ঢাকা ০৭:১৫ পূর্বাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৯ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১৭ ফাল্গুন ১৪৩০ বঙ্গাব্দ




বিধ্বংসী স্পেলে ক্যারিয়ার সেরা বোলিং সাইফউদ্দিনের

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:৪৯:৩৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০১৯ ১০১ বার পড়া হয়েছে

ক্রীড়া প্রতিবেদক;
শুরুর বিপর্যয় আর শেষদিকে ছন্দপতন, মাঝখানে নাজমুল হোসেন শান্ত এবং ওয়াসিম জাফরের ১৪৬ রানের লম্বা জুটি। তারই ফলশ্রুতিতে ২৫১ রানে থামে আবাহনী লিমিটেডের স্কোর। যা প্রিমিয়ার ক্রিকেটের মানদণ্ডে বড়সড় পুঁজি নয়।

কিন্তু শেরে বাংলায় পশ্চিম দিক থেকে দুই নম্বর উইকেটের তুলনায় লড়িয়ে পুঁজিই বটে। কারণ গুড লেন্থ ও থ্রি কোয়ার্টার লেন্থে কিছু ঘাস আছে। সেখানেই প্রথম সেশনে মুভমেন্ট পেয়েছিলেন আবু জায়েদ রাহি এবং ফরহাদ রেজা।

লাঞ্চের পর ভরদুপুরে তার চেয়ে অনেক বেশি সুইং আদায় করে নিলেন সাইফউদ্দিন। তার সুইংয়েই কুপোকাত প্রাইম দোলেশ্বর টপ-মিডল অর্ডার। থ্রি কোয়ার্টার থেকে লেন্থ থেক মিডল স্টাম্প ও অফস্টাম্পের মাঝামাঝি জায়গায় ফেলে আউটসুইং করিয়েছেন সাইফউদ্দিন।

সে বিষাক্ত সুইংয়েই আউট প্রাইম দোলেশ্বরের প্রথম তিন ব্যাটসম্যান ইমরানউজ্জামান, সৈকত আলী এবং ফরহাদ হোসেন। এর মধ্যে সৈকত আউট হয়েছেন এক্সপ্রেস ডেলিভারিতে। ফরহাদ আউট হয়েছেন জেনুইন আউটসুইংয়ে।

উইকেটে এসে থিতু হওয়ার আগেই সাইফের চতুর্থ শিকারে পরিণত হন মার্শাল আইয়্যুব। অনেকটা লেগ কাটার ধরনের ডেলিভারিটি ফ্লিক করতে গিয়ে বোল্ড হন তিনি। একই পরিণতি হয় সাঈফ হাসানেরও। সোজা বলে লাইন মিস করে বোল্ড হন তিনি। মাত্র ৬ ওভারেই ৫ উইকেট পূরণ হয়ে যায় সাইফউদ্দিনের।

প্রথম স্পেলে সাইফউদ্দিনের বোলিং ফিগার দাঁড়ায় ৬-২-৯-৫! যা কি-না লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারে তার ব্যক্তিগত সেরা বোলিং। এর আগে ২৬ রানে ৩ উইকেট শিকার ছিলো সাইফউদ্দিনের ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ের উদাহরণ।

৬ ওভার বোলিং করে সাইফউদ্দিন ব্রেক নিলে উইকেট শিকারে যোগ দেন সৌম্য সরকার। নিজের প্রথম ওভারেই তিনি সাজঘরে পাঠান তাইবুর পারভেজকে। ২৫২ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ১৬ ওভারে মাত্র ৪৯ রান তুলতেই ৬ উইকেট হারিয়ে রীতিমতো অন্ধকারে খাবি খাচ্ছে প্রাইম দোলেশ্বর।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




বিধ্বংসী স্পেলে ক্যারিয়ার সেরা বোলিং সাইফউদ্দিনের

আপডেট সময় : ০২:৪৯:৩৭ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০১৯

ক্রীড়া প্রতিবেদক;
শুরুর বিপর্যয় আর শেষদিকে ছন্দপতন, মাঝখানে নাজমুল হোসেন শান্ত এবং ওয়াসিম জাফরের ১৪৬ রানের লম্বা জুটি। তারই ফলশ্রুতিতে ২৫১ রানে থামে আবাহনী লিমিটেডের স্কোর। যা প্রিমিয়ার ক্রিকেটের মানদণ্ডে বড়সড় পুঁজি নয়।

কিন্তু শেরে বাংলায় পশ্চিম দিক থেকে দুই নম্বর উইকেটের তুলনায় লড়িয়ে পুঁজিই বটে। কারণ গুড লেন্থ ও থ্রি কোয়ার্টার লেন্থে কিছু ঘাস আছে। সেখানেই প্রথম সেশনে মুভমেন্ট পেয়েছিলেন আবু জায়েদ রাহি এবং ফরহাদ রেজা।

লাঞ্চের পর ভরদুপুরে তার চেয়ে অনেক বেশি সুইং আদায় করে নিলেন সাইফউদ্দিন। তার সুইংয়েই কুপোকাত প্রাইম দোলেশ্বর টপ-মিডল অর্ডার। থ্রি কোয়ার্টার থেকে লেন্থ থেক মিডল স্টাম্প ও অফস্টাম্পের মাঝামাঝি জায়গায় ফেলে আউটসুইং করিয়েছেন সাইফউদ্দিন।

সে বিষাক্ত সুইংয়েই আউট প্রাইম দোলেশ্বরের প্রথম তিন ব্যাটসম্যান ইমরানউজ্জামান, সৈকত আলী এবং ফরহাদ হোসেন। এর মধ্যে সৈকত আউট হয়েছেন এক্সপ্রেস ডেলিভারিতে। ফরহাদ আউট হয়েছেন জেনুইন আউটসুইংয়ে।

উইকেটে এসে থিতু হওয়ার আগেই সাইফের চতুর্থ শিকারে পরিণত হন মার্শাল আইয়্যুব। অনেকটা লেগ কাটার ধরনের ডেলিভারিটি ফ্লিক করতে গিয়ে বোল্ড হন তিনি। একই পরিণতি হয় সাঈফ হাসানেরও। সোজা বলে লাইন মিস করে বোল্ড হন তিনি। মাত্র ৬ ওভারেই ৫ উইকেট পূরণ হয়ে যায় সাইফউদ্দিনের।

প্রথম স্পেলে সাইফউদ্দিনের বোলিং ফিগার দাঁড়ায় ৬-২-৯-৫! যা কি-না লিস্ট ‘এ’ ক্যারিয়ারে তার ব্যক্তিগত সেরা বোলিং। এর আগে ২৬ রানে ৩ উইকেট শিকার ছিলো সাইফউদ্দিনের ক্যারিয়ার সেরা বোলিংয়ের উদাহরণ।

৬ ওভার বোলিং করে সাইফউদ্দিন ব্রেক নিলে উইকেট শিকারে যোগ দেন সৌম্য সরকার। নিজের প্রথম ওভারেই তিনি সাজঘরে পাঠান তাইবুর পারভেজকে। ২৫২ রানের লক্ষ্যে খেলতে নেমে ১৬ ওভারে মাত্র ৪৯ রান তুলতেই ৬ উইকেট হারিয়ে রীতিমতো অন্ধকারে খাবি খাচ্ছে প্রাইম দোলেশ্বর।