• ১৩ই মে ২০২১ খ্রিস্টাব্দ , ৩০শে বৈশাখ ১৪২৮ বঙ্গাব্দ

বিদ্যুতের প্রথম আন্ডারগ্রাউন্ড সাবস্টেশন হবে ঢাকায়

সকালের সংবাদ ডেস্ক;
প্রকাশিত এপ্রিল ১০, ২০১৯, ২০:৫৮ অপরাহ্ণ
বিদ্যুতের প্রথম আন্ডারগ্রাউন্ড সাবস্টেশন হবে ঢাকায়

ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানিদেশে বিদ্যুতের প্রথম আন্ডারগ্রাউন্ড সাবস্টেশন করতে যাচ্ছে ঢাকা পাওয়ার ডিস্ট্রিবিউশন কোম্পানি (ডিপিডিসি)। রাজধানীর কাওরান বাজারে সাবস্টেশনটি স্থাপন করা হবে। জাপানের অর্থায়নে মাটির নিচে সাবস্টেশনটি স্থাপন করবে ডিপিডিসি।

প্রকল্পটি বাস্তবায়িত হলে বিদ্যুৎ সরবরাহের ক্ষেত্রে ১৩২ কেভি পর্যায়ে ৩৬০ এমভিএ এবং ৩৩ কেভি পর্যায়ে ১৫০ এমভিএ ক্ষমতা বাড়বে।

ডিপিডিসি সূত্রে জানা গেছে, জাপান ইন্টারন্যাশনাল করপোরেশন এজেন্সি- জাইকা’র অর্থায়নে প্রকল্পটি বাস্তবায়ন হবে। এতে প্রাথমিক ব্যয় ধরা হয়েছে প্রায় ৯৫০ কোটি টাকা। গত বছর ২১ জুন প্রকল্পটি অর্থনৈতিক বিষয়ক জাতীয় কমিটি (একনেক) অনুমোদন করেছে। গত ২৫ মার্চ এ প্রকল্পের পরামর্শক নিয়োগের জন্য জেভি অব টেপেসকো অ্যান্ড টেপেসকো’র সঙ্গে চুক্তি করেছে ডিপিডিসি।

ডিপিডিসি’র একজন কর্মকর্তা জানান, ২০১৭ সালের ২৯ জুন ডিপিডিসি ঋণ চুক্তি সই করেছে। ফলে প্রকল্পের অর্থায়ন অনেক আগে থেকেই নিশ্চিত রয়েছে। এটি বাংলাদেশের জন্য একটি নতুন অভিজ্ঞতা বলে মনে করেন তিনি।

সংশ্লিষ্ট সূত্র বলছে, ঢাকা বিশ্বের ঘনবসতিপূর্ণ নগরীগুলোর একটি। এখানে বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থার জন্য বাড়তি জমির সংস্থান করা কঠিন। ডিপিডিসি রাজধানীর মধ্যাঞ্চলে বিদ্যুৎ বিতরণ করে। এই এলাকা আরও বেশি ঘনবসতিপূর্ণ। মানুষ কোনও অবস্থাতে সাবস্টেশন স্থাপনের জন্য জমি ছাড়তে চায় না। এতে করে বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা উন্নত করতে বেগ পেতে হচ্ছে। তবে বিতরণ ব্যবস্থার পুরোটা মাটির নিচে নিয়ে গেলে ওপরে এর জন্য আর জমি ব্যয় করতে হবে না। মাটির নিচে সাবস্টেশনে বসেই বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা নিয়ন্ত্রণও করা যেতে পারে।

বিশ্বের আধুনিক সব শহরেই মাটির নিচে দিয়ে বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা গড়ে তোলা হয়েছে। সেখানে ঢাকা এখনও ব্যতিক্রম রয়ে গেছে। মাটির নিচে বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থার পুরোটা নিয়ে গেলে ঝড় বৃষ্টি বা মাটির ওপরের অন্যকোনও দুর্যোগে বিতরণ ব্যবস্থা বন্ধ করতে হবে না। এখন সামান্য ঝড়- বৃষ্টিতেও বিদ্যুৎ বিতরণ ব্যবস্থা বন্ধ করতে হয়।

এ বিষয়ে জানতে চাইলে ডিপিডিসি’র নির্বাহী পরিচালক (অপারেশন) প্রকৌশলী হারুন অর রশীদ বলেন, ‘পর্যায়ক্রমে আমাদের বিতরণ ব্যবস্থার পুরোটা মাটির নিচে নিয়ে যেতে চাই। কিন্তু এজন্য বিপুল পরিমাণ বিনিয়োগ প্রয়োজন। একবারে এত বেশি বিনিয়োগ করা সম্ভব নয়। ক্রমান্বয়ে বিনিয়োগ করতে হবে।’

তিনি বলেন, ‘এরইমধ্যে আমরা আন্ডারগ্রাউন্ড ক্যাবল স্থাপন করছি। এখন সাবস্টেশনগুলো আন্ডারগ্রাউন্ডে স্থাপনের জন্য চিন্তা-ভাবনা করা হচ্ছে। একটির কাজ শুরুও করতে যাচ্ছি, যা বাংলাদেশে প্রথম।’

প্রকল্পটির পরিচালক ও ডিপিডিসি’র প্রধান প্রকৌশলী (প্ল্যানিং) শহিদুল ইসলাম বলেন, ‘এখন ডিজাইন প্রণয়নের কাজ চলছে। এজন্য জাপানি একটি কোম্পানিকে পরামর্শক হিসেবে নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। এই সাবস্টেশনটির ওপরে একটি ১১ কিংবা ১২ তলা বিল্ডিং স্থাপনের পরিকল্পনাও রয়েছে। সেই বিল্ডিংয়ের ডিজাইনের জন্যও একটি আর্কিটেকচারাল ফার্মকে পরামর্শক নিয়োগ দেওয়া হয়েছে। খুব শিগগিরই এর অগ্রগতি দেখা যাবে।’

প্রসঙ্গত, মোট ১২ লাখ ১১ হাজার ৭১০ জন গ্রাহকের ডিপিডিসি ঢাকার মধ্যাঞ্চলে বিদ্যুৎ বিতরণ করে। দেশের বিতরণ কোম্পানিগুলোর মধ্যে সব থেকে বেশি সম্পত্তির মালিকও তারা। এখন প্রতিষ্ঠানটির হাতে ৯ হাজার ৫৫৮ কোটি টাকার সম্পদ রয়েছে।

  • ফজর
  • যোহর
  • আছর
  • মাগরিব
  • এশা
  • সূর্যোদয়
  • ৩:৫৮
  • ১১:৫৮
  • ৪:৩২
  • ৬:৩৫
  • ৭:৫৭
  • ৫:১৮