ঢাকা ০৪:৫১ পূর্বাহ্ন, রবিবার, ২৩ জুন ২০২৪, ৮ আষাঢ় ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :




বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন চলছে

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:৪২:৪৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ এপ্রিল ২০১৯ ১৩০ বার পড়া হয়েছে

বরিশাল ব্যুরো;

উপাচার্যের অপসারণের এক দফা দাবিতে ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জন করে অবস্থান কর্মসূচি পালন অব্যাহত রেখেছেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। শনিবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের নিচতলায় এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

বুধবার থেকে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা ওই দাবিতে আমরণ অনশন শুরু করেছিলেন। কিন্তু শুক্রবার সন্ধ্যায় উপাচার্যকে পূর্ণ মেয়াদে ছুটিতে পাঠানো হবে এমন আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে তারা অনশন ভঙ্গ করলেও গত ২৭ মার্চ থেকে শুরু করা আন্দোলন অব্যাহত রেখেছেন।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের অন্যতম মো. শফিকুল ইসলাম জানান, উপাচার্যের অপসারণ দাবিতে এক মাসের বেশি সময় ধরে আন্দোলন করছেন তারা। স্থানীয় সুশীল সমাজের অনুরোধে শুক্রবার সন্ধ্যায় তারা কর্মসূচি স্থগিত করেন। তবে ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জনসহ অবস্থান কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছেন। এদিনের কর্মসূচিতে কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও অংশ নেন বলে জানান শফিকুল ইসলাম।

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর মিয়া বলেন, আগামী সোমবারের মধ্যে উপাচার্যকে অপসারণ অথবা পূর্ণ মেয়াদে ছুটিতে পাঠানো না হলে শিক্ষার্থী এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে আলোচনা করে আরও কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে।

২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আমন্ত্রণ না জানানোয় প্রতিবাদ করলে উপাচার্য অধ্যাপক ড. এসএম ইমামুল হক শিক্ষার্থীদের ‘রাজাকারের বাচ্চা’ বলে গালি দেন বলে অভিযোগ ওঠে। তার পর দিন থেকে উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিতে শিক্ষার্থীরা একাডেমিক ও প্রশাসনিক ভবন তালাবদ্ধ করে আন্দোলন করে আসছেন। ফলে এক মাস ধরে অচলাবস্থা বিরাজ করছে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে ক্লাস-পরীক্ষা বর্জন চলছে

আপডেট সময় : ১২:৪২:৪৫ অপরাহ্ন, রবিবার, ২৮ এপ্রিল ২০১৯

বরিশাল ব্যুরো;

উপাচার্যের অপসারণের এক দফা দাবিতে ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জন করে অবস্থান কর্মসূচি পালন অব্যাহত রেখেছেন বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা। শনিবার সকাল ১০টা থেকে দুপুর ২টা পর্যন্ত বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবনের নিচতলায় এ কর্মসূচি পালন করা হয়।

বুধবার থেকে শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা ওই দাবিতে আমরণ অনশন শুরু করেছিলেন। কিন্তু শুক্রবার সন্ধ্যায় উপাচার্যকে পূর্ণ মেয়াদে ছুটিতে পাঠানো হবে এমন আশ্বাসের পরিপ্রেক্ষিতে তারা অনশন ভঙ্গ করলেও গত ২৭ মার্চ থেকে শুরু করা আন্দোলন অব্যাহত রেখেছেন।

আন্দোলনরত শিক্ষার্থীদের অন্যতম মো. শফিকুল ইসলাম জানান, উপাচার্যের অপসারণ দাবিতে এক মাসের বেশি সময় ধরে আন্দোলন করছেন তারা। স্থানীয় সুশীল সমাজের অনুরোধে শুক্রবার সন্ধ্যায় তারা কর্মসূচি স্থগিত করেন। তবে ক্লাস ও পরীক্ষা বর্জনসহ অবস্থান কর্মসূচি অব্যাহত রেখেছেন। এদিনের কর্মসূচিতে কর্মকর্তা-কর্মচারীরাও অংশ নেন বলে জানান শফিকুল ইসলাম।

বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আবু জাফর মিয়া বলেন, আগামী সোমবারের মধ্যে উপাচার্যকে অপসারণ অথবা পূর্ণ মেয়াদে ছুটিতে পাঠানো না হলে শিক্ষার্থী এবং কর্মকর্তা-কর্মচারীদের সঙ্গে আলোচনা করে আরও কঠোর কর্মসূচি দেওয়া হবে।

২৬ মার্চ স্বাধীনতা দিবসের অনুষ্ঠানে বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের আমন্ত্রণ না জানানোয় প্রতিবাদ করলে উপাচার্য অধ্যাপক ড. এসএম ইমামুল হক শিক্ষার্থীদের ‘রাজাকারের বাচ্চা’ বলে গালি দেন বলে অভিযোগ ওঠে। তার পর দিন থেকে উপাচার্যের পদত্যাগ দাবিতে শিক্ষার্থীরা একাডেমিক ও প্রশাসনিক ভবন তালাবদ্ধ করে আন্দোলন করে আসছেন। ফলে এক মাস ধরে অচলাবস্থা বিরাজ করছে বরিশাল বিশ্ববিদ্যালয়ে।