ঢাকা ০২:৩৪ অপরাহ্ন, রবিবার, ০৩ মার্চ ২০২৪, ২০ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo ১৭ মার্চ ও ২৬ মার্চের আহ্বায়কসহ তিনজনকে প্রত্যাহারের আহ্বান কুবি শিক্ষক সমিতির Logo সিলেটে সাইবার ট্রাইব্যুনালে ছাত্রদল ও ছাত্রশিবির সদস্যের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের Logo ড. ইউনূসের মামলা পর্যবেক্ষণ করছে জাতিসংঘ Logo কাভার্ডভ্যান ও অটোরিকশার সংঘর্ষে ছাত্র নিহত, আহত ৩ Logo রাজশাহীতে যুবলীগ কর্মীকে কুপিয়ে হত্যার ঘটনায় গ্রেপ্তার ৫ Logo এবার ঢাবি অধ্যাপক নাদিরের বিরুদ্ধে যৌন নিপীড়নের অভিযোগ  Logo সন্দ্বীপ থানার ওসির পিপিএম পদক লাভ Logo মালয়েশিয়ায় ১৩৪ বাংলাদেশি গ্রেফতার Logo শাবির ছাত্রীহলে ফিঙ্গারপ্রিন্ট স্থাপন, কমবে চুরি ও বহিরাগত প্রবেশ, বাড়বে নিরাপত্তা Logo গণতন্ত্র মঞ্চের কর্মসূচিতে হামলার নিন্দা ১২ দলীয় জোটের




রিভিউয়ে আদেশ; মধুমতির প্রকল্প অবৈধই থাকল

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১১:৫২:০৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯ ১০২ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক |
সাভারের আমিনবাজারের বিলামালিয়া ও বেইলারপুর মৌজায় মধুমতি মডেল টাউন প্রকল্প অবৈধ ও বেআইনি ঘোষণার রায় পুনর্বিবেচনা (রিভিউ) চেয়ে যে আবেদন করা হয়েছিল তা খারিজ হয়ে গেছে।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে গঠিত আপিল বেঞ্চ গতকাল বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন। এর আগে ২০১২ সালের ৭ আগস্ট এক রায়ে ওই প্রকল্প অবৈধ ঘোষণা করে রায় দেয় আপিল বিভাগ। পরে এটি পুনর্বিবেচনা চেয়ে রিভিউ আবেদন করা হয়, যেটি খারিজ হয়ে গেল।

সর্বোচ্চ আদালতের রায়ের ফলে এখন ওই প্রকল্পের ক্রেতাদের প্লটের দামের দ্বিগুণ অর্থ প্রকল্পের নির্মাতা প্রতিষ্ঠান মেট্রো মেকার্সকে ফেরত দিতে হবে। একই সঙ্গে বিলামালিয়া ও বেইলারপুর মৌজার যে জলাভূমি ভরাট করে মধুমতি মডেল টাউন প্রকল্প গড়ে তোলা হয়েছিল সেটি আগামী ছয় মাসের মধ্যে পূর্বাবস্থায় ফিরিয়ে নিতে হবে।

আমিন বাজারের ওই এলাকা ভরাট করে মধুমতি মডেল টাউন প্রকল্প বাস্তবায়নের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে ২০০৪ সালের ১৪ আগস্ট হাইকোর্টে রিট আবেদন করে বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি (বেলা)। শুনানি নিয়ে ২০০৫ সালের ২৭ জুলাই এক রায়ে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ প্রকল্পটি অবৈধ ঘোষণা করে। পরে আপিল বিভাগেও ওই রায় বহাল থকে। রায়ে প্রকল্পের ভূমি ছয় মাসের মধ্যে পূর্বাবস্থায় ফিরিয়ে আনতে এবং এই সময়ের মধ্যে ভূমি নিবন্ধনের খরচসহ ক্রেতাদের কাছ থেকে নেয়া অর্থের দ্বিগুণ ফেরত দিতে নির্দেশ দেয়া হয়।

