ঢাকা ১২:৪২ পূর্বাহ্ন, সোমবার, ২৯ মে ২০২৩, ১৪ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩০ বঙ্গাব্দ




পটুয়াখালীতে পাঁচ লাখ ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার ২

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ০৭:৫২:১১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ এপ্রিল ২০১৯ ৩১ বার পড়া হয়েছে

পটুয়াখালী প্রতিনিধি |

পটুয়াখালীর পায়রা সমুদ্র বন্দরের রামনাবাদ চ্যানেল সংলগ্ন বঙ্গোপসাগর থেকে পাঁচ লাখ ইয়াবাসহ দুজনকে আটক করেছে কোস্টগার্ড।
মঙ্গলবার বেলা আড়াইটা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে রামনাবাদ চ্যানেল থেকে অনন্ত ৪৫ কিলোমিটার গভীর বঙ্গোপসাগর থেকে তাদের আটক করা হয়। এ সময় ইঞ্জিনচালিত দুটি মাছ ধরার ট্রলারও জব্দ করা হয়।
আটকরা হলেন, জেলার কলাপাড়া উপজেলার চাকামইয়া ইউনিয়নের মোবারক শিকদারের ছেলে মোশারফ হোসেন ও মহিপুরের মৃত সোহরাব শিকদারের ছেলে টিপু শিকদার।
কলাপাড়ার নিজামপুর স্টেশনে এক সংবাদ সম্মেলনে কোস্টগার্ড জানায়, গেল রোববার এফবি মাসুম নামে ইঞ্জিনচালিত একটি মাছ ধরার ট্রলারে করে টেকনাফ থেকে ইয়াবা নিয়ে মহিপুরের উদ্দেশে রওয়ানা দেয় আটক মোশারেফ হোসেন ও টিপু শিকদার। পথিমধ্যে ট্রলারের ইঞ্জিন বিকল হয়ে গেলে ট্রলারের মালিক আল-আমিন, সোহরাব হোসেন, জহির, বেল্লাল ও নিজাম তাদের উদ্ধার করতে বঙ্গোপসাগরের দিকে যায়। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে কোস্টগার্ড পায়রা বন্দর, নিজামপুর ও ভোলা কন্টিজেন্স যৌথ অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে।
পালিয়ে যাওয়া সবার বাড়ি কলাপাড়া উপজেলার মহিপুর ও লতাচাপলী ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে বলে নিশ্চিত করেছে কোস্টগার্ড।
কোস্টগার্ডের স্টাফ অফিসার (অপারেশন) ল্যাফটেন্যান্ট কমান্ডার নাজিউর রহমান জানান, কক্সবাজার ও টেকনাফে মাদকবিরোধী অভিযান জোরদার করায় মাদক পাচারকারীরা উপকূলীয় এ নৌ-পথকে নিরাপদ জোন হিসেবে বেছে নিয়েছে। কোস্টগার্ডও এ অঞ্চলের নৌ-পথের ওপর গোয়েন্দা নজরদারি রেখেছিল। যার ফলশ্রুতিতেই মঙ্গলবার অভিযান চালিয়ে পাঁচ লাখ ইয়াবাসহ দুজনকে আটক করা হয়েছে।

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




পটুয়াখালীতে পাঁচ লাখ ইয়াবাসহ গ্রেপ্তার ২

আপডেট সময় : ০৭:৫২:১১ অপরাহ্ন, বুধবার, ১০ এপ্রিল ২০১৯

পটুয়াখালী প্রতিনিধি |

পটুয়াখালীর পায়রা সমুদ্র বন্দরের রামনাবাদ চ্যানেল সংলগ্ন বঙ্গোপসাগর থেকে পাঁচ লাখ ইয়াবাসহ দুজনকে আটক করেছে কোস্টগার্ড।
মঙ্গলবার বেলা আড়াইটা থেকে সন্ধ্যা পর্যন্ত অভিযান চালিয়ে রামনাবাদ চ্যানেল থেকে অনন্ত ৪৫ কিলোমিটার গভীর বঙ্গোপসাগর থেকে তাদের আটক করা হয়। এ সময় ইঞ্জিনচালিত দুটি মাছ ধরার ট্রলারও জব্দ করা হয়।
আটকরা হলেন, জেলার কলাপাড়া উপজেলার চাকামইয়া ইউনিয়নের মোবারক শিকদারের ছেলে মোশারফ হোসেন ও মহিপুরের মৃত সোহরাব শিকদারের ছেলে টিপু শিকদার।
কলাপাড়ার নিজামপুর স্টেশনে এক সংবাদ সম্মেলনে কোস্টগার্ড জানায়, গেল রোববার এফবি মাসুম নামে ইঞ্জিনচালিত একটি মাছ ধরার ট্রলারে করে টেকনাফ থেকে ইয়াবা নিয়ে মহিপুরের উদ্দেশে রওয়ানা দেয় আটক মোশারেফ হোসেন ও টিপু শিকদার। পথিমধ্যে ট্রলারের ইঞ্জিন বিকল হয়ে গেলে ট্রলারের মালিক আল-আমিন, সোহরাব হোসেন, জহির, বেল্লাল ও নিজাম তাদের উদ্ধার করতে বঙ্গোপসাগরের দিকে যায়। গোপন সূত্রে খবর পেয়ে কোস্টগার্ড পায়রা বন্দর, নিজামপুর ও ভোলা কন্টিজেন্স যৌথ অভিযান চালিয়ে তাদের আটক করে।
পালিয়ে যাওয়া সবার বাড়ি কলাপাড়া উপজেলার মহিপুর ও লতাচাপলী ইউনিয়নের বিভিন্ন গ্রামে বলে নিশ্চিত করেছে কোস্টগার্ড।
কোস্টগার্ডের স্টাফ অফিসার (অপারেশন) ল্যাফটেন্যান্ট কমান্ডার নাজিউর রহমান জানান, কক্সবাজার ও টেকনাফে মাদকবিরোধী অভিযান জোরদার করায় মাদক পাচারকারীরা উপকূলীয় এ নৌ-পথকে নিরাপদ জোন হিসেবে বেছে নিয়েছে। কোস্টগার্ডও এ অঞ্চলের নৌ-পথের ওপর গোয়েন্দা নজরদারি রেখেছিল। যার ফলশ্রুতিতেই মঙ্গলবার অভিযান চালিয়ে পাঁচ লাখ ইয়াবাসহ দুজনকে আটক করা হয়েছে।