ঢাকা ০৮:৩৯ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৯ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ




করোনার চিকিৎসায় অপারগতাঃ কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালের ৬ চিকিৎসক বরখাস্ত

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৯:১০:২৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ এপ্রিল ২০২০ ৭৯ বার পড়া হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক; 
করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা সেবা না দেয়ায় কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী হাসপাতালের ছয় চিকিৎসককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। শনিবার কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা আলিমুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বরখাস্ত হওয়া চিকিৎসকরা হলেন- হাসপাতালের জুনিয়র কনসালটেন্ট (এ্যানেসঃ) ডা. হীরম্ব চন্দ্র রায়, মেডিকেল অফিসার ডা. ফারহানা হাসানাত, মেডিকেল অফিসার ডা. উর্মি পারভিন, মেডিকেল অফিসার ডা. কাওসার উল্লাহ, জুনিয়র কনসালটেন্ট ডা. শারমিন হোসেন এবং আবাসিক চিকিৎসক ডা. মুহাম্মদ ফজলুল হক।

ছয় চিকিৎসকের তিনজন হাসপাতালে অনুপস্থিত, দুইজন আক্রান্ত রোগী দেখতে অনিচ্ছুক, একজন ইস্তফা দিয়েছেন।

গত ৯ এপ্রিল কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসাপাতারের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মোহাম্মদ সেহাব উদ্দিন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালককে চিঠি দিয়ে জানান যে, এই ছয় চিকিৎসক কোভিড-১৯ কেন্দ্রে সেবা প্রদান করছেন না।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




করোনার চিকিৎসায় অপারগতাঃ কুয়েত মৈত্রী হাসপাতালের ৬ চিকিৎসক বরখাস্ত

আপডেট সময় : ০৯:১০:২৪ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ এপ্রিল ২০২০

অনলাইন ডেস্ক; 
করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত রোগীদের চিকিৎসা সেবা না দেয়ায় কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী হাসপাতালের ছয় চিকিৎসককে সাময়িক বরখাস্ত করা হয়েছে। শনিবার কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী হাসপাতালের প্রশাসনিক কর্মকর্তা আলিমুজ্জামান এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

বরখাস্ত হওয়া চিকিৎসকরা হলেন- হাসপাতালের জুনিয়র কনসালটেন্ট (এ্যানেসঃ) ডা. হীরম্ব চন্দ্র রায়, মেডিকেল অফিসার ডা. ফারহানা হাসানাত, মেডিকেল অফিসার ডা. উর্মি পারভিন, মেডিকেল অফিসার ডা. কাওসার উল্লাহ, জুনিয়র কনসালটেন্ট ডা. শারমিন হোসেন এবং আবাসিক চিকিৎসক ডা. মুহাম্মদ ফজলুল হক।

ছয় চিকিৎসকের তিনজন হাসপাতালে অনুপস্থিত, দুইজন আক্রান্ত রোগী দেখতে অনিচ্ছুক, একজন ইস্তফা দিয়েছেন।

গত ৯ এপ্রিল কুয়েত-বাংলাদেশ মৈত্রী সরকারি হাসাপাতারের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মোহাম্মদ সেহাব উদ্দিন স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের পরিচালককে চিঠি দিয়ে জানান যে, এই ছয় চিকিৎসক কোভিড-১৯ কেন্দ্রে সেবা প্রদান করছেন না।