ঢাকা ১২:৩৫ অপরাহ্ন, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০২৪, ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪৩১ বঙ্গাব্দ
সংবাদ শিরোনাম :
Logo রূপালী ব্যাংকের ডিজিএম কর্তৃক সহকর্মী নারীকে যৌন হয়রানি: ধামাচাপা দিতে মরিয়া তদন্ত কমিটি Logo প্রতিবন্ধী ভাতার টাকা হাতিয়ে বহাল তবিয়তে মাদারীপুরের দুই সহকারী সমাজসেবা অফিসারl Logo যমুনা লাইফের গ্রাহক প্রতারণায় ‘জড়িতরা’ কে কোথায় Logo ঢাকাস্থ ভোলা সাংবাদিক ফোরামের সভাপতি আহসান কামরুল, সম্পাদক জিয়াউর রহমান Logo টাটা মটরস বাংলাদেশে উদ্বোধন করলো টাটা যোদ্ধা Logo আশা শিক্ষা কর্মসূচী কর্তৃক অভিভাবক মতবিনিময় সভা Logo গণপূর্ত প্রধান প্রকৌশলীর গাড়ি চাপায় পিষ্ট সহকারী প্রকৌশলী -উত্তাল গণপূর্ত Logo শাবিপ্রবির বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের উদ্যোগে বৃক্ষরোপণ Logo সওজের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী নাহিনুরের সীমাহীন সম্পদ ও অনিয়ম -পর্ব-০১ Logo তামাক সেবনের আলাদা কক্ষ বানালেন গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলী: রয়েছে দুর্নীতির পাহাড়সম অভিযোগ!




মহা বেপরোয়া তিনি

তামাক সেবনের আলাদা কক্ষ বানালেন গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলী: রয়েছে দুর্নীতির পাহাড়সম অভিযোগ!

প্রতিনিধির নাম
  • আপডেট সময় : ১২:৩৩:৩৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ মে ২০২৪ ১০১ বার পড়া হয়েছে

বিশেষ প্রতিনিধি:

তামাক সেবনের জন্য আলাদা কক্ষ বানালেন গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু সুফিয়ান, এছাড়াও এই নির্বাহী প্রকৌশলী বিরুদ্ধে রয়েছে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ।

অর্থ বছর শুরুর আগেই বিভিন্ন কাজের এস্টিমেট অগ্রিম কমিশনের বিনিময়ে পছন্দের ঠিকাদারদের কাছে বিক্রি করে দেন। অফিস কক্ষের সঙ্গেই একটি আলাদা কক্ষ বানিয়েছেন নিজস্ব ঠিকাদার সিন্ডিকেটের সদস্যদের নিয়ে নেশা করার জন্য। এমন অভিযোগ গণপূর্ত ই/এম বিভাগ-৫ এর নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আবু সুফিয়ান মাহবুব এর বিরুদ্ধে। গণপূর্ত অধিদপ্তরের একাধিক প্রকৌশলী ও ঠিকাদার জানিয়েছেন, তার অফিস কক্ষে অধিকাংশ সময় নেশাখোরদের আড্ডা থাকে। সাধারণ ঠিকাদাররা দেখা করতে গেলে দেখা করার সুযোগ পান না।

অফিসের মধ্যেই সবাই মিলে সিগারেট খান। সাবেক গণপূর্ত সচিব ওয়াসিউদ্দিনের কাছের লোক হওয়ায় তিনি ধরাকে সরাজ্ঞান করেন বলে অভিযোগ করেছেন তার একাধিক ঠিকাদার ও তার সহকর্মীরা। তারা জানান, এই প্রকৌশলী বিভিন্ন ভুয়া বিল ভাউচারের মাধ্যমে টাকা উত্তোলন করেন। আবার পছন্দের ঠিকাদারের মাধ্যমে কাজ ঠিক মত না করেও বিল তুলে নেন। বিষয়টি তদন্ত করলে বেরিয়ে আসবে বলে জানান তারা। সংস্লিষ্টরা জানান, এই নির্বাহী প্রকৌশলীর আওতাধীন সুপ্রিম কোর্ট এলাকা দেখভাল করার দায়িত্ব থাকলেও তিনি সে দায়িত্ব পালন করেন না। এমনকি প্রকল্প সাইটেও তাকে দেখা যায় না।

