ঢাকা ০৪:২২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২০ এপ্রিল ২০২৪, ৭ বৈশাখ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo মঙ্গল শোভাযাত্রা – তাসফিয়া ফারহানা ঐশী Logo সাস্টিয়ান ব্রাহ্মণবাড়িয়া এর ইফতার মাহফিল সম্পন্ন Logo কুবির চট্টগ্রাম স্টুডেন্টস ওয়েলফেয়ার এসোসিয়েশনের ইফতার ও পূর্নমিলনী Logo অধ্যাপক জহীর উদ্দিন আহমেদের মায়ের মৃত্যুতে শাবির মহান মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও মুক্ত চিন্তা চর্চায় ঐক্যবদ্ধ শিক্ষকবৃন্দ পরিষদের শোক প্রকাশ Logo শাবির অধ্যাপক জহীর উদ্দিনের মায়ের মৃত্যুতে উপাচার্যের শোক প্রকাশ Logo বিশ কোটিতে গণপূর্তের প্রধান হওয়ার মিশনে ‘ছাত্রদল ক্যাডার প্রকৌশলী’! Logo দূর্নীতির রাক্ষস ফায়ার সার্ভিসের এডি আনোয়ার! Logo ঝড় ও শিলাবৃষ্টিতে ক্ষতি হওয়া শাহজালাল বিশ্ববিদ্যালয়ে অবকাঠামোর সংস্কার শুরু Logo বুয়েটে নিয়মতান্ত্রিক ছাত্র রাজনীতির দাবিতে শাবিপ্রবি ছাত্রলীগের মানববন্ধন Logo কুবি উপাচার্যের বক্তব্যের প্রমাণ দিতে শিক্ষক সমিতির সাত দিনের আল্টিমেটাম




‘ট্রাম্পের অপমানজনক বিদায়ে খুশি ইরানের জনগণ’

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৮:৫৯:১২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৪ জানুয়ারী ২০২১ ১২৫ বার পড়া হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক;

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের চরম অপমানজনক বিদায়ে ইরানি জনগণের মনে খুশির হাওয়া বইছে বলে মন্তব্য করেছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। আমেরিকায় নতুন প্রেসিডেন্টের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তরের আগ মুহূর্তে দেশটির জনগণ ভয়াবহ রকম বিভক্ত হয়ে পড়েছে বলেও জানান তিনি।

গতকাল বুধবার তেহরানে এক বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি। রুহানি আরও বলেন, “যেদিন ইরানি জনগণ চাপপ্রয়োগ ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে তাদের বিজয় অনুভব করছে সেই একইদিন আমেরিকার জনগণ তাদের সামাজিক ও রাজনৈতিক অঙ্গনে বিশাল ব্যর্থতা ও নিজেদের মধ্যে ভয়াবহ বিভক্তি প্রত্যক্ষ করছে।”

ইরানের প্রেসিডেন্ট বলেন, বিশ্ববাসী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একজন ‘স্বৈরশাসকের’ পতনের ‘অভূতপূর্ব ঘটনা’র সাক্ষী হতে যাচ্ছে। তিনি বলেন, “ট্রাম্প প্রশাসনের অপমানজনক বিদায় প্রমাণ করছে, বলপ্রয়োগ, বর্ণবাদ ও আইন লঙ্ঘনের পরিণতি ভালো হয় না।”

হাসান রুহানি বলেন, “আমরা শুধুমাত্র আমেরিকার একটি প্রশাসনের পতন দেখছি না বরং একইসঙ্গে ইরানের মতো একটি দেশের বিরুদ্ধে ‘সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের’ নীতির করুণ পরিণতি দেখতে পাচ্ছি।”

ইরানের প্রেসিডেন্ট বলেন, “যে ব্যক্তির রাজনৈতিক বোঝাপড়ার অভাব রয়েছে তার হাতে একটি দেশ পরিচালনার দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। আর তার সঙ্গে জুটেছিল এক নির্বোধ পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং একজন অজ্ঞ ও উগ্র জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা। সেই প্রেসিডেন্ট জুয়ার বাজির মতো করে এবং ব্যবসায়িক দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে সব সমস্যার সমাধান করার চেষ্টা করেছে। আর এসব কিছুর পরিণতি আমরা এখন প্রত্যক্ষ করছি।”

