ঢাকা ১২:৫০ পূর্বাহ্ন, শনিবার, ১৩ জুলাই ২০২৪, ২৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo পুলিশের হামলার পরও ৬ ঘন্টা ঢাকা-চট্টগ্রাম মহাসড়ক অবরোধে কুবি শিক্ষার্থীর Logo শাবিপ্রবির প্রো-ভিসি অধ্যাপক ড. কবির হোসেনের সফলতার একবছর পূর্তি Logo এবার আলোচনায় আওয়ামী লীগের থানা ওয়ার্ড কমিটিতে পদ বাণিজ্যে! Logo প্রত্যয় স্কিম প্রত্যাহার দাবি Logo শাবি উপাচার্যের কৃতিত্ব; মাত্র ৪বছরেই আয়োজন করছেন ২ বার কনভোকেশন Logo কুবিতে সমাপ্ত হলো আন্তর্জাতিক নাট্য উৎসব Logo পর্দা নামলো থিয়েটার কুবি আয়োজিত দুই দিনের আন্তর্জাতিক নাট্য উৎসব Logo রেলওয়ের নিরাপত্তা বাহিনীর কমান্ড্যান্ট শহীদ উল্লাহর সম্পদের খনি  Logo সাবরেজিস্ট্রার অফিসের হিসেবে ৬৭৭ কোটি টাকার নয় ছয় Logo সাংবাদিকদের নিয়ে মতিউরের স্ত্রীর বিতর্কিত বক্তব্যের প্রতিবাদ: হাজার কোটি টাকা মানহানী মামলার হুমকি বিএমইউজে’ র




সাত মাসের সন্তানকে দোকানে বিক্রি করতে এলেন বাবা!

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:২০:০৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ১২ মে ২০১৯ ৯৮ বার পড়া হয়েছে

অনলাইন ডেস্ক;
নিজের সন্তানকে বিক্রি করতে দোকানে এলেন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার ব্রায়ান স্লোকাম। ছবি: সংগৃহীত।
দোকানের সামনে এসে দাঁড়াল একটি লম্বা চকচকে গাড়ি। চালকের আসন থেকে নেমে পিছনের সিট থেকে সাত মাসের একটি শিশুকে বের করে কোলে তুলে নিলেন। এরপর ম্যানেজারের কাছে এসে বললেন, নিজের সন্তানকে বিক্রি করতে চান তিনি!

কিন্তু ম্যানেজার রাজি না হওয়ায় দ্রুত চলে যান। সঙ্গে সঙ্গে পুরো ঘটনার কথা পুলিশকে জানিয়ে দেন ম্যানেজার। যা নিয়ে ছড়িয়েছে চাঞ্চল্য।

ঘটনাটি যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার সারাসোটার। বছর তেতাল্লিশের ব্রায়ান স্লোকাম গত মঙ্গলবার একটি দোকানে প্রবেশ করেন। তাঁর সঙ্গে ছিল সাত মাসের এক শিশু। দোকানে প্রবেশ থেকে বেরিয়ে আসা পর্যন্ত তাঁর কাণ্ডকারখানা ধরা পড়ে রাস্তা ও দোকানের সিসিটিভিতে। কিন্তু ওই দোকানের মালিক রিচার্ড জর্ডন যেই জানতে পারেন, ব্রায়ানের উদ্দেশ্য আসলে শিশুকে বিক্রি করে দেওয়া, তখন সময় নষ্ট না করে পুলিশে খবর দেন তিনি। সঙ্গে সঙ্গে মার্কিন নাগরিক ব্রায়ানের খোঁজ শুরু করে পুলিশ।

দোকানের সিসিটিভি ফুটেজ দেখে তাঁর পরিচয় জানার চেষ্টা করা হয়। শিশুর সুরক্ষার জন্য জনসাধারণের কাছ থেকেও সাহায্য চায় পুলিশ। অনুরোধ জানায়, ব্রায়ান নামের ওই ব্যক্তিকে দেখতে পেলেই যেন ৯১১ নম্বরে ফোন করে খবর দেওয়া হয়। পুলিশের তরফে জানানো হয়, ওই এলাকায় কোনও শিশু নিরুদ্দেশ হওয়ার রিপোর্ট জমা পড়েনি।

