ঢাকা ০৬:৫৭ অপরাহ্ন, শুক্রবার, ২৪ মে ২০২৪, ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo এমপি আনার খুন: রহস্যময় রূপে শীর্ষ দুই ব্যবসায়ী Logo রূপালী ব্যাংকের ডিজিএম কর্তৃক সহকর্মী নারীকে যৌন হয়রানি: ধামাচাপা দিতে মরিয়া তদন্ত কমিটি Logo প্রতিবন্ধী ভাতার টাকা হাতিয়ে বহাল তবিয়তে মাদারীপুরের দুই সহকারী সমাজসেবা অফিসারl Logo যমুনা লাইফের গ্রাহক প্রতারণায় ‘জড়িতরা’ কে কোথায় Logo ঢাকাস্থ ভোলা সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি আহসান কামরুল, সম্পাদক জিয়াউর রহমান Logo টাটা মটরস বাংলাদেশে উদ্বোধন করলো টাটা যোদ্ধা Logo আশা শিক্ষা কর্মসূচী কর্তৃক অভিভাবক মতবিনিময় সভা Logo গণপূর্ত প্রধান প্রকৌশলীর গাড়ি চাপায় পিষ্ট সহকারী প্রকৌশলী -উত্তাল গণপূর্ত Logo শাবিপ্রবির বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ Logo সওজের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী নাহিনুরের সীমাহীন সম্পদ ও অনিয়ম -পর্ব-০১




‘হিটলারের মতোই আজীবন ক্ষমতায় থাকতে চান মোদি’

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০২:৪৬:১৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০১৯ ১১৩ বার পড়া হয়েছে

আন্তর্জাতিক ডেস্ক;
জার্মানির অ্যাডলফ হিটলারের সঙ্গে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির তুলনা করলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী তথা আম আদমি পার্টির (আপ) প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

তিনি বলেছেন, ‘হিটলারের মতোই আজীবন ক্ষমতায় থাকতে চান নরেন্দ্র মোদি। ১৯৩২ সালে জার্মানির চ্যান্সেলর নির্বাচিত হন হিটলার। তার তিন মাসের মধ্যে দেশের সংবিধান বদলে ফেলেন তিনি। বন্ধ করে দেন নির্বাচন। তার আদর্শ মেনেই এগোচ্ছে বিজেপি, যেখানে আজীবন প্রধানমন্ত্রী থাকতে পারবেন নরেন্দ্র মোদি।

২০১৯-এর নির্বাচন হলো গণতন্ত্র রক্ষার লড়াই উল্লেখ করে কেজরিওয়াল বলেন, এই নির্বাচন গণতন্ত্র রক্ষার লড়াই। ফের যদি মোদি প্রধানমন্ত্রী হন, অমিত শাহ হবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। গতবার লোকসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি অমিত শাহ। এ বার গাঁধীনগর থেকে লড়ছেন। শাহ দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হলে পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে ভেবে দেখুন।

সম্প্রতি দেশটির গোয়ায় একটি জনসভায় বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

বালাকোট নিয়ে এর আগে মোদি সরকারের বিরুদ্ধে মিথ্যা ছড়ানোর অভিযোগ তুলেছিলেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল। বালাকোটের পরও মোদিকে ফের ভারতের প্রধানমন্ত্রী দেখতে চান বলে মন্তব্য করেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। কিন্তু এর পেছনে মোদি-ইমরানের আঁতাত রয়েছে বলে অভিযোগ তোলেন কেজরিওয়াল।

তার দাবি, ‘ইমরান খান বলছেন ফের মোদিরই প্রধানমন্ত্রী হওয়া উচিত। ওদের মধ্যে চলছেটা কী? হঠাৎ এত উদ্বিগ্ন হয়ে পড়লেন কেন ইমরান? মোদিকেই বা প্রধানমন্ত্রী চাইছেন কেন? আসলে নরেন্দ্র মোদির মতো ভালো প্রধানমন্ত্রী আর পাবে না পাকিস্তান! কারণ, যেভাবে ভারতকে বিষিয়ে দিচ্ছেন মোদি, তাতে ওদেরই লাভ। গত ৭০ বছরে ওরা যা করতে পারেনি, মোদি-শাহ তা পাঁচ বছরেই করে দেখিয়েছেন। ভারতীয় সমাজে বিভাজন সৃষ্টি করেছেন তারা।

সূত্র : আনন্দবাজার

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




‘হিটলারের মতোই আজীবন ক্ষমতায় থাকতে চান মোদি’

আপডেট সময় : ০২:৪৬:১৯ অপরাহ্ন, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০১৯

আন্তর্জাতিক ডেস্ক;
জার্মানির অ্যাডলফ হিটলারের সঙ্গে ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির তুলনা করলেন দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী তথা আম আদমি পার্টির (আপ) প্রধান অরবিন্দ কেজরিওয়াল।

তিনি বলেছেন, ‘হিটলারের মতোই আজীবন ক্ষমতায় থাকতে চান নরেন্দ্র মোদি। ১৯৩২ সালে জার্মানির চ্যান্সেলর নির্বাচিত হন হিটলার। তার তিন মাসের মধ্যে দেশের সংবিধান বদলে ফেলেন তিনি। বন্ধ করে দেন নির্বাচন। তার আদর্শ মেনেই এগোচ্ছে বিজেপি, যেখানে আজীবন প্রধানমন্ত্রী থাকতে পারবেন নরেন্দ্র মোদি।

২০১৯-এর নির্বাচন হলো গণতন্ত্র রক্ষার লড়াই উল্লেখ করে কেজরিওয়াল বলেন, এই নির্বাচন গণতন্ত্র রক্ষার লড়াই। ফের যদি মোদি প্রধানমন্ত্রী হন, অমিত শাহ হবেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। গতবার লোকসভা নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেননি অমিত শাহ। এ বার গাঁধীনগর থেকে লড়ছেন। শাহ দেশের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী হলে পরিস্থিতি কোথায় গিয়ে দাঁড়াবে ভেবে দেখুন।

সম্প্রতি দেশটির গোয়ায় একটি জনসভায় বক্তৃতায় তিনি এসব কথা বলেন।

বালাকোট নিয়ে এর আগে মোদি সরকারের বিরুদ্ধে মিথ্যা ছড়ানোর অভিযোগ তুলেছিলেন অরবিন্দ কেজরিওয়াল। বালাকোটের পরও মোদিকে ফের ভারতের প্রধানমন্ত্রী দেখতে চান বলে মন্তব্য করেন পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান। কিন্তু এর পেছনে মোদি-ইমরানের আঁতাত রয়েছে বলে অভিযোগ তোলেন কেজরিওয়াল।

তার দাবি, ‘ইমরান খান বলছেন ফের মোদিরই প্রধানমন্ত্রী হওয়া উচিত। ওদের মধ্যে চলছেটা কী? হঠাৎ এত উদ্বিগ্ন হয়ে পড়লেন কেন ইমরান? মোদিকেই বা প্রধানমন্ত্রী চাইছেন কেন? আসলে নরেন্দ্র মোদির মতো ভালো প্রধানমন্ত্রী আর পাবে না পাকিস্তান! কারণ, যেভাবে ভারতকে বিষিয়ে দিচ্ছেন মোদি, তাতে ওদেরই লাভ। গত ৭০ বছরে ওরা যা করতে পারেনি, মোদি-শাহ তা পাঁচ বছরেই করে দেখিয়েছেন। ভারতীয় সমাজে বিভাজন সৃষ্টি করেছেন তারা।

সূত্র : আনন্দবাজার