ঢাকা ১২:৪৬ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo রূপালী ব্যাংকের ডিজিএম কর্তৃক সহকর্মী নারীকে যৌন হয়রানি: ধামাচাপা দিতে মরিয়া তদন্ত কমিটি Logo প্রতিবন্ধী ভাতার টাকা হাতিয়ে বহাল তবিয়তে মাদারীপুরের দুই সহকারী সমাজসেবা অফিসারl Logo যমুনা লাইফের গ্রাহক প্রতারণায় ‘জড়িতরা’ কে কোথায় Logo ঢাকাস্থ ভোলা সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি আহসান কামরুল, সম্পাদক জিয়াউর রহমান Logo টাটা মটরস বাংলাদেশে উদ্বোধন করলো টাটা যোদ্ধা Logo আশা শিক্ষা কর্মসূচী কর্তৃক অভিভাবক মতবিনিময় সভা Logo গণপূর্ত প্রধান প্রকৌশলীর গাড়ি চাপায় পিষ্ট সহকারী প্রকৌশলী -উত্তাল গণপূর্ত Logo শাবিপ্রবির বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ Logo সওজের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী নাহিনুরের সীমাহীন সম্পদ ও অনিয়ম -পর্ব-০১ Logo তামাক সেবনের আলাদা কক্ষ বানালেন গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলী: রয়েছে দুর্নীতির পাহাড়সম অভিযোগ!




সরাইল বিশ্বরোড মোড়ে মাংস কেনা নিয়ে সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০১:৫০:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ জুন ২০১৯ ৬৩ বার পড়া হয়েছে

সকালের সংবাদ প্রতিনিধি;
ব্রাহ্মণবাড়িয়া ঢাকা সিলেট মহাসড়কের সরাইল বিশ্বরোড মোড়ে মাংস কেনা নিয়ে সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক। শুক্রবার সকাল ১০ টা থেকে ঘন্টা ব্যাপী চলে এই সংঘর্ষ।

স্থানীয় সূত্রে জানাযায় শুক্রবার সকালে কুট্রাপাড়া গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে মোঃ ধন মিয়া(৩৫) মাংস কিনতে যায় বিশ্বরোড খাঁটিহাতা গ্রামের মাংস দোকানী সোলেমানের ছেলে মোঃ কালু মিয়ার দোকানে। মাংসে হাড়ের পরিমাণ বেশি থাকার প্রতিবাদ করায় দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে কালু মিয়া এবং তার লোকজন মোঃ ধন মিয়াকে ছুড়িকাঘাত করে। এখবর ছড়িয়ে পড়লে উভয় পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। শুরু হয় ইটপাটকেল নিক্ষেপ উভয় পক্ষের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া। উভয় দিকে কয়েক শত লোক এই সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। আর এই সংঘর্ষ থামাতে সরাইল থানা পুলিশ প্রথমে চেষ্টা চালায়, কিন্তু তারা বারবার ব্যার্থ হচ্ছিলো। খাঁটিহাতা গ্রামের লোকজন মার্কেট এবং বাড়ির ছাদে অবস্থান নেয়ায় সংঘর্ষ থামাতে আরো বেগ পেতে হয়। সংঘর্ষের সময় ঢাকা সিলেট মহাসড়কের উভয় দিকে কয়েক কিলোমিটার জুড়ে গাড়ির লাইন পড়ে যায়,সৃষ্টি হয় যানযটের।
পরে জেলাসদর থেকে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে টিয়ারগ্যাস, রাবার বুলেট ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের প্রায় অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়, এছাড়াও সরাইল থানার কয়েক পুলিশও সংঘর্ষে আহত হয়। আহতরা স্থানীয় সরাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে দেখা যায়। অনেকে জেলাসদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে যায়। পুলিশের ছোড়া রাবার বুলেট গিয়ে শরীরে লাগে।
সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা মফিজ উদ্দিন ভুইয়া সকালের সংবাদকে জানান, মাংসে হাড়ের পরিমাণ বেশি দেয়াকে কেন্দ্র করে এই সংঘর্ষ হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে আমরা কয়েক রাউন্ড ফাকা গুলি ও টিয়ারগ্যাস নিক্ষেপ করি। পরিস্থিতি এখন শান্ত রয়েছে যানচলাচল এখন স্বাভাবিক রয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




