ঢাকা ০৩:১২ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১২ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo শাবিপ্রবিতে ২য় দিনে ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন, উপস্থিতি ৯৪.৩৫ শতাংশ Logo রাজস্ব কর্মকর্তা মতিউরের শত কোটি টাকার সম্পদ অর্জন ও গোপন রাখার অভিযোগ Logo শাবিতে সুষ্ঠভাবে সম্পন্ন ঢাবির ভর্তি পরীক্ষা, উপস্থিতি ৯২ শতাংশ Logo ঢাবির ভর্তি পরীক্ষায় শাবিপ্রবিতে স্বেচ্ছাসেবকের দায়িত্বে থাকবে শাবি ছাত্রলীগ Logo এনবিআর সদস্য ড. মতিউর রহমানের সম্পদের পাহাড় শীর্ষক সংবাদের প্রতিবাদ ও প্রতিবেদকের বক্তব্য Logo খুলনায় স্ত্রীসহ খাদ্য কর্মকর্তার বিরুদ্ধে দুদকের মামলা Logo বঙ্গবন্ধু এক্সপ্রেসওয়েতে বাস-ট্রাক সংঘর্ষে নিহত ৩ Logo পাসপোর্ট করতে আসা লোকজনকে ভেতরে ঢুকতে দেন না দালালরা Logo এনবিআর কর্তা মতিউর রাহমান ও তার পরিবারের সম্পদের পাহাড়! পর্ব- ১ Logo কুবি শিক্ষক সমিতির মৌন মানববন্ধন




দেনার দায়ে ভোলায় পল্লী চিকিৎসকের আত্মহত্যা

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১০:৩২:০৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ মে ২০১৯ ৪২ বার পড়া হয়েছে

জেলা প্রতিনিধি ভোলা;
ভোলায় দেনার দায়ে মিনাল কান্দি দে (৬০) নামে এক পল্লী চিকিৎসক আহত্মহত্যা করেছেন। নিহত মিনাল ভোলা সদর উপজেলার বাপ্তা ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ বাপ্তা গ্রামের মৃত যোগেশ কান্তি দে’র ছেলে। সোমবার বিকেলে তার বাড়ির পাশের বাগানে গাছের সঙ্গে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।

স্থানীয়রা ও ভোলা মডেল থানা পুলিশের এসআই মো. ছগীর জানান, মিনাল কান্তি দে একজন পল্লী চিকিৎসক ছিলেন। এছাড়াও তিনি ‘যুবক’ নামে একটি এনজিওর মাঠ কর্মী হিসেবে দীর্ঘদিন কাজ করেছে। ওই সময় স্থানীয়দের কাছ থেকে প্রায় ২০ লাখ টাকা নিয়ে যুবকের কাছে জমা দেয়। পরে গত কয়েক বছর আগে যুবক নামে এনজিওটি উধাও হয়ে গেলে স্থানীয়রা টাকার জন্য মিনাল কান্তিকে চাপ প্রয়োগ করে। ওই সময় স্থানীয়দের চাপে মিনাল কান্তি দীর্ঘদিন এলাকা ছেড়ে পালিয়ে ছিলেন। পরে কয়েক মাস আগে এলাকায় এসে বিভিন্ন এনজিওর কাছ থেকে ঋণ নিয়ে ২/৩ লাখ টাকা পরিশোধ করেন।

গত কয়েক দিন ধরে বাকি লোকজন পাওনা টাকার জন্য তাকে চাপ দিয়ে আসছিল। দেনাদারদের চাপে বিকেলে তিনি আত্মহত্যা করেন। স্থানীয়রা তার ঝুলন্ত লাশ দেখে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে।

ভোলা মডেল থানা পুলিশের ওসি মো. ছগির মিঞা বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




দেনার দায়ে ভোলায় পল্লী চিকিৎসকের আত্মহত্যা

আপডেট সময় : ১০:৩২:০৬ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৩ মে ২০১৯

জেলা প্রতিনিধি ভোলা;
ভোলায় দেনার দায়ে মিনাল কান্দি দে (৬০) নামে এক পল্লী চিকিৎসক আহত্মহত্যা করেছেন। নিহত মিনাল ভোলা সদর উপজেলার বাপ্তা ইউনিয়নের ৩নং ওয়ার্ডের দক্ষিণ বাপ্তা গ্রামের মৃত যোগেশ কান্তি দে’র ছেলে। সোমবার বিকেলে তার বাড়ির পাশের বাগানে গাছের সঙ্গে ফাঁস দিয়ে আত্মহত্যা করেন তিনি।

স্থানীয়রা ও ভোলা মডেল থানা পুলিশের এসআই মো. ছগীর জানান, মিনাল কান্তি দে একজন পল্লী চিকিৎসক ছিলেন। এছাড়াও তিনি ‘যুবক’ নামে একটি এনজিওর মাঠ কর্মী হিসেবে দীর্ঘদিন কাজ করেছে। ওই সময় স্থানীয়দের কাছ থেকে প্রায় ২০ লাখ টাকা নিয়ে যুবকের কাছে জমা দেয়। পরে গত কয়েক বছর আগে যুবক নামে এনজিওটি উধাও হয়ে গেলে স্থানীয়রা টাকার জন্য মিনাল কান্তিকে চাপ প্রয়োগ করে। ওই সময় স্থানীয়দের চাপে মিনাল কান্তি দীর্ঘদিন এলাকা ছেড়ে পালিয়ে ছিলেন। পরে কয়েক মাস আগে এলাকায় এসে বিভিন্ন এনজিওর কাছ থেকে ঋণ নিয়ে ২/৩ লাখ টাকা পরিশোধ করেন।

গত কয়েক দিন ধরে বাকি লোকজন পাওনা টাকার জন্য তাকে চাপ দিয়ে আসছিল। দেনাদারদের চাপে বিকেলে তিনি আত্মহত্যা করেন। স্থানীয়রা তার ঝুলন্ত লাশ দেখে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে লাশ উদ্ধার করে।

ভোলা মডেল থানা পুলিশের ওসি মো. ছগির মিঞা বলেন, খবর পেয়ে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে ময়নাতদন্তের জন্য ভোলা সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠিয়েছে।