ঢাকা ১০:৫৩ অপরাহ্ন, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ১৬ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ বঙ্গাব্দ




‘আমার সঙ্গে নির্বাচন করলে খালেদা জিয়ারও জামানত বাজেয়াপ্ত হবে’

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:২৪:১১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ নভেম্বর ২০১৮ ১৭ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক,

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী তালিকা প্রায় চূড়ান্ত করে ফেলেছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। রোববার দলটির চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশের কথা রয়েছে। তবে তৃণমূল নেতা-কর্মীদের আপত্তির মুখে শেষ মূহুর্তে প্রার্থী তালিকায় কিছুটা রদবদলের সম্ভবনা রয়েছে।

জানা যায়, বিভিন্ন গণমাধ্যমে আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীদের তালিকা প্রকাশের পর ঢাকায় ছুটে আসেন মনোনয়নবঞ্চিত নেতাকর্মীরা। গণভবনে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে ক্ষোভের কথা জানান তারা।

সূত্র জানায়, বুধবার গণভবনে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেন যুব মহিলা লীগের সহশিক্ষা, প্রশিক্ষণ ও পাঠাগার সম্পাদক সরকার ফারহানা আক্তার সুমি।

তিনি নীলফামারী-১ আসনে দলের প্রার্থিতার বিষয়ে শেখ হাসিনাকে বলেন, নেত্রী, আমি চ্যালেঞ্জ দিচ্ছি, এই আসনে যদি খালেদা জিয়াও এসে আমার সঙ্গে নির্বাচন করেন তাহলে তাঁর জামানত বাজেয়াপ্ত হবে।

ওই আসনের বর্তমান এমপি আফতাব উদ্দিন সরকারের বিরুদ্ধে জনবিচ্ছিন্নতার অভিযোগ এনে সুমি বলেন, তাঁকে মনোনয়ন দেওয়া হলে নৌকার ভরাডুবি হবে।

এসময় তার কথা শুনে হাততালি দেন শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী বৈঠকে উপস্থিত আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরসহ কেন্দ্রীয় নেতাদের বলেন, দেখো দেখো, তাঁর কনফিডেন্স কী রকম?

সূত্র জানায়, আবেগাপ্লুত শেখ হাসিনা দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে সুমির নাম নোট করে রাখার জন্য বলেন।

পরে ফারহানা আক্তার সুমি গতকাল গণমাধ্যমকে বলেন, আমার এলাকার জনগণ আমার জন্য কাঁদছে। এখান থেকে আমি সরে যাব কেন?

সুমি জানান, তাঁর মনে হয়েছে নেত্রী (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) কিছু আসনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করতে পারেন।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




‘আমার সঙ্গে নির্বাচন করলে খালেদা জিয়ারও জামানত বাজেয়াপ্ত হবে’

আপডেট সময় : ১১:২৪:১১ অপরাহ্ন, শনিবার, ২৪ নভেম্বর ২০১৮

নিজস্ব প্রতিবেদক,

আসন্ন একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে প্রার্থী তালিকা প্রায় চূড়ান্ত করে ফেলেছে ক্ষমতাসীন দল আওয়ামী লীগ। রোববার দলটির চূড়ান্ত প্রার্থী তালিকা প্রকাশের কথা রয়েছে। তবে তৃণমূল নেতা-কর্মীদের আপত্তির মুখে শেষ মূহুর্তে প্রার্থী তালিকায় কিছুটা রদবদলের সম্ভবনা রয়েছে।

জানা যায়, বিভিন্ন গণমাধ্যমে আওয়ামী লীগের সম্ভাব্য প্রার্থীদের তালিকা প্রকাশের পর ঢাকায় ছুটে আসেন মনোনয়নবঞ্চিত নেতাকর্মীরা। গণভবনে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সঙ্গে সাক্ষাৎ করে ক্ষোভের কথা জানান তারা।

সূত্র জানায়, বুধবার গণভবনে প্রধানমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগ সভাপতি শেখ হাসিনার সঙ্গে দেখা করেন যুব মহিলা লীগের সহশিক্ষা, প্রশিক্ষণ ও পাঠাগার সম্পাদক সরকার ফারহানা আক্তার সুমি।

তিনি নীলফামারী-১ আসনে দলের প্রার্থিতার বিষয়ে শেখ হাসিনাকে বলেন, নেত্রী, আমি চ্যালেঞ্জ দিচ্ছি, এই আসনে যদি খালেদা জিয়াও এসে আমার সঙ্গে নির্বাচন করেন তাহলে তাঁর জামানত বাজেয়াপ্ত হবে।

ওই আসনের বর্তমান এমপি আফতাব উদ্দিন সরকারের বিরুদ্ধে জনবিচ্ছিন্নতার অভিযোগ এনে সুমি বলেন, তাঁকে মনোনয়ন দেওয়া হলে নৌকার ভরাডুবি হবে।

এসময় তার কথা শুনে হাততালি দেন শেখ হাসিনা। প্রধানমন্ত্রী বৈঠকে উপস্থিত আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরসহ কেন্দ্রীয় নেতাদের বলেন, দেখো দেখো, তাঁর কনফিডেন্স কী রকম?

সূত্র জানায়, আবেগাপ্লুত শেখ হাসিনা দলের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরকে সুমির নাম নোট করে রাখার জন্য বলেন।

পরে ফারহানা আক্তার সুমি গতকাল গণমাধ্যমকে বলেন, আমার এলাকার জনগণ আমার জন্য কাঁদছে। এখান থেকে আমি সরে যাব কেন?

সুমি জানান, তাঁর মনে হয়েছে নেত্রী (প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা) কিছু আসনের বিষয়ে সিদ্ধান্ত পুনর্বিবেচনা করতে পারেন।