এ কারনে সুপ্রিম কোর্টের রেজিষ্ট্রার সম্প্রতি তার পরিবর্তে অন্য একজন প্রকৌশলীকে পদায়নের জন্য প্রধান প্রকৌশলীকে অনুরোধ করেন। তবে প্রধান প্রকৌশলী রেজিষ্ট্রারকে জানান, সামনে জুন ক্লোজিং তাই জুনের পর বিষয়টি তিনি বিবেচনায় নিবেন। একাধিক প্রকৌশলী জানান, নির্বাহী প্রকৌশলী আবু সুফিয়ান আইবির গত কমিটির যান্ত্রিক প্রকৌশল বিভাগের সম্পাদক ছিলেন। কিন্তু আইইবিতে বসেই নেশা করার বিষয়টি জানাজানি হওয়ার কারনে সংগঠন থেকে তাকে আর মনোনয়ন দেওয়া হয়নি। উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী হিসেবে তার সুনাম থাকলেও নির্বাহী প্রকৌশলী হওয়ার পর থেকেই তিনি পাল্টে যান।

ঘুষ, দুর্নীতির কাচা টাকায় বেসামাল হয়ে পড়েন। এক সসয়ে স্মার্ট লিমন ক্রমেই মোটাসোটা হয়ে পড়েন এবং তাঁর চেহারার মাদকাসক্তের ছাপ স্পষ্ট হয়ে উঠে। এসব বিষয়ে জানতে চাইলে গণপূর্ত ই/এম বিভাগ-৫ এর নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আবু সুফিয়ান মাহবুব লিমন জানান, অভিযোগগুলো ভিত্তিহীন। অগ্রিম স্টিমেট বিক্রি করার কোন সুযোগ নেই। নেশার জন্য কক্ষ বানানো হয়েছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা ঠিক নয়, আপনি এসে দেখ যান। মাত্র তিন ফিটের একটা বারান্দামাত্র। প্রশ্ন হচ্ছে সেই বারান্দায় টাইলস লাগানোসহ বারান্দা ব্লক করে আলাদা কক্ষ নির্মাণের উদ্দেশ্য কী? তদন্ত কমিটি করে অনুসন্ধান করলেই বেড়িয়ে পড়বে সব কিছু।

Loading

নিউজটি শেয়ার করুন

আপনার মন্তব্য

Your email address will not be published. Required fields are marked *

আপনার ইমেইল এবং অন্যান্য তথ্য সংরক্ষন করুন

ট্যাগস :




মহা বেপরোয়া তিনি

তামাক সেবনের আলাদা কক্ষ বানালেন গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলী: রয়েছে দুর্নীতির পাহাড়সম অভিযোগ!

আপডেট সময় : ১২:৩৩:৩৯ অপরাহ্ন, বুধবার, ১৫ মে ২০২৪

বিশেষ প্রতিনিধি:

তামাক সেবনের জন্য আলাদা কক্ষ বানালেন গণপূর্তের নির্বাহী প্রকৌশলী আবু সুফিয়ান, এছাড়াও এই নির্বাহী প্রকৌশলী বিরুদ্ধে রয়েছে ব্যাপক অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ।

