ ঘণ্টায় ৫৭ ব্যক্তিকে হোম কোয়ারেন্টিনে পাঠানো হয়েছে।

পাবনা জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন এক রোগীকে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত সন্দেহে কোয়ারেন্টিনে থাকার নির্দেশ দেয়া হয়েছে। ওই রোগীকে চিকিৎসাসেবা দেয়া হাসপাতালের চিকিৎসক ও নার্সসহ আরও নয়জনকে হোম কোয়ারেন্টিনে থাকার পরামর্শ দিয়েছেন জেলা স্বাস্থ্য বিভাগ।

পাবনার সিভিল সার্জন ডা. মেহেদী হাসান ইকবাল বিষয়টি গণমাধ্যম কর্মীদের নিশ্চিত করেছেন।

অন্যদিকে করোনা আতঙ্কে পাবনা জেনারেল হাসপাতাল ছেড়ে সাধারণ অনেক রোগী চলে গেছেন। শুধু গুরুতর অসুস্থ রোগী ছাড়া অন্য কোনও রোগী বর্তমানে হাসপাতালে নেই। তবে এখনও কোন রোগীকে হাসপাতালের করোনা আইসোলেশন ওয়ার্ডে ভর্তি করতে হয়নি।

পাবনায় বিদেশফেরত তিন হাজারের বেশি মানুষ কোথায় আছেন তা কেউ জানে না। এদের বাড়িতে পুলিশ হানা দিয়েও না পেয়ে ফিরে এসেছেন। পাবনায় এখন পর্যন্ত কোনও করোনা ভাইরাস শনাক্ত হয়নি। একজনকে করোনা সন্দেহে পরীক্ষার জন্য ঢাকায় পাঠানো হয়েছিলো। তার নেগেটিভ ফলাফল এসেছে।

এদিকে সকালে পাবনার জেলা প্রশাসক কবীর মাহমুদ ও পুলিশ সুপার শেখ রফিকুল ইসলামের নেতৃত্বে প্রশাসনের কর্মকর্তারা করোনা থেকে রক্ষায় জনসচেতনতামূলক কার্যক্রম পরিচালনা করেছেন। কর্মকর্তারা শহরের প্রধান সড়ক আব্দুল হামিদ রোড, বড়বাজার, নিউমার্কেট, রূপকথা রোডসহ জনসমাগম প্রবণ এলাকাগুলোতে লিফলেট বিতরণ জনসাধারণকে পরামর্শ দেন।