আদালতে রিভিউ আবেদনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী মুনসুরুল হক চৌধুরী, আব্দুল মতিন খসরু ও শেখ ফজলে নূর তাপস। বেলার পক্ষে ছিলেন ফিদা এম কামাল ও সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান।

আপিল বিভাগের রায়ের পর সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান গণমাধ্যমকে বলেন, এ রায়ের ফলে মধুমতি মডেল টাউনের ওই প্রকল্প চূড়ান্তভাবে অবৈধ হয়ে গেল।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




রিভিউয়ে আদেশ; মধুমতির প্রকল্প অবৈধই থাকল

আপডেট সময় : ১১:৫২:০৩ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৫ এপ্রিল ২০১৯

নিজস্ব প্রতিবেদক |
সাভারের আমিনবাজারের বিলামালিয়া ও বেইলারপুর মৌজায় মধুমতি মডেল টাউন প্রকল্প অবৈধ ও বেআইনি ঘোষণার রায় পুনর্বিবেচনা (রিভিউ) চেয়ে যে আবেদন করা হয়েছিল তা খারিজ হয়ে গেছে।

প্রধান বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেনের নেতৃত্বে গঠিত আপিল বেঞ্চ গতকাল বৃহস্পতিবার এ আদেশ দেন। এর আগে ২০১২ সালের ৭ আগস্ট এক রায়ে ওই প্রকল্প অবৈধ ঘোষণা করে রায় দেয় আপিল বিভাগ। পরে এটি পুনর্বিবেচনা চেয়ে রিভিউ আবেদন করা হয়, যেটি খারিজ হয়ে গেল।

সর্বোচ্চ আদালতের রায়ের ফলে এখন ওই প্রকল্পের ক্রেতাদের প্লটের দামের দ্বিগুণ অর্থ প্রকল্পের নির্মাতা প্রতিষ্ঠান মেট্রো মেকার্সকে ফেরত দিতে হবে। একই সঙ্গে বিলামালিয়া ও বেইলারপুর মৌজার যে জলাভূমি ভরাট করে মধুমতি মডেল টাউন প্রকল্প গড়ে তোলা হয়েছিল সেটি আগামী ছয় মাসের মধ্যে পূর্বাবস্থায় ফিরিয়ে নিতে হবে।

আমিন বাজারের ওই এলাকা ভরাট করে মধুমতি মডেল টাউন প্রকল্প বাস্তবায়নের বৈধতা চ্যালেঞ্জ করে ২০০৪ সালের ১৪ আগস্ট হাইকোর্টে রিট আবেদন করে বাংলাদেশ পরিবেশ আইনবিদ সমিতি (বেলা)। শুনানি নিয়ে ২০০৫ সালের ২৭ জুলাই এক রায়ে হাইকোর্টের একটি বেঞ্চ প্রকল্পটি অবৈধ ঘোষণা করে। পরে আপিল বিভাগেও ওই রায় বহাল থকে। রায়ে প্রকল্পের ভূমি ছয় মাসের মধ্যে পূর্বাবস্থায় ফিরিয়ে আনতে এবং এই সময়ের মধ্যে ভূমি নিবন্ধনের খরচসহ ক্রেতাদের কাছ থেকে নেয়া অর্থের দ্বিগুণ ফেরত দিতে নির্দেশ দেয়া হয়।

আদালতে রিভিউ আবেদনের পক্ষে শুনানিতে ছিলেন আইনজীবী মুনসুরুল হক চৌধুরী, আব্দুল মতিন খসরু ও শেখ ফজলে নূর তাপস। বেলার পক্ষে ছিলেন ফিদা এম কামাল ও সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান।

আপিল বিভাগের রায়ের পর সৈয়দা রিজওয়ানা হাসান গণমাধ্যমকে বলেন, এ রায়ের ফলে মধুমতি মডেল টাউনের ওই প্রকল্প চূড়ান্তভাবে অবৈধ হয়ে গেল।