অর্থ বছর শুরুর আগেই বিভিন্ন কাজের এস্টিমেট অগ্রিম কমিশনের বিনিময়ে পছন্দের ঠিকাদারদের কাছে বিক্রি করে দেন। অফিস কক্ষের সঙ্গেই একটি আলাদা কক্ষ বানিয়েছেন নিজস্ব ঠিকাদার সিন্ডিকেটের সদস্যদের নিয়ে নেশা করার জন্য। এমন অভিযোগ গণপূর্ত ই/এম বিভাগ-৫ এর নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আবু সুফিয়ান মাহবুব এর বিরুদ্ধে। গণপূর্ত অধিদপ্তরের একাধিক প্রকৌশলী ও ঠিকাদার জানিয়েছেন, তার অফিস কক্ষে অধিকাংশ সময় নেশাখোরদের আড্ডা থাকে। সাধারণ ঠিকাদাররা দেখা করতে গেলে দেখা করার সুযোগ পান না।

অফিসের মধ্যেই সবাই মিলে সিগারেট খান। সাবেক গণপূর্ত সচিব ওয়াসিউদ্দিনের কাছের লোক হওয়ায় তিনি ধরাকে সরাজ্ঞান করেন বলে অভিযোগ করেছেন তার একাধিক ঠিকাদার ও তার সহকর্মীরা। তারা জানান, এই প্রকৌশলী বিভিন্ন ভুয়া বিল ভাউচারের মাধ্যমে টাকা উত্তোলন করেন। আবার পছন্দের ঠিকাদারের মাধ্যমে কাজ ঠিক মত না করেও বিল তুলে নেন। বিষয়টি তদন্ত করলে বেরিয়ে আসবে বলে জানান তারা। সংস্লিষ্টরা জানান, এই নির্বাহী প্রকৌশলীর আওতাধীন সুপ্রিম কোর্ট এলাকা দেখভাল করার দায়িত্ব থাকলেও তিনি সে দায়িত্ব পালন করেন না। এমনকি প্রকল্প সাইটেও তাকে দেখা যায় না।

এ কারনে সুপ্রিম কোর্টের রেজিষ্ট্রার সম্প্রতি তার পরিবর্তে অন্য একজন প্রকৌশলীকে পদায়নের জন্য প্রধান প্রকৌশলীকে অনুরোধ করেন। তবে প্রধান প্রকৌশলী রেজিষ্ট্রারকে জানান, সামনে জুন ক্লোজিং তাই জুনের পর বিষয়টি তিনি বিবেচনায় নিবেন। একাধিক প্রকৌশলী জানান, নির্বাহী প্রকৌশলী আবু সুফিয়ান আইবির গত কমিটির যান্ত্রিক প্রকৌশল বিভাগের সম্পাদক ছিলেন। কিন্তু আইইবিতে বসেই নেশা করার বিষয়টি জানাজানি হওয়ার কারনে সংগঠন থেকে তাকে আর মনোনয়ন দেওয়া হয়নি। উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী হিসেবে তার সুনাম থাকলেও নির্বাহী প্রকৌশলী হওয়ার পর থেকেই তিনি পাল্টে যান।

ঘুষ, দুর্নীতির কাচা টাকায় বেসামাল হয়ে পড়েন। এক সসয়ে স্মার্ট লিমন ক্রমেই মোটাসোটা হয়ে পড়েন এবং তাঁর চেহারার মাদকাসক্তের ছাপ স্পষ্ট হয়ে উঠে। এসব বিষয়ে জানতে চাইলে গণপূর্ত ই/এম বিভাগ-৫ এর নির্বাহী প্রকৌশলী মো. আবু সুফিয়ান মাহবুব লিমন জানান, অভিযোগগুলো ভিত্তিহীন। অগ্রিম স্টিমেট বিক্রি করার কোন সুযোগ নেই। নেশার জন্য কক্ষ বানানো হয়েছে কি না জানতে চাইলে তিনি বলেন, এটা ঠিক নয়, আপনি এসে দেখ যান। মাত্র তিন ফিটের একটা বারান্দামাত্র। প্রশ্ন হচ্ছে সেই বারান্দায় টাইলস লাগানোসহ বারান্দা ব্লক করে আলাদা কক্ষ নির্মাণের উদ্দেশ্য কী? তদন্ত কমিটি করে অনুসন্ধান করলেই বেড়িয়ে পড়বে সব কিছু।

Loading