গত বুধবার বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সমর্থক শ্বেতাঙ্গ দাঙ্গাবাজরা দেশটির কংগ্রেস ভবন ক্যাপিটল হিলে হামলা চালায়। এ সময় নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে তাদের সংঘর্ষে একজন পুলিশ কর্মকর্তা ও এক নারীসহ পাঁচজন নিহত হয়। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ওই হামলার পর দাঙ্গাকারীদের সমর্থন করে বক্তব্য রাখেন এবং এখন পর্যন্ত এ ব্যাপারে অনুতাপ প্রকাশ করেননি। ওই ঘটনার দায়ে মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদ গতরাতে তাকে ইমপিচ করেছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




‘ট্রাম্পের অপমানজনক বিদায়ে খুশি ইরানের জনগণ’

আপডেট সময় : ০৮:৫৯:১২ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ১৪ জানুয়ারী ২০২১

অনলাইন ডেস্ক;

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্পের চরম অপমানজনক বিদায়ে ইরানি জনগণের মনে খুশির হাওয়া বইছে বলে মন্তব্য করেছেন ইরানের প্রেসিডেন্ট হাসান রুহানি। আমেরিকায় নতুন প্রেসিডেন্টের হাতে ক্ষমতা হস্তান্তরের আগ মুহূর্তে দেশটির জনগণ ভয়াবহ রকম বিভক্ত হয়ে পড়েছে বলেও জানান তিনি।

গতকাল বুধবার তেহরানে এক বক্তব্যে এ কথা বলেন তিনি। রুহানি আরও বলেন, “যেদিন ইরানি জনগণ চাপপ্রয়োগ ও সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে তাদের বিজয় অনুভব করছে সেই একইদিন আমেরিকার জনগণ তাদের সামাজিক ও রাজনৈতিক অঙ্গনে বিশাল ব্যর্থতা ও নিজেদের মধ্যে ভয়াবহ বিভক্তি প্রত্যক্ষ করছে।”

ইরানের প্রেসিডেন্ট বলেন, বিশ্ববাসী মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের একজন ‘স্বৈরশাসকের’ পতনের ‘অভূতপূর্ব ঘটনা’র সাক্ষী হতে যাচ্ছে। তিনি বলেন, “ট্রাম্প প্রশাসনের অপমানজনক বিদায় প্রমাণ করছে, বলপ্রয়োগ, বর্ণবাদ ও আইন লঙ্ঘনের পরিণতি ভালো হয় না।”

হাসান রুহানি বলেন, “আমরা শুধুমাত্র আমেরিকার একটি প্রশাসনের পতন দেখছি না বরং একইসঙ্গে ইরানের মতো একটি দেশের বিরুদ্ধে ‘সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের’ নীতির করুণ পরিণতি দেখতে পাচ্ছি।”

ইরানের প্রেসিডেন্ট বলেন, “যে ব্যক্তির রাজনৈতিক বোঝাপড়ার অভাব রয়েছে তার হাতে একটি দেশ পরিচালনার দায়িত্ব দেয়া হয়েছে। আর তার সঙ্গে জুটেছিল এক নির্বোধ পররাষ্ট্রমন্ত্রী এবং একজন অজ্ঞ ও উগ্র জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা। সেই প্রেসিডেন্ট জুয়ার বাজির মতো করে এবং ব্যবসায়িক দৃষ্টিভঙ্গি দিয়ে সব সমস্যার সমাধান করার চেষ্টা করেছে। আর এসব কিছুর পরিণতি আমরা এখন প্রত্যক্ষ করছি।”

গত বুধবার বিদায়ী মার্কিন প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সমর্থক শ্বেতাঙ্গ দাঙ্গাবাজরা দেশটির কংগ্রেস ভবন ক্যাপিটল হিলে হামলা চালায়। এ সময় নিরাপত্তা বাহিনীর সঙ্গে তাদের সংঘর্ষে একজন পুলিশ কর্মকর্তা ও এক নারীসহ পাঁচজন নিহত হয়। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্প ওই হামলার পর দাঙ্গাকারীদের সমর্থন করে বক্তব্য রাখেন এবং এখন পর্যন্ত এ ব্যাপারে অনুতাপ প্রকাশ করেননি। ওই ঘটনার দায়ে মার্কিন প্রতিনিধি পরিষদ গতরাতে তাকে ইমপিচ করেছে।