ভর দুপুরে শিশু বিক্রির খবর ছড়িয়ে পড়ে চারদিকে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমও নজর রাখতে শুরু করে এই খবরে। যা কানে গিয়ে পৌঁছায় ব্রায়ানেরও। তিনিই এরপর পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

কিন্তু পুলিশ তাঁর বাড়িতে গিয়ে একেবারেই উলটো কাহিনি জানতে পারে। ব্রায়ান জানান, এটা নেহাতই মজার ছলে করা। তাঁর আত্মীয় তাঁকে মজার ভিডিও বানাতে বলেছিলেন, তাই এই উদ্যোগ। ব্রায়ানের এমন মশকরা অবশ্য একেবারেই ভাল লাগেনি পুলিশের। যদিও তাঁর বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




সাত মাসের সন্তানকে দোকানে বিক্রি করতে এলেন বাবা!

আপডেট সময় : ১১:২০:০৮ অপরাহ্ন, রবিবার, ১২ মে ২০১৯

অনলাইন ডেস্ক;
নিজের সন্তানকে বিক্রি করতে দোকানে এলেন যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার ব্রায়ান স্লোকাম। ছবি: সংগৃহীত।
দোকানের সামনে এসে দাঁড়াল একটি লম্বা চকচকে গাড়ি। চালকের আসন থেকে নেমে পিছনের সিট থেকে সাত মাসের একটি শিশুকে বের করে কোলে তুলে নিলেন। এরপর ম্যানেজারের কাছে এসে বললেন, নিজের সন্তানকে বিক্রি করতে চান তিনি!

কিন্তু ম্যানেজার রাজি না হওয়ায় দ্রুত চলে যান। সঙ্গে সঙ্গে পুরো ঘটনার কথা পুলিশকে জানিয়ে দেন ম্যানেজার। যা নিয়ে ছড়িয়েছে চাঞ্চল্য।

ঘটনাটি যুক্তরাষ্ট্রের ফ্লোরিডার সারাসোটার। বছর তেতাল্লিশের ব্রায়ান স্লোকাম গত মঙ্গলবার একটি দোকানে প্রবেশ করেন। তাঁর সঙ্গে ছিল সাত মাসের এক শিশু। দোকানে প্রবেশ থেকে বেরিয়ে আসা পর্যন্ত তাঁর কাণ্ডকারখানা ধরা পড়ে রাস্তা ও দোকানের সিসিটিভিতে। কিন্তু ওই দোকানের মালিক রিচার্ড জর্ডন যেই জানতে পারেন, ব্রায়ানের উদ্দেশ্য আসলে শিশুকে বিক্রি করে দেওয়া, তখন সময় নষ্ট না করে পুলিশে খবর দেন তিনি। সঙ্গে সঙ্গে মার্কিন নাগরিক ব্রায়ানের খোঁজ শুরু করে পুলিশ।

দোকানের সিসিটিভি ফুটেজ দেখে তাঁর পরিচয় জানার চেষ্টা করা হয়। শিশুর সুরক্ষার জন্য জনসাধারণের কাছ থেকেও সাহায্য চায় পুলিশ। অনুরোধ জানায়, ব্রায়ান নামের ওই ব্যক্তিকে দেখতে পেলেই যেন ৯১১ নম্বরে ফোন করে খবর দেওয়া হয়। পুলিশের তরফে জানানো হয়, ওই এলাকায় কোনও শিশু নিরুদ্দেশ হওয়ার রিপোর্ট জমা পড়েনি।

ভর দুপুরে শিশু বিক্রির খবর ছড়িয়ে পড়ে চারদিকে। স্থানীয় সংবাদমাধ্যমও নজর রাখতে শুরু করে এই খবরে। যা কানে গিয়ে পৌঁছায় ব্রায়ানেরও। তিনিই এরপর পুলিশের সঙ্গে যোগাযোগ করেন।

কিন্তু পুলিশ তাঁর বাড়িতে গিয়ে একেবারেই উলটো কাহিনি জানতে পারে। ব্রায়ান জানান, এটা নেহাতই মজার ছলে করা। তাঁর আত্মীয় তাঁকে মজার ভিডিও বানাতে বলেছিলেন, তাই এই উদ্যোগ। ব্রায়ানের এমন মশকরা অবশ্য একেবারেই ভাল লাগেনি পুলিশের। যদিও তাঁর বিরুদ্ধে কোনও অভিযোগ দায়ের করা হয়নি।