• ১৯শে আগস্ট ২০২২ খ্রিস্টাব্দ , ৪ঠা ভাদ্র ১৪২৯ বঙ্গাব্দ

‘ধানমন্ডি-নিউমার্কেটের প্রধান সড়কে বন্ধ হচ্ছে রিকশা’

সকালের সংবাদ ডেস্ক;
প্রকাশিত মে ৫, ২০১৯, ২৩:৩৪ অপরাহ্ণ
‘ধানমন্ডি-নিউমার্কেটের প্রধান সড়কে বন্ধ হচ্ছে রিকশা’

নিজস্ব প্রতিবেদক;
যানজট কমাতে আসন্ন ঈদুল ফিতরের পর ধানমন্ডি ও নিউমার্কেট এলাকার প্রধান সড়কগুলোতে রিকশা চলাচল বন্ধ করা হবে। এ কথা জানিয়েছেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি করপোরেশনের (ডিএসসিসি) মেয়র মোহাম্মদ সাঈদ খোকন।

ডিএসসিসির নগর ভবনে আজ রোববার বিকেলে গণপরিবহনে শৃঙ্খলা আনতে গঠিত বাস রুট রেশনালাইজেশন-সংক্রান্ত কমিটির এক বৈঠক শেষে মেয়র সাংবাদিকদের এই তথ্য জানান।

ডিএসসিসি মেয়র বলেন, যাত্রীদের আরামদায়ক ও নিরাপদে যাত্রা নিশ্চিত করতে সম্প্রতি ধানমন্ডি ও নিউমার্কেট এলাকাকে ঘিরে বাংলাদেশ সড়ক পরিবহন করপোরেশনের (বিআরটিসি) চক্রাকার বাস (শীতাতপ নিয়ন্ত্রিত) সেবা চালু হয়েছে। কিন্তু রিকশার কারণে নিউমার্কেট, নীলক্ষেত, সায়েন্স ল্যাব, সাতমসজিদ রোডসহ অন্যান্য এলাকায় তীব্র যানজটের সৃষ্টি হয়। এতে নির্দিষ্ট সময়ের মধ্যে বাসগুলো গন্তব্য পৌঁছাতে পারে না বলে অভিযোগ রয়েছে। তাই ঈদুল ফিতরের পর এই এলাকার প্রধান সড়কগুলোতে রিকশা চলাচল নিয়ন্ত্রণ করা হবে।

মেয়র আরও বলেন, ধানমন্ডি ও নিউমার্কেট এলাকায় চক্রাকার বাস সার্ভিস চালু করায় নাগরিকদের যাতায়াতে অনেক সুবিধা হয়েছে। এই এলাকাগুলোতে চক্রাকারভাবে প্রায় ২০টি বাস চলছে। নির্দিষ্ট স্থান থেকে টিকিট কেটে গাড়িতে ওঠা-নামা করতে পারছেন যাত্রীরা। এখন রাস্তা থেকে রিকশা উঠিয়ে যানজট সহনীয় মাত্রায় আনতে পারলে এই এলাকায় অল্প দূরত্বে যাতায়াতে ব্যক্তিগত গাড়ির সংখ্যাও ক্রমান্বয়ে কমে যাবে।

মেয়র সাঈদ খোকন বলেন, গত এপ্রিলের শেষ দিকে এবং মে মাসের প্রথম সপ্তাহে মতিঝিল ও উত্তরায় চক্রাকার বাস সেবা চালু করার কথা ছিল। কিন্তু এই এলাকাগুলো নিয়ে বিআরটিসি আরও পর্যবেক্ষণ করছে। ২০ মে বাস রুট রেশনালাইজেশন-সংক্রান্ত গঠিত কমিটির সভা হবে। এই সভায় মতিঝিল ও উত্তরায় চক্রাকার বাস চালুর বিষয়ে সিদ্ধান্ত জানানো হবে। তিনি বলেন, গতকাল বাস রুট রেশনালাইজেশন-সংক্রান্ত কমিটির অষ্টম সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। এই কমিটির আগের সিদ্ধান্ত অনুযায়ী ৬টি কোম্পানির অধীনে ২২টি রোডে নগরীতে বাস চলাচল করার সিদ্ধান্ত হয়েছিল। এসব সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে পরিবহনমালিক নেতাসহ সংশ্লিষ্টদের নিয়ে বৈঠক করেছি। তাঁরা ভিন্ন ভিন্ন মত দিয়েছেন। কিছু বিষয় পর্যালোচনার করার জন্য কয়েকজনকে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। পরবর্তী সভায় এই বিষয়ে অগ্রগতি জানানো হবে।

বাস রুট রেশনালাইজেশন কমিটির সভায় নগরীর বিভিন্ন সেবা সংস্থার প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।

error: Content is protected !!