ঢাকা ০৮:২৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২২ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ




শাহরাস্তিতে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ, আটক ২

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:০৪:০৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ মে ২০১৯ ৫৩ বার পড়া হয়েছে

হাজীগঞ্জ (চাঁদপুর) সংবাদদাতা;
চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী (২০) কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে শাহরাস্তি থানায় ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন। বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী মেয়েটির বাড়ি শাহরাস্তি উপজেলার মেহের উত্তর ইউনিয়নে।

ওই কিশোরীর মা জানান, আমার মেয়ে সেহরী খাওয়ার পর ভোরে বাড়ীর আঙ্গিনায় আমকুড়াচ্ছিল। ফজর নামাজের পরে তাকে না পেয়ে বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করা হয়।

ফজর নামাজ শেষে মসজিদের মুসল্লিরা বাড়ি যাওয়ার পথে আমুজান এলাকার বাগান বাড়িতে একটি মেয়েকে কাঁদতে দেখে পাশে দাঁড়িয়ে থাকা যুবককে আটক করে। পরে মেয়ের পরনের কাপড় খোলা দেখে ধর্ষক জিহাদকে (১৮) গণধোলাই দেয়। জিহাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী বাগানের ভেতর থেকে সিএনজি চালক ফাহিমকে (২০) আটক করা হয়।

আটককৃতদের গণধোলাই দিয়ে কালিয়াপাড়ায় এনে শাহরাস্তি থানায় খবর দেয়া হয়। শাহরাস্তি থানার এসআই আবদুল আউয়াল ২ ধর্ষককে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে।

গ্রেফতার জিহাদ কচুয়া উপজেলার চন্দিয়াপাড়া গ্রামের মোল্লা বাড়ীর মৃত ইব্রাহীম মোল্লার ছেলে এবং ফাহিম (২০) একই উপজেলার আমুজান গ্রামের মৃত জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে। ফাহিম পেশায় সিএনজি চালক।

আটক জিহাদ জানায়, ফাহিম মেয়েকে আম কুড়াতে দেখে আমাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে মেয়েটিকে মুখে কাপড় বেঁধে সিএনজিতে করে কচুয়া উপজেলার আমুজান বাগানে নিয়ে যাওয়া হয়।

শাহরস্তি থানার ওসি মো. শাহ আলম জানান, এ ঘটনায় শাহরাস্তি থানায় মেয়ের মা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। গ্রেফতার ২ ধর্ষককে কোর্টে প্রেরণ করা হবে। ভিকটিমের ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য চাঁদপুর প্রেরণ করা হবে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




শাহরাস্তিতে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী কিশোরীকে ধর্ষণ, আটক ২

আপডেট সময় : ০২:০৪:০৩ অপরাহ্ন, শনিবার, ১১ মে ২০১৯

হাজীগঞ্জ (চাঁদপুর) সংবাদদাতা;
চাঁদপুরের শাহরাস্তিতে বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী (২০) কিশোরীকে ধর্ষণের অভিযোগে দুইজনকে আটক করেছে পুলিশ। এ ঘটনায় ধর্ষিতার মা বাদী হয়ে শাহরাস্তি থানায় ধর্ষণের অভিযোগে মামলা দায়ের করেছেন। বুদ্ধিপ্রতিবন্ধী মেয়েটির বাড়ি শাহরাস্তি উপজেলার মেহের উত্তর ইউনিয়নে।

ওই কিশোরীর মা জানান, আমার মেয়ে সেহরী খাওয়ার পর ভোরে বাড়ীর আঙ্গিনায় আমকুড়াচ্ছিল। ফজর নামাজের পরে তাকে না পেয়ে বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করা হয়।

ফজর নামাজ শেষে মসজিদের মুসল্লিরা বাড়ি যাওয়ার পথে আমুজান এলাকার বাগান বাড়িতে একটি মেয়েকে কাঁদতে দেখে পাশে দাঁড়িয়ে থাকা যুবককে আটক করে। পরে মেয়ের পরনের কাপড় খোলা দেখে ধর্ষক জিহাদকে (১৮) গণধোলাই দেয়। জিহাদের স্বীকারোক্তি অনুযায়ী বাগানের ভেতর থেকে সিএনজি চালক ফাহিমকে (২০) আটক করা হয়।

আটককৃতদের গণধোলাই দিয়ে কালিয়াপাড়ায় এনে শাহরাস্তি থানায় খবর দেয়া হয়। শাহরাস্তি থানার এসআই আবদুল আউয়াল ২ ধর্ষককে গ্রেফতার করে থানায় নিয়ে আসে।

গ্রেফতার জিহাদ কচুয়া উপজেলার চন্দিয়াপাড়া গ্রামের মোল্লা বাড়ীর মৃত ইব্রাহীম মোল্লার ছেলে এবং ফাহিম (২০) একই উপজেলার আমুজান গ্রামের মৃত জাহাঙ্গীর আলমের ছেলে। ফাহিম পেশায় সিএনজি চালক।

আটক জিহাদ জানায়, ফাহিম মেয়েকে আম কুড়াতে দেখে আমাকে বাড়ি থেকে ডেকে নিয়ে যায়। সেখানে মেয়েটিকে মুখে কাপড় বেঁধে সিএনজিতে করে কচুয়া উপজেলার আমুজান বাগানে নিয়ে যাওয়া হয়।

শাহরস্তি থানার ওসি মো. শাহ আলম জানান, এ ঘটনায় শাহরাস্তি থানায় মেয়ের মা বাদী হয়ে মামলা দায়ের করেছেন। গ্রেফতার ২ ধর্ষককে কোর্টে প্রেরণ করা হবে। ভিকটিমের ডাক্তারী পরীক্ষার জন্য চাঁদপুর প্রেরণ করা হবে।