সরাইল বিশ্বরোড মোড়ে মাংস কেনা নিয়ে সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক

আপডেট সময় : ০১:৫০:৪৮ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ৭ জুন ২০১৯

সকালের সংবাদ প্রতিনিধি;
ব্রাহ্মণবাড়িয়া ঢাকা সিলেট মহাসড়কের সরাইল বিশ্বরোড মোড়ে মাংস কেনা নিয়ে সংঘর্ষে আহত অর্ধশতাধিক। শুক্রবার সকাল ১০ টা থেকে ঘন্টা ব্যাপী চলে এই সংঘর্ষ।

স্থানীয় সূত্রে জানাযায় শুক্রবার সকালে কুট্রাপাড়া গ্রামের আব্দুল খালেকের ছেলে মোঃ ধন মিয়া(৩৫) মাংস কিনতে যায় বিশ্বরোড খাঁটিহাতা গ্রামের মাংস দোকানী সোলেমানের ছেলে মোঃ কালু মিয়ার দোকানে। মাংসে হাড়ের পরিমাণ বেশি থাকার প্রতিবাদ করায় দুজনের মধ্যে কথা কাটাকাটি হয়। একপর্যায়ে কালু মিয়া এবং তার লোকজন মোঃ ধন মিয়াকে ছুড়িকাঘাত করে। এখবর ছড়িয়ে পড়লে উভয় পক্ষের লোকজন দেশীয় অস্ত্রশস্ত্র নিয়ে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। শুরু হয় ইটপাটকেল নিক্ষেপ উভয় পক্ষের ধাওয়া পাল্টা ধাওয়া। উভয় দিকে কয়েক শত লোক এই সংঘর্ষে জড়িয়ে পড়ে। আর এই সংঘর্ষ থামাতে সরাইল থানা পুলিশ প্রথমে চেষ্টা চালায়, কিন্তু তারা বারবার ব্যার্থ হচ্ছিলো। খাঁটিহাতা গ্রামের লোকজন মার্কেট এবং বাড়ির ছাদে অবস্থান নেয়ায় সংঘর্ষ থামাতে আরো বেগ পেতে হয়। সংঘর্ষের সময় ঢাকা সিলেট মহাসড়কের উভয় দিকে কয়েক কিলোমিটার জুড়ে গাড়ির লাইন পড়ে যায়,সৃষ্টি হয় যানযটের।
পরে জেলাসদর থেকে অতিরিক্ত পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে টিয়ারগ্যাস, রাবার বুলেট ছুড়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে সক্ষম হয়। সংঘর্ষে উভয় পক্ষের প্রায় অর্ধশতাধিক লোক আহত হয়, এছাড়াও সরাইল থানার কয়েক পুলিশও সংঘর্ষে আহত হয়। আহতরা স্থানীয় সরাইল উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসা নিতে দেখা যায়। অনেকে জেলাসদর হাসপাতালে চিকিৎসা নিতে যায়। পুলিশের ছোড়া রাবার বুলেট গিয়ে শরীরে লাগে।
সরাইল থানার ভারপ্রাপ্ত পুলিশ কর্মকর্তা মফিজ উদ্দিন ভুইয়া সকালের সংবাদকে জানান, মাংসে হাড়ের পরিমাণ বেশি দেয়াকে কেন্দ্র করে এই সংঘর্ষ হয়। পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনতে আমরা কয়েক রাউন্ড ফাকা গুলি ও টিয়ারগ্যাস নিক্ষেপ করি। পরিস্থিতি এখন শান্ত রয়েছে যানচলাচল এখন স্বাভাবিক রয়েছে।